রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

মাইলফলকে পৌঁছতে ভাগ্য সহায় ছিল না: সাকিব

image_151697.shakib-al-hasan

 

চট্টগ্রাম টেস্ট শুরুর আগে সাকিব আল হাসানের প্রয়োজন ছিল ৩টি উইকেট, কিন্তু নিতে পেরেছেন মাত্র একটি। তাই টেস্ট সিরিজে আড়াইশ রান এবং ২০ উইকেট নেওয়ার মাইলফলকে পৌঁছতে পারলেন না। এতে আফসোস নেই বাঁহাতি এই ক্রিকেটারের। তিনি মনে করছেন ভাগ্য সহায় ছিল না বলেই উইকেট পাওয়া হয়নি। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে সাকিব নানা প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন তারই চুম্বক অংশ পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল:

প্রশ্ন : দুই ইনিংস মিলে ৩ উইকেট পেলেন না, এ জন্য আফসোস হচ্ছে কিনা? সাকিব : না…। আফসোস কেনও থাকবে। প্রথম ২ টেস্টে যদি ১৭ উইকেট না পেতাম, যদি ১০টা হত। ভাগ্যের সহায়তা দরকার হয়। এটা ছিল না; এই টেস্টে হয়নি। এটা নিয়ে কোনো আফসোস নেই। হলে ভাল লাগত। হয়নি সমস্যা নেই।

প্রশ্ন : সিরিজ সেরার পুরস্কার আপনাকে কতটা অনুপ্রাণিত করে? সাকিব : ভাল লাগে। অবশ্যই একটা ভাল অনুভূতি থাকে মনের ভেতরে। কমপেক্ষ দলের জন্য অবদান রাখতে পেরেছি। ওটারই স্বীকৃতি।

প্রশ্ন : এই সিরিজে নিজের পারফরম্যান্স কিভাবে মূল্যায়ন করবেন? সাকিব : আসলে ওইভাবে কখনই বিশ্লেষণ করিনি। হয়তোবা আরও ভাল করতে পারতাম.. ব্যাটিংয়ে আর একটু ভাল করতে পারতাম। তবে আমি সন্তুষ্ট।

প্রশ্ন : ক্যামবেক করার সিরিজ ছিল, কোন টার্গেট ছিল কিনা? সাকিব : ওরকম কখনই কোনো লক্ষ্য থাকে না আমার। একেক সময় একেক জনের একেক লক্ষ্য তৈরি হয়। আগেও যেটা বলেছি দলের জন্য অবদান রাখা। এটা করতে পারলে খুশি লাগে। আর ভাল খেললে সব থেকে বড় জিনিস যেটা হচ্ছে নিজের কাছে ভাল লাগে। যখন আমি ভাল খেলতে পারি না কিংবা দলের জন্য অবদান রাখতে পারি না তখন নিজের কাছে খারাপ লাগে। আমি ভাল খেলতে পারলাম না। তখন একটা তাড়া থাকে। ভাল খেললে ভাল লাগে। মন খুশি থাকলে তো সবই খুশি।

প্রশ্ন : ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ খেলতে পারলে আরও রেকর্ড হত কিনা? সাকিব : কে জানে দেখা যেত এতো খারাপ করতাম যে এই সিরিজেই থাকতামই না।

প্রশ্ন : যখন পারফর্ম করেন তখনই স্পেশ্যাল কিছু মনে হয় কিনা? সাকিব : না, স্পেশাল না। তবে হ্যা, বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলাটা খুব স্পেশ্যাল। যেহেতু এই খেলাটা আমার পছন্দের , ভাল খেললে ভাল লাগে। এই কারনে খেলার মজাটা ওখানেই।