শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মজুদ বা মূল্য বৃদ্ধি করলে কঠোর ব্যবস্থা : বাণিজ্যমন্ত্রী

image_100293.tofayal_ahmed_awamileg_37425

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনী পণ্য মজুদ বা কৃত্রিমভাবে মূল্য বৃদ্ধির চেষ্টা করলে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
তিনি বলেন, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের সরবরাহ ও মূল্য স্বাভাবিক রাখত্যে সরকার সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছে। যারা নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের কৃত্রিম সংকট বা মূল্যবৃদ্ধির চেষ্টা করবেন, তাদের বিরুদ্ধে আইন মোতাবেক কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সরকার এবং সরকারের গোয়েন্দা বিভাগগুলো এ বিষয়ে তত্পর রয়েছে।
বুধবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এবং অধীনস্থ বিভিন্ন দপ্তর প্রধানদের সাথে রমজান উপলক্ষে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মজুদ, সরবরাহ এবং মূল্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা বৈঠকে তিনি এ সব কথা বলেন।
মন্ত্রী বলেন, পবিত্র রমজান মাসের প্রক্কালে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নিত্য পয়োজনীয় পণ্য আমদানিকারক, পাইকারী ও খুচড়া ব্যবসায়ীদের সাথে একাধিক বৈঠক করেছে। বর্তমানে চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি পণ্য মজুদ রয়েছে।
তিনি বলেন, রমজান মাসে ভোক্তাদের সুবিধার জন্য বেগুন, রসুন, শসা, কাঁচামরিচ, লেবু, ধনেপাতা আজ থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত রপ্তানি বন্ধ থাকবে। পবিত্র রমজান মাসে কোন ধরনের পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি কিংবা সরবরাহ কম হবে না।
মন্ত্রী বলেন, পেঁয়াজের সরবরাহ ও মূল্য যাতে স্বাভাবিক থাকে সেজন্য সরকার বিশষ ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। সরকার ইতিমধ্যে চাহিদা মোতাবেক পেঁয়াজ আমদানীর উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। জরুরি ভিত্তিতে ভারতের পাশাপাশি মিয়ানমার এবং তুরষ্ক থেকে পেঁয়াজ আমদানির প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে।
সভায় জানানো হয়, নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নেতৃত্বে ১৪টি টিম ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাজার মনিটরিং করছে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ঢাকাসহ সারা দেশের বাজারগুলোতে অভিযান পরিচালনা করছে। বাজারের প্রতিটি দোকানে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য তালিকা সহজে দর্শনীয় স্থানে টানিয়ে রাখার এবং পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের সময় পাকা রশিদ সরবরাহের নির্দেশ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।
প্রতিটি পণ্য নির্ধারিত খুচরা মূল্যে বিক্রয় করতে হবে। ইতিমধ্যে এবিষয়ে নির্দেশনা জারী করা হয়েছে। ঢাকাসহ সারা দেশে এ নির্দেশনা কার্যকর থাকবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর এবং প্রতিটি জেলা প্রশাসনের বাজার মনিটরিং টিম নিয়মিত ভাবে এ সকল মূল্য তালিকা তদারকি করবে। যে সকল প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি সরকারের এ সব নির্দেশনা অমান্য করবেন তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণসহ লাইসেন্স বা নিবন্ধন সাময়িকভাবে বাতিল এবং পণ্য বাজেয়াপ্ত করা হবে।
সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাহবুব আহমেদ, অতিরিক্ত সচিব এ টি এম মুর্তজা রেজা চৌধুরী, রপ্তানি উন্নয়ন বু্যরোর ভাইস চেয়ারম্যান শুভাশীষ বসু, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (মহাপরিচালক ডাব্লিউটিও) অমিতাভ চক্রবর্তী, অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মো. শওকত আলী ওয়ারেসি, অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) এস এম শওকত আলী, অতিরিক্ত সচিব (এফটিএ) মনোজ কুমার রায়, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. আবুল হোসেন মিঞা, টিসিবির চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সরোয়ার জাহান এবং জয়েন্ট স্টক কোম্পানীর রেজিস্ট্রার বিজন কুমার বৈশ্যসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে মন্ত্রী ঢাকার তেজগাঁও-এ যুক্তরাজ্য ভিত্তিক বিখ্যাত মান নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান ইন্টারটেকের অত্যাধুনিক ল্যাবের উদ্বোধন করেন। এটি এশিয়ার মধ্যে বৃহত্তম। এ ল্যাবে রেডিমেড গার্মেন্টস, ফুটওয়্যার ইত্যাদি পণ্যের মান পরীক্ষা করা হবে, যা বিশ্বের ক্রেতাদের কাছে গ্রহণযোগ্য হবে। এছাড়াও এখানে বৈদ্যুতিক, খাদ্য, খনিজ, কৃষিজপণ্যের মান পরীক্ষা করা যাবে।