রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নৌকা থাকবে না বলায় প্রার্থীর সংখ্যা বাড়ছে


মাহবুব পলাশ :: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর আবার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে নির্বাচন কমিশন। জানা গেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি) এবার ধাপে ধাপে ষষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচন আয়োজনের দিকে যাচ্ছে । এক্ষেত্রে মার্চের প্রথমার্ধে শুরু হতে পারে এই নির্বাচন। জানুয়ারির শেষের দিকে তফসিল হতে পারে। উক্ত সম্ভাব্যতা জানার পর থেকে মাঠে নড়েচড়ে উঠতে দেখা যাচ্ছে সম্ভাব্য প্রার্থীগনদের। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে মাঠেঘাটে অফিস পাড়া সর্বত্র আবার আলোচনায় উঠে আসছে কে হচ্ছে আগামী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান। আবার দলীয় প্রতীক নৌকা থাকবে না বলায় প্রার্থীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে যেন ।
মীরসরাই উপজেলা পরিষদের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান সকল প্রার্থীর প্রায় একই বক্তব্য, সকল প্রার্থীই সোজাসাপটা বলছেন আওয়ামীলীগের প্রবীণ রাজনীতিবিদ এবং সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন যা বলবেন সেটাই সকলে মাথা পেতে নিবেন। অপর দিকে বিএনপি এখনো নির্বাচনে যাবে না বলে পূর্বের সিদ্ধান্তে অটল।
মাঠের গুঞ্জন ও সম্ভাব্য প্রার্থীগনের সাথে আলোচনা করে জানা গেছে মীরসরাইয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্মসম্পাদক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বাহার, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক একেএম জাহাঙ্গীর ভূঞা, উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন, সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ফেরদৌস হোসেন আরিফ, ৪ নং জোরারগঞ্জের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাষ্টার রেজাউল করিম, সাবেক ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান ইয়াসমিন শাহীন কাকলী, ৯নং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান হাজ্বী এমরান উদ্দিন, বারইয়াহাট পৌরসভার সাবেক মেয়র ভিপি নিজাম উদ্দিন, করেরহাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উদয়ন ক্লাবের সাবেক সভাপতি শেখ সেলিম। উপজেলা চেয়ারম্যান পদেই এক ডজনের অধিক সম্ভাব্য প্রার্থীকে এখন মাঠে দেখা যাচ্ছে। বিশেষ করে দলীয় প্রতীক আর থাকছে না ঘোষনা আসার পর প্রার্থীর সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে যেন।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত আরা ফেন্সী, যুব মহিলালীগের সভাপতি বিবি কুলসুম চম্পা, প্রয়াত যুবলীগের সভাপতি মোমিনুল ইসলাম টিপুর সহধর্মিনী বিবি কুলসুম কলি প্রমুখ। ভাইস চেয়ারম্যান পদে বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান এম আলাউদ্দিন, হিন্দু কল্যান ট্রাষ্টি উত্তম কুমার শর্মা, মিহির কান্তি নাথ ও আবুল হোসেন এর নাম শোনা যাচ্ছে। আবার দিনক্ষন আরো ঘনিয়ে এলে উল্লেখিত ব্যক্তিবর্গ ছাড়া ও আরো অনেক প্রার্থীর সংযোজন বা বিয়োজন ঘটতে পারে বলে পর্যবেক্ষক মহলের অভিমত।
বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জসিম উদ্দিন বলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ও তাঁর পুত্র মাহবুব-উর রহমান রুহেল এমপি যেভাবেই নির্দেশনা দিবেন এর বাইরে আমরা কেউ নই। নেতার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গন্য হবে। সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শেখ আতাউর রহমান বলেন প্রধানমন্ত্রী, নির্বাচন কমিশন এবং ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এর নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা সদা সুশৃংখল ছিলাম-আছি ও থাকবো। অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন উপজেলা নির্বাচন নিয়ে ও প্রিয় নেতা এবং আমাদের অভিবাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এর সিদ্ধান্তের বাইরে যাবার সুযোগ কারো নেই। তিনি বলেন প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় আমি বা অনেকের নাম আসতেই পারে।

উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক একেএম জাহাঙ্গীর ভূঞা বলেন মীরসরাই উপজেলা হলো বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিধন্য ও তাঁর সহচর ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এর মতো গুণী মানুষের বিচরণক্ষেত্র। এখানে অবশ্যই নেতৃত্ব নির্বাচনে ও আমাদের অভিবাবক এর বর্তমানে আর কেউ কথা বলার অধিকার রাখি না। তাই তিনি কি বলেন সেই অপেক্ষায় আছি আমরা। সম্ভাব্য আরেক তরুণ প্রার্থী উত্তর জেলা আওয়ামীলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এনায়েত হোসেন নয়ন বলেন মাঠে অনেকেই অনেকের নাম আলোচনায় আনতে পারেন কিন্তু আমরা প্রাধান্য দিবো আমাদের সদ্য নির্বাচিত এমপি ও অভিবাবক মাহবুব রহমান রুহেল ও আমরণের অভিবাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন কি নির্দেশনা দেন। তিনি যাই বলেন আমরা তাই মেনে নিবো। প্রার্থীতার বিষয়ে আরেক সম্ভাব্য প্রার্থী জোরারগঞ্জের চেয়ারম্যান আলহাজ¦ মাষ্টার রেজাউল করিম বলেন তরুণ প্রজন্মের আইকন মাহবুব রহমান রুহেল এর সাথে কে যথার্থভাবে উপজেলা প্রশাসনের জন্য উত্তম সহায়ক কে হতে পারেন তা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ছাড়া আর কেউ সর্বোত্তম নির্দেশনা দিতে পারবেন না, তাই আমাদের বক্তব্য নয়, তিনি যাই বলেন সেটাই চূড়ান্তভাবে মেনে নেয়া আমাদের শিরোধার্য্য। তথাপি আমরা নিজেরা কেউ তাঁর নির্দেশনার বাইরে গিয়ে প্রার্থী হবার কথা ভাবি না। পর্যায়ক্রমে একই বক্তব্য অপর সকল উপজেলা চেয়ারম্যানপ্রার্থী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান এবং ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীগন সহ সকল সম্ভাব্য প্রার্থীগনের।
এদিকে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও সাবেক উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা এখনো নির্বাচন বর্জনের আন্দোলনে আছি। এই সরকারের বিদায় না হওয়া পর্যন্ত কোন নির্বাচনে আমরা যাবো না। দলের এই সিদ্ধান্তের বাইরে আমরা কেউ নই।
এই বিষয়ে মীরসরাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জাকির হোসাইন বলেন উপজেলা নির্বাচনের বিষয়ে আমাদের কাছে এখনো কোন নির্দেশনা আসেনি, তবে যে কোন সময় সিদ্ধান্ত দিলে সেই হিসেবে আমরা প্রস্তুত আছি। এই বিষয়ে মীরসরাইয়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজা জেরিন বলেন আমাদের কাছে এখনো নির্দেশনা না আসায় আমরা কোন প্রকার মতামত প্রদান করতে পারছি না, তবে সরকারের যে কোন নির্দেশনা মানতে আমরা প্রস্তুত আছি।