বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

খৈয়াছড়ায় দুই বাড়ি লগডাউন, বন্ধ ২টি দোকান : নির্বাহী কর্মকর্তার সতর্কতা নির্দেশ


নিজস্ব প্রতিনিধি : মীরসরাইয়ে করোনা ভাইরাস (কোভিড- ১৯) আক্রান্ত একজন মহিলা রোগী (২৫) শনাক্ত হওয়া পর উপজেলা প্রশাসন ওই বাড়ি সহ দুটি বাড়ি লকডাউন করে দিয়েছেন। রবিবার বেলা ১১ টার দিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন মীরসরাই থানার ওসি মুজিবুর রহমান সহ উক্ত খৈয়াছরা ইউনিয়নের ২টি বাড়ী লকডাউন ও ২টি মুদি দোকান ৭ দিনের জন্য বন্ধ করে দিয়েছেন। এসময় উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তার উপস্থিতিতে স্থানীয় চেয়ারম্যান জাহেদ ইকবাল চৌধুরী ও ইউপি সদস্যগনকে সর্বোতভাবে লকডাউন কার্যকরের নির্দেশনা দেয়া হয়। উক্ত দুটি বাড়ির কেউ পরবর্তি নির্দেশনা পর্যন্ত বাহিরে যেতে পারবে না। তাদের যে কোন প্রয়োজন বাড়িতে অবস্থান করা অবস্থায় স্থানীয় চেয়ারম্যান চৌকিদার ও স্বজনদের মাধ্যমে নিরাপদ দূরত্বে থেকে ব্যবস্থা করবেন।
জানা গেছে, উপজেলার খৈয়াছরা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের নীচতালুক গ্রামের মৌলভী সৈয়দুর রহমান বাড়ির একজন মহিলা ( সেনা সৈনিকের স্ত্রী) বাসিন্দা করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শনিবার (১৮ এপ্রিল) চট্টগ্রাম সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) তার করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। ইতিমধ্যে উক্ত মহিলা ও চালকের সংস্পর্শে থাকা দুই পরিবারের সকলের নমুনা সংগ্রহ করে চট্টগ্রামের ফৌজদারহাটস্থ বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস (বিআইটিআইডি)তে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা: মিজান।
ওই মহিলার ভাসুর (স্বামীর বড় ভাই) জানান, কয়েকদিন ধরে গলা ব্যাথা, কাশিসহ করোনা উপসর্গ দেখা দিলে গত বুধবার তাকে সিএমএইচ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এরপর তার শরীর থেকে করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়। শনিবার রাতে তাকে হাসপাতাল থেকে জানানো হয় তার ছোট ভাইয়ের স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত। এর পূর্বে পরিবারের সদস্যরা ও বুঝে নাই তাদের ঘরে করোনা সম্ভাব্য রোগী আছে।
উক্ত লকডাউন বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ওসি মুজিবুর রহমান এক নির্দেশনা ও প্রদান করেন। তিনি বলেন উক্ত ব্যক্তিদের সাথে কেউ মানহানিকর আচরন করবেন না। যে কোন মানবিক সহযোগিতা করতে চাইলে প্রহরারত চকিদারের মাধ্যমে ঘরের পাশাপাশি স্থানে রেখে আসবেন। আবার যে কোন প্রয়োজনে বিকাশ বা দূরবর্তি স্বজনদের মাধ্যমে সহযোগিতা ও প্রয়োজন সারবেন। এলাকার সবাই পরস্পর নিরাপদ দূরত্বে থেকে এই বিপর্যয় কালীন কিছুদিন অতিবাহিত করবেন।