শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

দক্ষিন সুদানে সরকার অনুগত-বিদ্রোহীদের সংঘর্ষ: নিহত ৫০০

SSudan

 

সাউথ সুদানে সরকার অনুগত ও বিদ্রোহী সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত রয়েছে। দুদিনের সংঘর্ষে অন্তত পাঁচশ মানুষ মারা গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। এ ঘটনায় বিশ হাজারের বেশি মানুষ আশ্রয় নিয়েছে জাতিসংঘের বিভিন্ন ক্যাম্পে। এদিকে, মার্কিন দূতাবাসের কম গুরুত্বপূর্ণ কর্মীদের দ্রুত সাউথ সুদান ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।বিশ্বের নবীনতম দেশ সাউথ সুদানে সেনা অভ্যুত্থানের চেষ্টা ব্যর্থ হওয়ার পর থেকেই সরকার অনুগত ও বিদ্রোহী সেনাদের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এ ঘটনায় আটক হয়েছে দশ উচ্চপদস্থ রাজনৈতিক নেতাকর্মী। কারফিউ জারি করা হয়েছে কয়েকটি স্থানে। সংঘর্ষের ঘটনায় মারা গেছে অনেকে আর আতঙ্কে বাড়িঘর ছেড়ে রাজধানী জুবার জাতিসংঘ মিশনে আশ্রয় নিয়েছে বিশ হাজারের বেশি মানুষ।প্রত্যক্ষদর্শীদের একজন জানালেন, গোলাগুলির ভয়ে আমরা ভিটে মাটি পালিয়েছি। কিছুই নিয়ে আসতে পারিনি। আমাদের ঘরবাড়ি জায়গাজমি সবকিছু ধ্বংস হয়ে গেছে।ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জন্য সাবেক সহকারী রিয়েক মাচারকে দায়ী করেছেন প্রেসিডেন্ট কির। পলাতক মাচারকে খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে সরকার। সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তত পাঁচশ মানুষ মারা গেছে দাবি করে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ।সুদানে জাতিসংঘের প্রতিনিধি বলেন, শান্তিময় দেশ দেখতে চায় সাউথ সুদানের জনগণ। কেউ ফিরে যেতে যায় না নিরাপত্তাহীণ স্থানে। এই সহিংস পরিস্থিতি বন্ধ করে দেশে স্থিতসশীলতা ফিরিয়ে আনার সঠিক সমাধান দেশের রাজনৈতিক নেতাদের পক্ষ থেকে আসা প্রয়োজন।প্রায় পাঁচ দশকের গৃহযুদ্ধ শেষে, ২০১১ সালে সুদান ভেঙে জন্ম নেয় সাউথ সুদান। জুলাইতে মন্ত্রিসভা ভেঙে প্রেসিডেন্ট বরখাস্ত করেন ভাইস প্রেসিডেন্ট রিক মাচারকে। দুজনই দেশের দুটি প্রধান বৃহৎ জনগোষ্ঠীর নেতা। তাই রাষ্ট্রক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে গত কয়েক মাসে বেশ কয়েকবার সংঘর্ষে জড়িয়েছে এই দুই নেতার অনুসারীরা।

Leave a Reply