মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

সৌদি আরবে নতুন আইনে নাস্তিকদের সন্ত্রাসী ঘোষণা

image_68518.soudi arabia
সৌদি আরব এক নতুন আইনে নাস্তিকদের সন্ত্রাসী ঘোষণা করেছে। মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের (এইচআরডাব্লিউ) এক প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে যুক্তরাজ্যের দৈনিক দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের খবরে এ তথ্য জানানো হয়।এইচআরডাব্লিউ জানায়, নতুন রাজকীয় ডিক্রিগুলো জারি করা হয়েছে সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায়। এর মাধ্যমে সৌদি বাদশাহ বল প্রয়োগ করে সব ধরনের রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী ও প্রতিবাদ বন্ধ করতে চাইছেন।
মানবাধিকার সংস্থাটির প্রতিবেদনে জানানো হয়, নতুন সিরিজ আইনে সিরিয়ায় গৃহযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী সৌদি নাগরিকদের (যারা রাজতন্ত্র উচ্ছেদের প্রশিক্ষণ নিয়েছে) বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার বিশদ বিধান রাখা হয়েছে। বাদশাহ আবদুল্লাহর জারি করা ৪৪ নম্বর ডিক্রিতে ‘সৌদি আরবের বাইরে কোনো শত্রুতায়’ অংশগ্রহণ করলে তিন থেকে ২০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড ভোগ করতে হবে।নতুন জারি করা একটি বিধানের এক অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, কোনোভাবে নাস্তিক্যবাদী চিন্তা প্রকাশ করলে কিংবা ইসলাম ধর্মের মৌলিক কোনো বিধান (যার ওপর ভিত্তি করে সৌদি রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত) নিয়ে প্রশ্ন তোলা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড হিসেবে বিবেচিত হবে।রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, সৌদি আরব থেকে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধে অংশগ্রহণ করতে সে দেশে পাড়ি দিয়েছিল কয়েক লাখ সৌদি নাগরিক। দেশে ফিরে তারাই যাতে রাজতন্ত্র উৎখাত করতে সক্রিয় ভূমিকা না রাখতে পারে, সে কথা মাথায় রেখেই এই নয়া আইন জারি করেছেন রাজা। বিষয়টি মাথায় রেখেই দেশে ‘রয়্যাল ডিক্রি ৪৪’ জারি করা হয়েছে, যে আইন অনুসারে রাজ্যসীমার বাইরে কোথাও কোনো হিংসাত্মক কাজকর্মে জড়িয়ে পড়লে তিন থেকে কুড়ি বছরের হাজতবাস হতে পারে।প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসেই মুসলিম ব্রাদারহুডসহ বেশ কিছু ধর্মীয় সংগঠনকে ‘নাশকতামূলক সংগঠন’-এর তকমা দিয়েছে সৌদি সরকার। রাজা আবদুল্লার এই পদক্ষেপে মানবাধিকার প্রশ্ন হোঁচট খেতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ।