সোমবার, ১৪ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

দুদক আইনে প্রস্তাবিত সংশোধনে টিআইবির উদ্বেগ

image_133454.tib-logo

 

দুদকের পাশাপাশি পুলিশকে অর্থ পাচার ও দুর্নীতির তদন্তের ক্ষমতা দিয়ে দুদক আইন ২০১৩ এর সংশোধনে সরকারের সাম্প্রতিক উদ্যোগের ব্যাপারে গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের পরিপ্রক্ষিতে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) উদ্বেগ প্রকাশ করেছে
একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট অংশীজন ও বিশেষজ্ঞদের সাথে পর্যাপ্ত পরামর্শ সাপেক্ষে দুদক আইনে এধরনের গুরুত্বপূর্ণ সংশোধনের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।
বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, গত বছরের নভেম্বরে দুদক আইনের সংশোধনীতে দুর্নীতির অপরাধের তফসিল পরিবর্তিত হওয়ায় মানিলন্ডারিং এর সাথে প্রতারণা, চাঁদাবাজি ও অবৈধ অস্ত্রের ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধের মামলা পরিচালনা ও তদন্ত কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়ে দুদকের ওপর একদিকে অতিরিক্ত অপ্রয়োজনীয় বোঝা অর্পিত হয়েছে, অন্যদিকে মানুষ অপরাধের প্রতিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
এ যুক্তিতে বা অন্য যে কারণেই হোক পুলিশের হাতে অর্থ পাচার ও দুর্নীতির তদন্তের এখতিয়ার অর্পিত হলে দুদকের মূল দায়িত্বে পুলিশের অনুপ্রবেশের মাধ্যমে স্বার্থের দ্বন্দ্বসহ দুদকের কাজে জটিলতা বাড়বে, স্থবিরতা সৃষ্টি হবে; দুদক আরো অকার্যকরতার ঝুঁকির সম্মুখীন হবে- জনমনে এরূপ নানা উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। তিনি বলেন, সরকারের নিজের প্রণীত জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এ প্রতিষ্ঠান দুদক আরো দুর্বল হয়ে পড়লে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারের অঙ্গীকার প্রশ্নবিদ্ধ হবে। অন্যদিকে সরকারের এমন কোনো পদক্ষেপ নেওয়া উচিত হবে না যার ফলে জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী কনভেনশনের সদস্য হিসেবে দুদককে শক্তিশালী ও কার্যকর করার আইনি ও প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামো নিশ্চিত করার অঙ্গীকারের অবমাননা হয়।