বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

৫ জানুয়ারির পর ১৬ কোটি মানুষ ক্ষমতাহীন হয়ে গেছে

dr._kamal_24539_13155

সংবিধান প্রণেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ৫ জানুয়ারির পর ১৬ কোটি মানুষ ক্ষমতাহীন হয়ে গেছে। নারায়ণগঞ্জবাসীর ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনে মানুষের ঘুম ভাঙ্গিয়েছে। শুধু নারায়ণগঞ্জ নয় দেশবাসীর ক্ষমতা ফিরে পাবার লড়াই চলছে। নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের উপনির্বাচন এই লড়াই বেগবান করবে। এ লড়াইয়ে বিজয় নিশ্চিত করতে হবে আমাদের।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সেমিনার রুমে ‘নির্বাচনঃ ডেডলাইন নারায়ণগঞ্জ’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে ড. কামাল হোসেন এ কথা বলেন।

নাগরিক ঐক্য আয়োজিত এ গোলটেবিলে সভাপতিত্ব করেন নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

আলোচনা করেন সিপিবি নেতা হায়দার আকবর খান রনো, বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান ভুইয়া, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, আইনের অধ্যাপক আসিফ নজরুল, কলামিষ্ট আবু সায়িদ খান, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, সুজন সমন্বয়কারী দিলীপ কুমার সরকার প্রমুখ।

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, নারায়ণগঞ্জ উপ-নির্বাচনী প্রচারণায় পুলিশের বাধা ও প্রতিপক্ষের হামলার ঘটনা মানুষের মনে নানা উদ্বেগ-উত্কণ্ঠা দেখা দিয়েছে। ভোট শান্তিপূর্ণভাবে হতে পারবে কিনা, নির্বাচন কর্মকর্তারা নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করবেন কিনা, ভোট কেন্দ্রে স্বাভাবিক পরিস্থিতি বজায় থাকবে কিনা, মানুষের মনে এমন নানা প্রশ্নের সৃষ্ঠি হয়েছে।

তিনি বলেন নারায়াণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে জনগণের বিজয় হয়েছিল বলে ত্বকী হত্যার বিচার দাবিতে মানুষ ফুঁসে উঠেছিল। একইভাবে গত ২৮ এপ্রিল নারায়াণগঞ্জের ৭ নাগরিকের অপহরণ ও খুনের ঘটনার মধ্যেই নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন শূন্য হয়। এ অবস্থায় সন্ত্রাস বিরোধী আন্দোলনে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে গডফাদার পরিবারকে মোকাবিলার সদ্ধিান্ত নেওয়ার আহবান জানান তিনি।

নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এস. এম. আকরাম বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সন্ত্রাস, রাহাজানি, খুন-গুম, চাঁদাবাজী, ছিনতাই এর জ্বালায় নারায়ণগঞ্জবাসী হাঁপিয়ে উঠেছে। মানুষ এ অবস্থা থেকে মুক্তি চায়। কিন্তু নারায়ণগঞ্জেও সমপ্রতি অনুষ্ঠিত বরিশাল-৫ আসনের উপ নির্বাচনের মত কারচুপির নির্বাচন হবে কিনা সেটা কেউ জানে না।