রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

রুনির ছোঁয়ায় স্বরূপে ম্যানইউ

1_130928
তবে কি নিজেদের ফিরে পেতে যাচ্ছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড? স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের বিদায়ের পর গত মৌসুমটা রেডডেভিলদের জন্য ছিল ভয়াবহ এক অভিজ্ঞতা। ডেভিড ময়েসের অধীনে শিরোপা দূরে থাক, জয়ের স্বাদই ভুলতে বসেছিল ম্যানইউ! নতুন ডাচ কোচ লুই ভ্যান গলের ছোঁয়ায় রাতারাতি যেন খোলনলচে পাল্টে গেছে ইংলিশ জায়ান্টদের। ম্যানইউ’র হটসিটে বসে প্রথম মিশনেই দলকে শিরোপা এনে দিলেন ভ্যান গল। যুক্তরাষ্ট্রে অনুষ্ঠিত আট দলের প্রাক-মৌসুম প্রীতি টুর্নামেন্টে ইন্টারন্যাশনাল চ্যাম্পিয়ন্স কাপে শেষ হাসি হেসেছে রেডডেভিলরা। বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার ভোরে অল-ইংলিশ ফাইনালে শুরুতে পিছিয়ে পড়েও চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলকে ৩-১ গোলে হারিয়েছে তারা।ভ্যান গলের অধীনে টানা পাঁচ ম্যাচ জিতে যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষ করল ম্যানইউ। এলএ গ্যালাক্সির বিপক্ষে বিধ্বংসী জয় দিয়ে সফর শুরু হয়েছিল। এরপর রোমা, ইন্টার মিলান ও রিয়াল মাদ্রিদকে হারিয়ে উঠে আসে ইন্টারন্যাশনাল কাপেরফাইনালে। সর্বশেষ অলরেডদের বিপক্ষে দুরন্ত এক জয়। নিঃসন্দেহে চনমনে আত্মবিশ্বাস নিয়েই নতুন মৌসুম শুরু করতে যাচ্ছেন রুনিরা।৫১ হাজার দর্শকে ঠাসা মিয়ামির সান লাইফ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ফাইনালের শুরুতেই এগিয়ে গিয়েছিল লিভারপুল। ১৪ মিনিটে ডি-বক্সের মধ্যে রাহিম স্টার্লিংকে আটকাতে গিয়ে ফাউল করে বসেন ম্যানইউ ডিফেন্ডার ফিল জোনস। পেনাল্টি থেকে দলকে এগিয়ে দেন লিভারপুল অধিনায়ক স্টিভেন জেরার্ড। প্রথমার্ধে লিভারপুলই ছিল চালকের আসনে। কিন্তু মনে রাখতে হবে ম্যানইউ’র কোচ এখন ভ্যান গল। বিশ্বকাপে যিনি পরিচিতি পেয়েছিলেন সেরা ট্যাকটিশিয়ান হিসেবে। ভ্যান গলের গোপন মন্ত্রে দ্বিতীয়ার্ধেই ম্যাচ পাল্টে গেল ভোজবাজির মতো। মাত্র দুই মিনিটেই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিলেন ওয়েন রুনি ও হুয়ান মাতা। ৫৫ মিনিটে হার্নান্দেজের ক্রস থেকে রুনির চোখ ধাঁধানো গোলে সমতা ফেরে ম্যাচে। দুই মিনিট পর ম্যানইউকে এগিয়ে দেন মাতা। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে বদলি হিসেবে নামা জেসে লিনগার্ডের অসাধারণ ভলিতে আবারও বল লিভারপুলের জালে। স্কোরলাইন ম্যানইউ ৩-১ লিভারপুল।ভ্যান গল কোচ হওয়ার পর প্রথমবারের মতো দলকে নেতৃত্ব দেয়া রুনি ম্যাচে আরেকটি গোল করেছিলেন। বল টাচলাইনের বাইরে থেকে ফিরে আসার পর রেফারিকে বোকা বানিয়ে করা রুনির সেই ভুতুড়ে গোলটি শেষ পর্যন্ত বাতিল হয়ে যায়। এনিয়ে বিতর্কের মেঘ জমলেও রুনির পারফরম্যান্সে মুগ্ধ ভ্যান গল বলেছেন, ‘টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার রুনির প্রাপ্য। দারুণ খেলেছে সে। সমর্থকদের আনন্দ দিতে পেরেছি আমরা। শিরোপা জেতার চেয়ে এটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ। লিভারপুলের বিপক্ষে জয় সব সময়ই বিশেষ কিছু। কিন্তু সোয়ানসির বিপক্ষে মৌসুমসূচক ম্যাচটাই হবে আসল পরীক্ষা।’কোচকে মুগ্ধ করে নেতৃত্বের দৌড়ে এগিয়ে যাওয়া রুনিও উচ্ছ্বসিত দলের পারফরম্যান্সে, ‘ম্যাচ ও টুর্নামেন্ট জেতা অবশ্যই দারুণ এক ব্যাপার। প্রাক-মৌসুমে আমরা কঠোর পরিশ্রম করেছি। প্রথমার্ধে লিভারপুল ভালো খেলেছে। বল নিয়ে দ্রুত আক্রমণে যেতে পারছিলাম না আমরা। জানতাম, ভুল শুধরে নিতে হবে। দ্বিতীয়ার্ধে সেটা আমরা পেরেছি এবং দারুণ খেলেছি। এই জয় আমাদের প্রাপ্য।