রবিবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২২, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বাসে অগ্নিসংযোগ

bus-fire-4_199994

 

রাজধানীর পুরানা পল্টনে নিউভিশন পরিবহনের যাত্রীবাহী একটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সন্ধ্যার পর রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ১৫টি গাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটে। যাত্রাবাড়ি এলাকায় ১৫ মিনিটের ব্যবধানে ৬টি যাত্রীবাহী বাসে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। শনির আখড়া, রায়ের বাগ, দনিয়া এলাকায় দুর্বত্তরা সন্ধ্যা সোয়া ছটা থেকে সাড়ে ছটার মধ্যে বাসে আগুন দেয়। একই সময়ে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা ্ও বাড্ডায় একটি বাস ্ও প্রাইভেট কারে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। সন্ধ্যা ৬টায় গুলিস্তান যাত্রী বাহী বাসে আগুন দেয়ার পর এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে।  সন্ধ্যা সাড়ে ছটার দিকে গুলশান-২ এলাকায় একটি যাত্রীবাহী বাসে ককটেল নিক্ষেপ করলে যাত্রীরা হুড়োহুড়ি করে নেমে দৌড় দেয়।উত্তরায় বিকেল ৫টায় স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতার কার্যালয় আগুন দেয়া হয়। একই সময়ে একে ট্ওায়ারের পেছনে আ্ওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনা ঘটেছে।পুরানা পল্টনে পৌনে দুইটায় বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, পুরানা পল্টনে বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইনান্স করপোরেশনের সামনে বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।পরে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।বাস চালক সুমন জানান, ৫/৬ জন দুর্বৃত্ত এসে বাস থামাতে বলেন। বাস থামালে তারা যাত্রীদের নামিয়ে বাসে ‍অগ্নিসংযোগ করে। পরে পুলিশ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ২ জনকে আটক করে।তবে বাস চালক সুমনের দাবি, আটককৃতরা ওই ঘটন‍ার সঙ্গে জড়িত নন।এদিকে রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোডে সুপ্রভাত নামে একটি বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রোববার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে সুপ্রভাত নামে ওই বাসে আগুন দেয় তারা। বাসটি গাজীপুর-গুলিস্তান রুটে চলাচল করত। ২০ দলীয় জোট নেত্রী ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ রাখার প্রতিবাদে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল।   এ সময় বাংলামোটর এলাকায় মিছিল থেকে  অর্ধশতাধিক গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। একই সঙ্গে মিছিল থেকে প্রায় দুই ডজন ককটেল বিস্ফোরণও ঘটানো হয়।   রোববার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজধানীর হাতিরপুল ছাত্রদল একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি বাংলামোটর এলাকায় পৌছে অন্তত ৫০টি যানবাহন ভাঙচুর করেছে।