শনিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মীরসরাইয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে দায়িত্বরত আনসার সদস্য নিহত


Warning: Trying to access array offset on value of type bool in /home/khabarica24/public_html/wp-content/themes/taslimnews/inc/template-tags.php on line 163

Abu Bakar, Mirsarai
নিজস্ব প্রতিনিধি ॥ মীরসরাইয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে অবরোধ-হরতালে দায়িত্বরত আনসার সদস্য নিহত হয়েছে। নিহত আনসার সদস্যের নাম আবু বক্কর (৫০)। ১৭ ফেব্র“য়ারী (মঙ্গলবার) ভোর সাড়ে ৫টায় এই দূর্ঘটনা ঘটে। তিনি (আবু বকর) বিএনপির নের্তৃতাধীন ২০ দলীয় জোটের চলমান হরতাল-অবরোধে নাশকতা প্রতিরোধে ঢাকা-চট্টগ্রাম রেললাইনের মীরসরাইয়ের হাদিফকিরহাটের ওয়াহেদপুর এলাকায় দায়িত্বরত ছিলেন।
জানা গেছে, রেললাইনে দায়িত্ব পালনকালে ভোরে আবু বক্কর রেল লাইনের ওপর ঘুমিয়ে পড়েছিলেন। এ সময় চট্টগ্রামগামী একটি শাটল উক্ত স্থান দিয়ে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে খন্ড-বিখন্ড হয়ে যায় তার দেহ। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে। নিহত আবু বক্কর মীরসরাই উপজেলার ১৫নং ওয়াহেদপুর ইউনিয়নের উত্তর ওয়াহেদপুর গ্রামের জানু মৌলভী বাড়ির মৃত আহম্মেদুর রহমানের পুত্র বলে পারিবারিক সূত্র নিশ্চিত করেছে। তার ২পুত্র ও ৪মেয়ে নিয়ে অভাবের সংসারে দিনাতিপাত করাকালীন মিরসরাই উপজেলা আনসার ও ভিডিপি থেকে তাকে দৈনিক ৩ শত ২০ টাকা হারে উক্ত স্থানে অবরোধ-হরতালে নাশকতা ঠেকাতে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো।
একই স্থানে দায়িত্বরত: নিহত আবু বক্করের অপর সহকর্মী (এপিসি) দিদারুল আলম জানান, রেল লাইনের উত্তর ওয়াহেদপুর এলাকায় আমার সাথে দায়িত্ব পালন করছিলেন আবু বক্কর, এরশাদ উল্লাহ ও আজিম উদ্দিন। দায়িত্ব পালনকালে মঙ্গলবার ভোররাতে শীতে শরীর অসুস্থ হওয়ায় রেল লাইনে ঘুমিয়ে পড়েছিলেন আবু বক্কর। এসময় রেল লাইন পরিদর্শন করতে আসা ফেনী থেকে চট্টগ্রামগামী একটি শাটল ট্রেন পেছন দিক থেকে আবু বক্করকে ধাক্কা দেয়। এতে তার শরীরে নিচের অংশ কাটা পড়ে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। পরে আমরা বিষয়টি রেলওয়ে কর্তৃপ, আনসার ভিডিপি ও উপজেলা প্রশাসনকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে আসেন।
এদিকে আনসার সদস্য আবু বক্করের মৃত্যুর খবর শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন আনসার বিডিপি চট্টগ্রাম রেঞ্জের পরিচালক নির্মলেন্দু বিশ্বাস, উপ-পরিচালক এ,এস আজাদ, মীরসরাই উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফজলে এলাহী অলি ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইমতিয়াজ এমকে ভূঁইয়া।