বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

সমাবেশ করতে দেয়নি পুলিশ, গণজাগরণের ৭ কর্মী আটক

image_69242.gono-0020140404001636

 

শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের একটি প্রতিবাদ সভায় পুলিশ হামলা চালিয়ে অন্তত ছয় জনকে আটক করেছে। ব্যাপক লাঠিপেটায় আহত হয়েছেন কয়েকজন প্রতিবাদকারী।
আহতদের মধ্যে মাহমুদুল হক মুন্সী নামে একজনকে আটক করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আটককৃত অন্যরা হলেন, সোহাগ, ধীমান, জয় ও টিটু।  এছাড়া আমরা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড কাউন্সিলের সভাপতি মেহেদী হাসান এনাম ও কর্মী ইমনকে আটক করে পুলিশ
।  শুক্রবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটে।
তবে এসময় গণজাগরণ মঞ্চের আহ্বায়ক ইমরান এইচ সরকারকেও পুলিশ টানা হেঁচড়া করে। তবে শেষপর্যন্ত তাকে আটক করা হয়নি। বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের হামলায় গণজাগরণ মঞ্চের কয়েক কর্মী আহত হওয়ার প্রতিবাদেই শুক্রবার এই বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দেওয়া হয়। পুলিশ এই সমাবেশে বাধা দিলে দুই পক্ষ মারমুখী হয়ে ওঠে। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ অভিযান চালায়।

এর আগে শুক্রবার বিকেল ৪টায় সমাবেশ করতে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীরা ভীর কিন্তু সাড়ে তিনটা থেকে লোকজন জড়ো হতে শুরু করলে পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এর এক পর্যায়ে পুলিশ সাঁজোয়া যান নিয়ে এসে তাদেরকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে।

এ ব্যাপারে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, সমাবেশ প্রশাসনের কোনো অনুমতি না থাকায় তাদের সমাবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না। তিনি বলেন,  মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড নামের একটি সংগঠন শুক্রবার বিকেলে শাহবাগে সমাবেশের জন্য অনুমতি চায়। এদিকে গণজাগরণ মঞ্চও একই স্থানে সমাবেশের অনুমতি  চাইলে কোনো দলকেই অনুমতি দেওয়া হয়নি।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে গণজাগরণ মঞ্চের কর্মীদের ওপর হামলা চালায় ছাত্রলীগ ও যুবলীগ কর্মীরা। এ ঘটনার প্রতিবাদে শুক্রবার প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দেয় গণজাগরণ মঞ্চ।

 

উৎস- কালেরকন্ঠ