রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

বরিশালে জাপা’র সাবেক নেতাকে হত্যা

নিখোঁজের ৫ দিন পর বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার জাতীয় পার্টির সাবেক সহসভাপতি কামাল হোসেন তালুকদার (৫৮)-এর লাশ সন্ধ্যানদীর চতলবাড়ী এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল সকালে তার ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করা হয়। বিকাল ৩টায় শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগে তার লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। গত ২রা ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ ছিলেন কামাল হোসেন তালুকদার। তিনি বাবুগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ইসরাত হোসেনের বড় ভাই। জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে তাকে হত্যা করে নদীতে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে দাবি পরিবারের। নিহত কামাল হোসেন তালুকদারের ছেলে মো. রাসেল তালুকদার জানান, ২রা ফেব্রুয়ারি পূর্ব রহমতপুরের নিজ বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হন কামাল হোসেন তালুকদার। মোটরসাইকেলটি তিনি উপজেলার রহমতপুরে মোটর মেকানিক মিন্টুর দোকানে মেরামত করতে দেন। এর পর থেকে তার কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি। তবে এ ব্যাপারে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোন অভিযোগ করা হয়নি বলে তিনি জানান। নিহতের মেজো ভাই বিএনপি নেতা ইসরাত হোসেন তালুকদার দাবি করেন, তার ভাই নিরীহ প্রকৃতির মানুষ ছিলেন। ব্যবসা কিংবা জমি নিয়ে কারও সঙ্গে তার বিরোধ ছিল না। উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে চার-পাঁচ দিন আগে তাকে হত্যা করে পানিতে ফেলে দেয়া হতে পারে। তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাত রয়েছে। কি কারণে হত্যা করা হয়েছে, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে তিনি জানান। তিনি আরও জানান, লাশের পকেটে ছয় হাজার ৯১ টাকা, ভোটার আইডি কার্ড, একটি মোবাইল সিমকার্ড ও জনতা ব্যাংকের একটি চেক বই পাওয়া গেছে। এদিকে জাপা নেতা খুন হওয়ার ঘটনায় দুর্বৃত্তদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবি জানিয়েছেন, বরিশাল-৩ আসনের এমপি এড. শেখ মো. টিপু সুলতান ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক এমপি গোলাম কিবরিয়া টিপু। অন্যদিকে, জাপা নেতা খুনের ঘটনার খবর পেয়ে নিহতের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে ছুটে আসেন উপজেলা চেয়ারম্যান সুলতান আহাম্মেদ খান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারজানা বিনতে ওহাব, উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সরদার খালেদ হোসেন স্বপন, আগরপুর ইউপি চেয়ারম্যান কামরুল ইসলাম হিমু, দেহেরগতি ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান বজলুর রহমান মাস্টার, মাধবপাশা ইউপি চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম খান, রহমতপুর ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা আনিচুর রহমান সিকদার, যুবমৈত্রীর কেন্দ্রীয় নেতা আতিকুর রহমান, জেলা ছাত্রমৈত্রীর সাধারণ সম্পাদক সুজন আহাম্মেদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের দেহেরগতি সেক্রেটারি আলহাজ মুহাম্মদ নূরউদ্দীন খান, জাপা নেতা সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান খালেদা ওহাব, জয়নাল সিকদার, বাবুল আকনসহ উপজেলার আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাতীয় পার্টির নেতারা।

 

উৎস- মানবজমিন