বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

বাংলাদেশকে টপকে পোশাক রপ্তানিতে বিশ্বের ২য় বৃহত্তম দেশ ভারত

Oven_Knit_Towel
বাংলাদেশকে টপকে বিশ্বের ২য় বৃহত্তম পোশাক রপ্তানিকারক দেশ হিসেবে স্থান করে নিয়েছে ভারত। ইউএন কমট্রেড থেকে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, ২০১৩ সালে বস্ত্র খাতে বিশ্ববাজারে ভারতের অংশীদারিত্ব এর আগের বছরের তুলনায় ১৭.৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে বিশ্বব্যাপী ভারতের পোশাক রপ্তানি হচ্ছে ৪০২০ কোটি ডলারের। চীন এখনও তাদের শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে। শুধু তা-ই নয়, ভারত এ খাতে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ, ইতালি ও জার্মানির মতো দেশকে। গতকাল এ খবর দিয়েছে মালয়েশিয়ার বার্তা সংস্থা বারনামা। এতে আরও বলা হয়, গত বছর বিশ্বব্যাপী বস্ত্রশিল্পে প্রবৃদ্ধির হার মাত্র ৪.৭ শতাংশ হলেও ভারতে প্রবৃদ্ধির হার ছিল ২৩ শতাংশ। বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ছিল ১৫.৪ শতাংশ। ২০১৩ সালে ভারতের বস্ত্রশিল্প খাতে রপ্তানি প্রবৃদ্ধি ছিল ২১.৮ শতাংশ। ভিয়েতনাম ব্যতীত শীর্ষ ৫ পোশাক রপ্তানিকারক দেশের মধ্যে যা সর্বোচ্চ। ভারতের অ্যাপারেল এক্সপোর্টস প্রোমশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বীরেন্দর উপল বলেন, আমাদের সব থেকে বড় বাজার যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে মন্দা ধীরে ধীরে কাটার পাশাপাশি বিশ্বব্যাপী বাজারে মন্থরগতি ও এর সঙ্গে মুদ্রাস্ফীতির মধ্য দিয়েও এখানে পৌঁছতে আমরা সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা করেছি। এক্ষেত্রে বাজার বহুমুখীকরণ ও উৎপাদনের ক্ষেত্রে সরকারের নীতি আমাদের সহায়ক হয়েছে। এতে আমরা নতুন নতুন বাজার খুঁজে পেয়েছি। এতে লাভ হয়েছে প্রচুর। আমাদের কাঁচামালের সুবিধা বৃদ্ধি পেয়েছে। আমরা শর্ত মানার ক্ষেত্রে দৃঢ় অবস্থান নিয়েছি। এতে আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ও ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছি আমরা। এতে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ক্রেতা ও আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড এখন পোশাক কেনা বা তৈরির জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে আছে। তারা এখান থেকে পোশাক তৈরিতে উদ্বুদ্ধ হয়ে উঠেছে। ইউএস কমট্রেডের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছর বিশ্বে ৭৭ হাজার ২০০ কোটি ডলারের তৈরী পোশাক রপ্তানি হয়েছে। এর ৫.২ শতাংশ ভারতের। ভারতের বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এটা সম্ভব হয়েছে এপারেল অ্যান্ড ক্লোথিং খাত ক্রমাগত বৃদ্ধি পাওয়ার জন্য। এছাড়াও ভারতে বস্ত্র রপ্তানি খাত গত বছর ৬ষ্ঠ স্থানে উঠে এসেছে- যা ২০১২ সালে ছিল অষ্টম অবস্থানে। ২০১২ সালে ভারতের পোশাক রপ্তানি হয়েছে ১২৯০ কোটি ডলার। এক বছরে তা বেড়ে ২০১৩ সালে হয়েছে ১৫৭০ কোটি ডলার। বিশ্বব্যাপী তৈরী পোশাক সরবরাহে ভিয়েতনাম বাদে শীর্ষ পাঁচটি সরবরাহকারীর মধ্যে ভারতীয় তৈরী পোশাক খাতে ২০১৩ সালে সর্বোচ্চ প্রবৃদ্ধি হয়েছে। এর পরিমাণ ২১.৮ শতাংশ।