বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

বিপিএলে ম্যাচ-ফিক্সিং আশরাফুলদের আবেদনের শুনানি সেপ্টেম্বরে

140315em

ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শিহাব জিশান চৌধুরীকে আজীবন নিষিদ্ধ করার জন্য আপিল করেছে বিসিবি ও আকসু। এদিকে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে আপিল করেছেন শিহাব জিশান চৌধুরী। মোহাম্মদ আশরাফুল ও শ্রীলংকান ব্যাটসম্যান কৌশাল লোকুয়ারাচ্চি নিজেদের শাস্তি কমানোর জন্য আপিল করেছেন ডিসিপ্লিনারি কমিটির চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি মোহাম্মদ আবদুর রশিদের কাছে। কাল ছিল প্রাথমিক শুনানির দিন। এদিন কিভাবে, কবে এবং কোন প্রক্রিয়ায় শুনানি হবে এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। সবার আবেদন শুনানি গ্রহণ করা হয়েছে বুধবার। ৮-১১ সেপ্টেম্বর চার দিন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন সাবেক বিচারপতি আবদুর রশিদ। চার দিনের শুনানির পর রায় দেবেন ডিসিপ্লিনারি কমিটির চেয়ারম্যান।বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের দ্বিতীয় আসরে ম্যাচ-ফিক্সিংয়ের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছেন মোট চারজন। ঢাকায় গুলশান-১-এ বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) গঠিত অস্থায়ী কার্যালয়ে আপিলের কার্যক্রম চলছে।আকসুর তদন্তে যারা অভিযুক্ত হয়েছিলেন, পরে ট্রাইব্যুনালের রায়ে তাদের অনেকেই নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছেন। বিসিবি ও আইসিসি এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেছে। ফলে নির্দোষ প্রমাণিত ক্রিকেটার মাহবুবুল আলম রবিন ও মোশাররফ হোসেন রুবেলদের আবার তাদের আইনজীবীর সাহায্য নিতে হচ্ছে।কাল মোহাম্মদ আশরাফুলের আইনজীবী খালেদ হামিদ চৌধুরী বলেন, আজ (বুধবার) কিছু প্রাথমিক ইস্যু নিয়ে শুনানি হয়েছে। এটা গুরুত্বপূর্ণ কিছু না। মূল শুনানি শুরু হবে আগামী মাসের ৮ তারিখে। এখানে একটি আপিল হয়েছে, যারা নির্দোষ হয়েছেন তাদের বিরুদ্ধে। আবার আমরা যেমন আপিল করেছি মোহাম্মদ আশরাফুলের সাজা কমানোর জন্য। সব আপিলের শুনানি একই সঙ্গে হবে। তিনি বলেন, বিসিবি ও আকসু আপিল করেছে শিহাব চৌধুরীর বিরুদ্ধে যে ১০ বছরের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে সেটা আজীবনের জন্য করা হোক। কৌশাল লোকুয়ারাচ্চি ও মোহাম্মদ আশরাফুল আপিল করেছেন শাস্তি কমানোর জন্য। হামিদ চৌধুরী বলেন, আশরাফুলের ব্যাপারে আমাদের আপিল হল, তাকে যে আট বছর নিষিদ্ধ করা হয়েছে তা কমানোর জন্য। যেহেতু আকসুকে সাহায্য করেছেন আশরাফুল। আমরা চাইব যতটুকু কমানো যায় সেটা করা হোক। মাননীয় চেয়ারম্যান যেটা করবেন সেটাই মেনে নিতে হবে।এদিকে সেলিম চৌধুরী, শিহাব চৌধুরী, মাহবুবুল আলম রবিন, মোশাররফ হোসেন রুবলের আইনজীবী নওরোজ এমআর চৌধুরী বলেন, শিহাব চৌধুরীর পক্ষে আমরা আপিল করেছি। তাকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। আমরা তাকে নির্দোষ প্রমাণের জন্য আপিল করেছি। তিনি বলেন, বিসিবি ও আকসু আপিল করেছে যারা খালাস পেয়েছিলেন তাদের বিরুদ্ধে। আমার তিনজন মক্কেল আছেন সেলিম চৌধুরী, মোশাররফ হোসেন ও মাহবুবুল আলম রবিন। সেক্ষেত্রে তাদের পক্ষে উত্তরদাতা হিসেবেও এসেছি। আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করা হয়েছে আজ (বুধবার)। তিনি বলেন, শুনানি কিভাবে হবে সেটা ঠিক করা হয়েছে। আপিলের শুনানিতে নিজে উপস্থিত থেকে বা তার আইনজীবী করতে পারবেন।বিসিবি ও আইসিসির আইনজীবী মোদ্দাসির হোসেন বলেন, আজ আপিল শুনানির জন্য গৃহীত হয়েছে। এর বেশি আমি কিছু বলতে পারব না। বিপিএল ম্যাচ-ফিক্সিংয়ের জন্য বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুলকে আট বছর নিষিদ্ধ করেন ট্রাইব্যুনাল। এছাড়া ১০ লাখ টাকা জরিমানাও করা হয় তাকে। শিহাব চৌধুরীকে ১০ বছরের জন্য সব ধরনের ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ড থেকে নিষিদ্ধ করা হয়। সঙ্গে ২০ লাখ টাকা জরিমানা। এছাড়া নিউজিল্যান্ড ব্যাটসম্যান লু ভিনসেন্টকে তিন বছর এবং শ্রীলংকান ব্যাটসম্যান কৌশাল লোকুয়ারাচ্চিকে ১৮ মাস নিষিদ্ধ করেন ট্রাইব্যুনাল। লু ভিনসেন্ট সাজার বিরুদ্ধে আপিল করেননি। এর আগে আকসুর অভিযুক্তদের মধ্যে নির্দোষ প্রমাণিত হন ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্সের মালিক সেলিম চৌধুরী, সিইও গৌরব রাওয়াত, মোহাম্মদ রফিক, ক্রিকেটার মোশাররফ হোসেন রুবেল, মাহবুবুল আলম রবিন এবং ড্যারেন স্টিভেন্স।