বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নিজেদের বিচারের দাবীতে মীরসরাইতে অর্ধশত কৃষক থানায়


Warning: Trying to access array offset on value of type bool in /home/khabarica24/public_html/wp-content/themes/taslimnews/inc/template-tags.php on line 163

মীরসরাই উপজেলার আমবাড়ীয়া গ্রামের অর্ধশত কৃষক মিথ্যা মামলায় জর্জরিত হয়ে অবশেষে থানায় এসে নিজেদের বিচারদাবী করে জেলে পাঠাতে বলে নইলে প্রকৃত দোষীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানায়। সোমবার (৭ডিসেম্বর) দুপুরে মীরসরাই থানার সামনে এসে অজিত কুমার সিংহ নামে ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রতিবাদে ফেটে পড়ে গ্রামের এইসব সর্বসাধারন।

উপজেলার খৈয়াছরা ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার জয়নাল আবেদিন জানায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী অতিষ্ট হয়ে এই দাবী নিয়ে মীরসরাই থানায় আসে। এময় আমবাড়ীয়া গ্রামের কৃষক আবুল হাশেম (৫২) জানায় তার কুমড়ো ক্ষেতের সকল গাছ উপড়ে দিয়েছে, বাসু মিয়া (৪৩) বলে তার জমির মধ্যখান দিয়ে জোর করে আইল বানিয়ে নিতে চায় সে, সাহাবুদ্দিন (৫০) জানায় গত বছর গ্রামের ১০ বছরের শিশু সোহেল এর সাথে তার স্ত্রীর গায়ে ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে লঙ্কা কান্ড অতঃপর ৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা নিয়েছে এই অজিত কুমার সিংহ নামের ব্যক্তি। আদালতে গিয়ে দায়ের করে আসা অগনিত মিথ্যা মামলা টানতে গিয়ে অনেকেই আজ সহায়সম্বলহীন হতে বসেছে। সর্বশেষ গ্রামের কিছু মানুষের জমির উপর ও লোলুপ দৃষ্টি পড়েছে এই অজিত কুমার সিংহের। ইকবাল কুরাইশী (৩৮) এর জমির ধান রাতের আাঁধাওে কেটে নিয়ে উল্টো বলছে তার জমির ধান ওরা কেটে নিয়ে গেছে বলে চট্টগ্রাম কোর্টে ৮৭/১৪ সিআর মামলা দায়ের করে ৮জন গ্রামবাসীর বিরুদ্ধে। যার তদন্তের নোটিশ এলে মীরসরাই থানার এসআই আরিফ হোসেন এর তদন্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। এরমধ্যেই উক্ত অজিত সিংহ গ্রামের কৃষক আবুল কাশেম এর কুমড়ো ক্ষেতের ফুল আসা কুমড়ো, এছাড়া খাজা মিয়ার ধানের জমি ও তার দাবী করে মিথ্যা মামলা দেয়। অবশেষে এলাকাবাসী ক্ষীপ্ত হয়ে গতকাল অন্তঃত অর্ধশত কৃষক মীরসরাই থানায় এসে দাবী জানায় এই অজিতের হয়রানি থেকে গ্রামবাসীকে বাঁচাতে নয়তো গ্রামবাসীকে গ্রেফতার করে জেলে পাঠাতে। মীরসরাই থানার ওসি ইমতিয়াজ ভূঞার কাছে উক্ত দাবী জানালে ওসির পক্ষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বিষয়টি নিয়ে গ্রামবাসী ও স্থানীয় মেম্বার এবং জনপ্রতিনিধিদের আশ্বস্থ করলে সকলে ক্ষান্ত হয়ে দুপুর ১টায় বাড়ি ফিরে যায়।