সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ৩ আষাঢ় ১৪৩১খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মীরসরাইয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে দফায় দফায় সংঘর্ষ, আহত ১০

মীরসরাই প্রতিনিধি ॥ মীরসরাইয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় অন্তঃত ১০ ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়েছে। গতকাল বুধবার মীরসরাই সদর ও হাদি ফকিরহাটে এ সংঘর্ষ হয়।

অবশেষে গতকাল বুধবার দুপুর ২টার পর মীরসরাই থানা পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয় দা, ছুরি, কিরিছ বহন করা ছাত্রলীগ কর্মীদের। কলেজে অধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত কয়েকদিন ধরে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চলে আসছে। দুই পক্ষই কলেজে দলবল নিয়ে মহড়া দিতে থাকে। গতকাল বুধবার দুই পক্ষ মুখোমুখি হলে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় গতকাল বুধবার মীরসরাই ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুজ্জামান রিফাত গ্রুপ ও মীরসরাই সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি জসীম উদ্দিন গ্রুপের পূর্ব বিরোধের জের ধরে তুমুল সংঘর্ষ বাঁধলে দু’পক্ষই মীরসরাই বাজারে সশস্ত্র মহড়া দিতে থাকলে জনমনে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে পরস্পর সংঘাতে জসীম উদ্দিন, মীরসরাই পৌর ছাত্রলীগের জাফর, সাইদুজ্জামান রিফাত, মোহাম্মদ পারভেজ, রনি আহত হয়। পুলিশ চিকিৎসাধীন অবস্থায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে মো.জসীমকে আটক করেছে। সংঘর্ষের খবর পেয়ে মীরসরাই থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

মীরসরাই কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাইদুজ্জামান রিফাত অভিযোগ করেন, মো.জসীম দলবল নিয়ে তার উপর হামলা চালায়। এ সময় কলেজ ছাত্রলীগের কর্মীরা তাদের ধাওয়া করলে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। পুলিশের হাতে আটক হওয়ার কারণে জসীম উদ্দিনের সাথে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এদিকে উপজেলার নিজামপুর এলাকায় ছাত্রলীগের দুপক্ষের উত্তেজনার জের ধরে আহত হয় অন্তত ৫ জন। মঙ্গলবার দুপুর ১টা থেকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে ছাত্রলীগের এক পক্ষের নেতাকর্মীরা। অবরোধকালীন প্রায় ৪০ মিনিট মহাসড়কে অবস্থান করে যান চলাচল বন্ধ রাখে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। এসময় মহাসড়কের দূরপাল্লার যাত্রীদের একে বৃষ্টিপাত, তার উপর দীর্ঘক্ষণ যানজটে আটকে থাকায় যথেষ্ট ভোগান্তি পোহাতে হয়।

জানা গেছে নিজামপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে অন্তর্কোন্দলের জের ধরে কলেজ ছাত্রলীগের (একাংশের) আহবায়ক সাইফুল ইসলাম নয়নের উপর হামলা করে উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মাঈনুর ইসলাম রানা সমর্থকরা। এর জের ধরে মঙ্গলবার দুপুর ১টা থেকে মহাসড়ক অবরোধ করে ৪০ মিনিট ধরে মহাসড়কে মিছিল ও সমাবেশ করতে থাকে। এক পর্যায়ে মীরসরাই থানা পুলিশ ফোর্স ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় ছাত্রলীগ কর্মী মেহেদী, যুবলীগ নেতা রনিসহ ৫ ছাত্রলীগ নেতাকর্মী আহত হয়।

এ বিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এমরান হোসেন সোহেল বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে ভুল বুঝাবুঝির কারণে অনাকাঙিক্ষত ঘটনা ঘটেছে। শীঘ্রই থানা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দসহ তাদের নিয়ে আলোচনায় বসে মীমাংসা করবো।

মীরসরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. শফিকুল ইসলাম জানান, ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় কেউ কোন অভিযোগ দেয়নি। এখন পরিস্থিতি শান্ত আছে। মো. জসীমকে আটকের কথা স্বীকার করেছেন তিনি।