শনিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মীরসরাইয়ে প্রতিবন্ধিদের উন্নয়নে অগ্রদূত’ এর অগ্রযাত্রা

মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন :

mir
ঐক্য, সামাজিক সচেতনতা ও প্রশিক্ষন গ্রহনের মাধ্যমে এগিয়ে যাচ্ছে অগ্রদূত প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থা। ২০০৭ ইং সালের শুরুর দিকে এলাকার কিছু শ্রদ্ধাভাজন মুরব্বী ও উদ্যমী, কর্মঠ, উদীয়মান কিছু তরুনের সমন্বিত প্রচেষ্টায় ও একাগ্রতায় গড়ে উঠে মীরসরাই উপজেলার ১০ নং মিঠানালা ইউনিয়নের অন্তর্গত রাজাপুরস্থ প্রতিন্ধিদের সংগঠন অগ্রদূত প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থা।যে সময়টা প্রতিবন্ধিদের জন্য চরম দুঃসময়, প্রতিবন্ধিরা তাদের ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত,সমাজে তারা চরম অবহেলিত,লাঞ্ছনার শিকার,ঠিক তখনই প্রতিবন্ধিদের পাশে আলোর শিখা হয়ে আগমন হয় অগ্রদূত প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থা। সংস্থাটির প্রতিষ্ঠা লগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত সিডিডি,মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন,অপকা এই তিনটি ঘএঙ সহযোগিতা করে আসছে। ২০ জন প্রতিবন্ধির সমন্বয়ে প্রতিবন্ধিদের উন্নয়নের ব্রত নিয়ে অগ্রদূত প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থার যাত্রা শুরু।সংস্থার সুচনালগ্নে সদস্যদের সিলেকশনের মাধ্যমে জনাব কামাল উদ্দিনকে সভাপতি ও জনাব এ কে খানকে সেক্রেটারী মনোনীত করা হয়। বর্তমানে এই সংগঠনে ৯০ জন প্রতিবন্ধি সদস্য রয়েছে।সদস্যরা সবাই ৭ নং কাটাছড়া,৮নং দূর্গাপুর,ও ১০ নং মিঠানালা ইউনিয়নের বাসিন্দা। প্রতিবন্ধি সদস্যদের ঐক্যবদ্ব করে প্রতিবন্দিদের উন্নয়ন করাই হচ্ছে সংস্থার প্রধান লক্ষ্য।শুরু থেকে আজ পর্যন্ত সদস্যদের সুখে-দূঃখে,বিপদে-আপদে ও বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে তাদের সমস্যা সমাধান করছে।সংস্থার পক্ষ থেকে প্রতিবন্ধিদের বিভিন্ন প্রশিক্ষনের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে গড়ে তুলছে।সদস্যদের মাঝে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন প্রতিবন্ধি সামগ্রী বিতরন করে যাচ্ছে অগ্রদূত প্রতিবন্ধি উন্নয়ন সংস্থা।৯০ জন প্রতিবন্ধি সদস্যের তালিকায় মহিলা প্রতিবন্ধি সদস্য রয়েছে ৩৬ জন,এবং ১০ জন ছাত্র/ছাত্রী প্রতিবন্দি রয়েছে।মহিলাদের সেলাই প্রশিক্ষন দেয়া হয়,এবং প্রতিবন্ধি ছাত্র/ছাত্রীদের বিভিন্ন শিক্ষা সামগ্রী প্রদান করা হয়।সংস্থার সকল সদস্যদের ভোট পক্রিয়ার মাধ্যমে ২০১৩ইং এর জানুয়ারীতে একটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।এই নির্বাচনে জনাব মোঃ কামাল উদ্দিন সভাপতি ও জনাব মোঃ আরিফুর রহমান সেক্রেটারী নির্বাচিত হয়।উক্ত সভায় ৭ সদস্য বিশিষ্ট্য পরিচালনা কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত পরিচালনা কমিটি প্রতি মাসে সকল সদস্যদের নিয়ে মতবিনিময় সভা এবং ৩ মাস পরপর সাধারন সভার আয়োজন করে থাকে।এই কমিটির পরিচালনায় নতুন ভাবে সকল দরিদ্র সদস্যদের একত্রিত করে সঞ্চয় করার মানসিকতা তৈরীর লক্ষ্যে একটি সমিতি গঠন করে।এই সমিতি থেকে প্রতি সপ্তাহে সদস্য প্রতি  ২ টাকা সংস্থার কল্যান ফান্ডে জমা হয়।এছাড়া বিভিন্ন ব্যাক্তি,প্রতিষ্ঠান ও বিভিন অনুদানের অর্থগুলো এই ফান্ডে জমা হয়।এই ফান্ড থেকে দরিদ্র্য সদস্যদের বিপদে সাহায্য করে যাচ্ছে।এই সংস্থার পক্ষথেকে বিভিন্ন জনকে হুইল চেয়ার,ট্রাই সাইকেল,সাদাছড়ি,বিভিন্ন প্রতিবন্ধি সামগ্রী ও ঈদ সামগ্রী বিতরন করা হয়।এছাড়া এলাকার সমাজসেবক মেজর (অবঃ) মোহাম্মদ মোস্তফা সাহেবের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় রোটারী ক্লাব অব চিটাগাং সাউথ এর অর্থায়নে চক্ষু শিবির,এবং বিনামূল্যে খতনা ক্যাম্পের ব্যাবস্থা করেন,এবং তিনি নিজেস্ব অর্থায়নে এলাকার মহিলাদের সেলই প্রশিক্ষনের ব্যাবস্থা করেন।সংস্থার পক্ষথেকে জানানো হয়,৯০ জন প্রতিবন্ধি সদস্যের বেশির ভাগই সরকার থেকে কোনরুপ সাহায্য সহযোগিতা পায়না,এমনকি প্রতিবন্ধিদের যে সার্টিফিকেট দেওয়ার কথা সেই  সার্টিফিকেটটি পর্যন্ত অনেকেই পায়নি।এই নিয়ে প্রশাসনের নিকট বারবার আবেদন করা হয়।প্রতিবন্ধিদের জন্য বরাদ্দকৃত সাহয্যের ব্যাপারে ১০ নং ইউপি চেয়ারম্যান জনাব আবু তাহের এর জানান,বর্তমান অর্থ বছরে প্রতিবন্ধিদের জন্য ২০০০০/- টাকা বরাদ্ধ করা হয়েছে।সংস্থার সভাপতি জনাব মোঃ কামাল উদ্দিন প্রতিবন্ধিদের উন্নয়নের স্বার্থে,সেবা করার লক্ষ্যে প্রশাসন,বিত্তবান লোক ও সর্বস্তরের জনগনকে এগিয়ে আসার আহব্বান জানান।

Leave a Reply