শুক্রবার, ১৮ জুন ২০২১, ৪ আষাঢ় ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

রেলমন্ত্রীর গায়ে হলুদ হলো, শুক্রবার বিয়ে

image-2_166183
গায়ে সোনালী পাঞ্জাবি। গলায় ঝুলছে সোনালী জরির কাজ করা লাল উত্তরীয়। এ সাজেই আজ গায়ে হলুদ মাখলেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। অপরদিকে কনে হনুফা আক্তার রিক্তা হাতে মেহেদি রাঙিয়ে সেজেছিলেন বধু সাজে। উপস্থিত আমন্ত্রিত অতিথিদের কেউ মুখে হলুদ দিয়ে আর্শিবাদ করছেন দুই জনকেই।

বুধবার দুপুরে ঢাকার শেরেবাংলা নগরের খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে ৮ ফুট দূরুত্বে পৃথক স্টেজ করে তাদের দুই জনের গায়ের হলুদ মাখিয়ে দেন শুভাকাঙ্খীরা।সাংবাদিকদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের এক পর্যায়ে মন্ত্রী বললেন, ‘আমি নেত্রীর (শেখ হাসিনা) কাছে গতকালও দোয়া নিয়ে এসেছি। তিনি আমাকে দোয়া করেছেন যাতে বিয়ের সব অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে হয়।’সাংবাদিকসহ উৎসুক অতিথিরা তার ছবি নিতে গেলে রেলমন্ত্রী কিছুটা হেসে বলেন, ‘আমার ছবি পড়ে তুলেন, যাকে দেখার জন্য আপনার এতদিন অপেক্ষায় ছিলেন তার ( কনে) ছবি বেশি বেশি তুলেন’। এ সময় বর কনে একে অপরের দিকে তাকিয়ে হাসছিলেন। এরপর একে একে শুরু হয়  বর কনে’কে হলুদ দেয়ার পালা।বিয়ের অনুভূতি জানাতে গিয়ে রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, সঠিক সময়ে বিয়ে করলে যে উদ্দীপনা পেতাম শেষ বয়সে বিয়ে আরো বেশী উদ্দীপনা পাচ্ছি। তিনি  বলেন, দেশের মানুষ আমাকে ভালোবাসে তাই আমার এই বিবাহে তারা সবাই বাপক উৎসাহ উদ্দীপনা পেয়েছেন। তিনি সবার কাছে দাম্পত্য সুখময় দাম্পত্য জীবনের জন্য দোয়া কামনা করেন।এদিকে কনে হনুফা আক্তার রিক্তা নিজের প্রতিক্রিয়ার আজীবন মুজিবের পাশে থাকার অঙ্গীকার করেছেন।শুক্রবার কুমিল্লায় কনের বাড়ির আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে। ৩১ অক্টোবর কনের বাবার বাড়ি এ দিন চান্দিনা উপজেলার গল্লাই ইউনিয়নের মীরাখলা গ্রামের মুন্সি বাড়িতে বরবেশে যাবেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতীয় সংসদ ভবনের ২ নম্বর এলইডি হলে অনুষ্ঠিত হবে বিবাহউত্তোর সংবর্ধনা। এতে মন্ত্রী-এমপিসহ সাড়ে তিন হাজার অতিথিকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেতা, জাতীয় সংসদের স্পিকার ও রাজনৈতিক দলের নেতারা শরিক হবেন বিয়েতে।