বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

টিয়ার গ্যাস, পিপার স্প্রে, লাঠিপেটা উপেক্ষা করে হংকংয়ে বিক্ষোভ

43718_tr

হংকংয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার দাবিতে দাঙ্গা পুলিশের লাঠিচার্জ, নিক্ষিপ্ত টিয়ার গ্যাস ও পিপার স্প্রে উপেক্ষা করে বিক্ষোভকারীরা বিক্ষোভ অব্যাহত রেখেছেন। ২০০৫ সালের পর প্রথমবারের মতো হংকংয়ে বিক্ষোভ দমনে টিয়ার শেল ব্যবহার করা হয়। এতে ক্ষুব্ধ হন বিক্ষোভকারীরা ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। সোমবার ভোররাতের বেশ আগে দাঙ্গা পুলিশ বিক্ষোভ দমনে বহু টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। বিক্ষোভকারীদের অনেকে মাথায় হেলমেট পরে, মুখে মাস্ক, সারা শরীরে প্লাস্টিক বা সুরক্ষা পোশাক পরে ও হাতে ছাতা নিয়ে দাঙ্গা পুলিশের ছোঁড়া পিপার স্প্রে থেকে নিজেদের রক্ষা করে। বিক্ষোভকারীদের কেউ কেউ নিরাপত্তা বাহিনীকে বাধা দিতে ব্যারিকেড নিয়ে যায়। পুলিশ পিছু হটার নির্দেশ দিলেও, তারা তা অমান্য করে। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে হাতাহাতির বেশ কিছু ঘটনা ঘটে। বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। হংকংয়ের ইতিহাসে এটাই সবচেয়ে বড় ধরনের বিক্ষোভের ঘটনা। ২ দশক আগে বৃটিশ উপনিবেশবাদ থেকে মুক্ত হলেও, চীন পুনরায় হংকংয়ের নিয়ন্ত্রণ নেয়। বিক্ষোভকারীদের একজন ৫৫ বছর বয়সী এক ট্যাক্সি চালক বলছিলেন, আজ যদি আমি প্রতিবাদ না করি, ভবিষ্যতে আমি নিজেকে ঘৃণা করবো। এদিকে অস্ট্রেলিয়া ও ইতালি হংকংয়ে ভ্রমণ সতর্কতা জারি করেছে এবং এ দেশ দুটির নাগরিকদের বিক্ষোভ এলাকা এড়িয়ে চলার অনুরোধ জানিয়েছে। বহু ছাত্র-ছাত্রী সক্রিয়ভাবে বিক্ষোভে অংশগ্রহণ করছে। ২০’র কোঠায় বয়স পিটার পুনের। তিনি বলছিলেন, আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাবো। কখনোই হাল ছাড়বো না আমরা। তবে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সাময়িকভাবে পিছু হটতে হতে পারে বলে জানান তিনি।