শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মির্জা ফখরুল গ্রেফতার, খালেদার নিন্দা

image-1_200601
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে থেকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। গ্রেফতারের পর তাকে মিন্টু রোডের ডিবি কার্যালয়ে নেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। এছাড়া ফখরুলকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে রংপুর বিভাগে হরতাল ডেকেছে বিএনপি। সোমবার প্রেস ক্লাবে পেশাজীবীদের সম্মেলনে যোগ দিতে এসে বাধার মুখে পড়ে অবস্থান করছিলেন। প্রায় ২৪ ঘন্টা অবস্থান শেষে মঙ্গলবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলন করে বের হওয়ার সময় বিকেল সোয়া চারটায় তাকে গ্রেফতার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিকাল পৌনে ৪টার দিকে সংবাদ সম্মেলন শেষে ফখরুল নিজের গাড়িতে চড়ে প্রেস ক্লাব থেকে বেরিয়ে যাচ্ছিলেন। প্রধান ফটকে পুলিশ তার গাড়িটি আটকে দেয়। বেশ কিছুক্ষণ ফটকে আটকে রাখার এক পর্যায়ে কয়েকজন পুলিশ সদস্য বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবের গাড়িতেই উঠে পড়েন। এরপর সোয়া ৪টার দিকে গাড়িটি মিন্টো রোডে গোয়েন্দা পুলিশের কার্যালয়ের দিকে রওনা হয়। ফখরুলের গাড়ি নিয়ে যাওয়ার সামনে ছিল ডিবির মাইক্রোবাসটি, পেছন পেছন যায় প্রিজন ভ্যান ও পুলিশ ভ্যানটি।

 ডিএমপির উপ-কমিশনার (মিডিয়া উইং) মাসুদুর রহমান জানিয়েছেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বিরুদ্ধে অনেক মামলা রয়েছে। আমার জানা মতে, ৬০টিরও বেশি মামলা রয়েছে। কোন মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তা সুনির্দিষ্টভাবে বলা যাচ্ছে না। আদালতে নেওয়ার পর বিষয়টি স্পষ্ট হবে।’তিনি আরো জানান, বুধবার আদালতে নিয়ে যাওয়া হবে। বর্তমানে তাকে ডিবি কার্যালয়ে রাখা হয়েছে।
এর আগে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বিএনপি নেতাকর্মীদের দলের চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণতন্ত্রের সংগ্রামে ঝাপিয়ে পড়ার আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, দেশে সবচেয়ে বড় সংকট উপস্থিত হয়েছে। সংগ্রামের বিনিময়ে অর্জিত জনগণের ভোটের অধিকার এবং মানুষের বিচার পাবার অধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে। সে অধিকার ফিরে পেতে তিনি সবাইকে আন্দোলনে ঝাপিয়ে পড়ার আহবান জানান।এদিকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে গ্রেফতারের ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে এক বিবৃতি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘অন্যায়ভাবে’ মির্জা ফখরুলকে আটক করা হয়েছে। সরকার দেশব্যাপী ‘গ্রেফতারি অভিযানের মহোৎসবে’ মেতে উঠেছে।
 তিনি বলেন, ‘আমাকে আমার রাজনৈতিক কার্যালয়ে অবরুদ্ধ রেখে বর্তমান অবৈধ ফ্যাসিস্ট সরকার দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবকে গ্রেফতারসহ দেশব্যাপী একই কায়দায় গ্রেফতারি অভিযানের মহোৎসবে মেতে উঠেছে।’কেবল বিরোধী দলের নেতাকর্মীই নয় বরং সাধারণ মানুষও এখন পুলিশি আতঙ্কে দিনাতিপাত করছে- এমন অভিযোগ করে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া বলেন, ‘বর্তমান রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিতদের প্রতি জনগণের ন্যূনতম সমর্থন নেই বলেই তারা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে এবং রাষ্ট্রক্ষমতার অপব্যবহার করে জনগণের ওপর নির্যাতন নিপীড়ণের মাত্রা বহুগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে। আমি দেশের জনগণকে ভোটারবিহীন অবৈধ সরকারের সকল অগণতান্ত্রিক কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।