বৃহস্পতিবার, ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৭ মাঘ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মানুষ হত্যাই বিএনপি-জামায়াতের কাজ : প্রধানমন্ত্রী

image_201555.pm_bangla

 

জঙ্গিবাদে যারা বিশ্বাস করে তাদের কোনো ধর্ম নেই, দেশ নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে রবিবার সকালে শিশু-কিশোর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, যারা জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করে তাদের কোনো ধর্ম নাই, দেশ নেই। জঙ্গিবাদটাই তাদের ধর্ম। ইসলামে জঙ্গিবাদের স্থান নাই। আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, যখন বিশ্ব ইজতেমা হয় তখন বিএনপি-জামায়াত হরতাল-অবরোধ অব্যাহত রাখে। ধর্মপ্রাণ মানুষদের ইজতেমায় আসতে বাধা দেওয়াই তাদের কাজ। কিসের আন্দোলন করছে তারা? এই জামায়াত-বিএনপি মিলেই এই কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাদের কাজই হলো মানুষ হত্যা করা। তারা ক্ষমতায় এসে সাধারণ মানুষকে তো মেরেছেই, গ্রেনেড মেরে আমাদের সংসদ সদস্যকেও হত্যা করেছে। এখন ক্ষমতায় না থাকলেও তাদের সে হত্যাযজ্ঞ চলছে। পেট্রল-ককটেল মেরে তারা মানুষ পুড়িয়ে মারছে। তিনি বলেন, ফিলিস্তিনে শিশু হত্যার প্রতিবাদ করেছিলাম। যারা এই দেশে ইসলামের নামে রাজনীতি করছে তারা কয়জন এটার প্রতিবাদ করেছে। এটাই দুঃখজনক এখানে কিছু মানুষ ধর্মের নাম ব্যবহার করে রাজনীতি করবে। মানুষকে বিভ্রান্ত করবে। বিএনপি-জামায়াত মানুষকে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে।বিএনপি-জামায়াত ইসলামের নামে নাশকতা ও মানুষ হত্যা চালিয়ে যাচ্ছে অভিযোগ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ যখন সারা বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল হয়ে উঠছে তখনই আগুন দিয়ে সম্পূর্ণ জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি জামায়াত। এটা দুর্ভাগ্যজনক। তারা বিশ্ব ইজতেমা ও ঈদ-ই-মিলাদুন্নবির সময়ও হরতাল-অবরোধ করে মানুষ হত্যা করেছে। এরা কীভাবে ইসলামে বিশ্বাস করে? এ দেশে জঙ্গিবাদের কোনো স্থান হবে না। অপরাধীদের অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি হতে হবে। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের সঙ্গে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই। কোনো ধর্মেরও সম্পর্ক নেই। জঙ্গিবাদীরা সন্ত্রাসী, সন্ত্রাসই তাদের ধর্ম। এ সন্ত্রাসীদের জায়গা বাংলাদেশের মাটিতে হবে না।শেখ হাসিনা বলেন, মুক্তিযুদ্ধচলাকালীন আমরা একই ঘটনা দেখেছি। মানুষ হত্যা করাসহ নানা ধরনের অপকর্ম করেছে ধর্মের নাম করে। যা সম্পূর্ণ ইসলাম ধর্মের পরিপন্থী। আজকেও আমরা দেখতে পাই একটি গোষ্ঠী ইসলাম ধর্মের নাম দিয়ে রাজনীতি করছে। বিএনপি ও তারা মিলে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারছে। ভূমি অফিস পোড়ানোর সমালোচনা্ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভূমি অফিস যারা পোড়াচ্ছে তাদের বাপ-দাদার কোনো জমির রেকর্ড থাকবে না। সব জমি বাজেয়াপ্ত করা হবে। সেই ব্যবস্থাই আমাদের নিতে হবে। মুরগি-মাছের কোনো কিছুই বাদ যায়নি আগুন থেকে। এটা কী ধরনের আন্দোলন?