রবিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীদের র‌্যাব-১১ ঘেরাওয়ের হুমকি

image_80972.narayanganj-lawyers

 

চন্দন কুমার সরকারসহ সাতজন হত্যাকাণ্ডের তদন্তে দৃশ্যমান অগ্রগতি না দেখলে আগামী রবিবার র‌্যাব-১১ এর কার্যালয় ঘেরাওয়ের হুমকি দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের আইনজীবীরা। অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডের সপ্তাহ পার হলেও কোনো আসামি গ্রেপ্তার না হওয়ার প্রেক্ষাপটে মঙ্গলবার বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে এই হুমকি দেন নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন। এই অপহরণ ও হত্যাকাণ্ডে র‌্যাব-১১ এর কয়েকজন কর্মকর্তার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে নিহত কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ইতিমধ্যে অভিযোগ তুলেছেন।নজরুলের সঙ্গে অপহৃত হয়েছিলেন নারায়ণগঞ্জের প্রবীণ আইনজীবী চন্দন সরকার। ধারণা করা হয়, গত ২৭ এপ্রিল নজরুলকে অপহরণের ঘটনা দেখে ফেলায় তাকেও তুলে নেওয়া হয়েছিল। চন্দন ও তার গাড়িচালকের লাশ তিন দিন পর শীতলক্ষ্যা নদীতে পাওয়া যায়। সেদিন নজরুল ও তার চার সহযোগীর হাত-পা বাঁধা লাশও নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। চন্দনসহ সাতজনকে হত্যার প্রতিবাদে গত রবিবার হরতাল পালনের পর প্রতিদিনই কর্মসূচি পালন করে আসছে জেলা আইনজীবী সমিতি।মঙ্গলবার নগরীর চাঁদমারী এলাকায় আদালত প্রাঙ্গণে বিক্ষোভ মিছিলের পর সমাবেশে আইনজীবী নেতা সাখাওয়াত এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবি জানান। শনিবারে মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার ও হত্যাকাণ্ড তদন্তে দৃশ্যমান আগ্রতি না হলে রবিবার র‌্যাব-১১ এর অফিস ঘেরাও করা হবে। চাঞ্চল্যকর এই অপহরণের পর র‌্যাব-১১ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল তারেক সাঈদ মাহমুদকে নারায়ণগঞ্জ থেকে সরিয়ে আনার পর তার বাহিনীতে ফেরত পাঠানো হয়েছে।লাশ উদ্ধারের পর নজরুলের শ্বশুর র‌্যাবের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুললে তা তদন্তে এই বাহিনী নিজেরা একটি কমিটি করেছে। র‌্যাবের বিরুদ্ধে অভিযোগসহ পুরো ঘটনা তদন্তে জনপ্রশাসনের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠনের নির্দেশ সোমবার দিয়েছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে এই মামলার তদন্তে র‌্যাবকে না রাখতেও বলেছে আদালত।অপহরণ ও হত্যা মামলার প্রধান আসামি কাউন্সিলর ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নূর হোসেন এখনো পলাতক। শহীদুলের অভিযোগ, নূর হোসেন ৬ কোটি টাকা দিয়ে র‌্যাবের মাধ্যমে তার জামাতা নজরুলকে হত্যা করিয়েছে।