মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মীরসরাইয়ে শ্মশান জবর দখলের প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ
চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সৎকারের স্থান শ্মশান দখল করে বহুতল ভবন নির্মাণের বিরুদ্ধে প্রতিকার চেয়ে সংবাদ সম্মেলনে অশ্রুসিক্ত নয়নে সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে একটি হিন্দু সম্প্রদায় পরিবার। শুক্রবার ২১ জুলাই সকাল ১০ টার সময় মীরসরাই প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন অশ্রুসজল নয়নে তাদের প্রতি আইনগত মানবিক সহযোগিতা প্রার্থনা করেন ভূক্তভোগিরা। ভুক্তভোগি রাজু কুমার মজুমদার লিখিত বক্তব্য পাঠ করে বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে আমাদের পূর্ব পুরুষদের মীরসরাই পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের মধ্যম মঘাদিয়া মৌজার, তফসিল জেএল নং ৭১, বিএস খতিয়ান নং ৫৩৬৭, বিএস দাগ নং ৫৫৯৪৪ দাগের অন্দর (শ্মশান সহ ) ৬৭ শতক জমি দখল করে প্রভাবশালী ব্যক্তিগণ যথাক্রমে, সামছুল আলম দিদার, জয়নাল আবেদিন সেলিম, দুই আলা উদ্দিন, রেজাউল করিম ফারুকী গং নামের সিন্ডিকেট । দখলকারীরা জোর পূর্বক সেখানে বহুতল ভবন নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছে। আমরা প্রশাসনের শরণাপন্ন হলে ও তারা আইন অমান্য করে আমাদের হুমকি দিয়ে সেখানে ভবন নির্মানের কাজ চালাচ্ছে। এই বিষয়ে আমরা প্রতিকার চেয়ে বিভিন্ন সময় আইনের আশ্রয় নিয়েও অদ্যাবদি কোন প্রকার প্রতিকার পাইনি। চট্টগ্রামের বিজ্ঞ অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট এর আদালতে মামলা নং ২১৯৭/১৪ দায়ের ও তদন্তনাধিন। কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় হল বিবাদীগন প্রভাবশালী ও অর্থের মালিক হওয়ায় আইনের শাসনের তোয়াক্কা না করে তাদের ভিন্ন ভিন্ন নামীয় ওয়েষ্টার্ণ টাওয়ার, আখতারুজ্ঝামান ভবন ও রেহানা ভবন নির্মাণের অবৈধ কার্যকম চালিয়ে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় আমি এবং আমার পরিবার আপনাদের লেখনির মাধ্যমে আমাদের পারিবারিক শ্মশানটি ফিরে পেতে চাই এবং আমাদের জীবনের নিরাপত্তার দাবীতে প্রশাসনের একান্ত সহযোগিতা কামনা করছি। এসময় কান্না জড়িত কণ্ঠে বৃদ্ধা বুলবুল রাণী মজুমদার বলেন, উক্ত শ্মশানে আমার পূর্ব পূরুষদের যথাক্রমে সন্তোষ কুমার সিংহ, কামিনী বালা সিংহ, পূর্ণ চন্দ্র সিংহ, শিউলী মজুমদার, কাজল রাণী সিংহ, মিনতি রাণী সিংহ সহ অন্তঃত ২০ জনকে সৎকার করা হয়েছে। বর্তমানে আমাদের পরিবারের কেউ মারা গেলে তাকে সৎকার করার আর কোন জায়গা নেই। আমরা ওই মরা লাশটা নিয়ে কোথায় গিয়ে দাঁড়াবো ? এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বুলবুলি রাণী মজুমদার, বাসুদেব, বিজয় চন্দ্র মজুমদার, সুমন দাস, সুমি রাণী, রতœা রাণী শীল, পূর্ণিমা রাণী দাস, পলাশ চন্দ্র, সুমন চন্দ্র পাল, বাবলু চন্দ্র পাল প্রমুখ।
উক্ত সংবাদ সম্মেলনে উত্থাপিত অভিযুক্তগনের মধ্যে সামছুল আলম দিদার এর কাছে উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমরা অভিযোগ উথ্থাপনকারীদের কোন প্রকার হুমকী ধমকি প্রদান করি নাই। গিয়াস উদ্দিন নামের জনৈক ব্যক্তি থেকে আমরা এই জমি ক্রয় সূত্রে মালিক। এই পর্যায়ের রায়ে আমরা বৈধ মালিক । তবে পূর্ববর্তি বিক্রেতাদের ক্ষেত্রে কোন প্রকার অনিয়ম থাকলে কিংবা আদালত আমাদের মালিকানা রায় বিরুদ্ধে কোন উদ্যোগ নিলে আমরা তা মেনে নিব।