বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১, ২৮ আশ্বিন ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

ঝুঁকিপূর্ন ভবনে চলছে পাঠদান ঘটতে পারে প্রানঘাতী দূর্ঘটনা

ghf

মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন ঃ মীরসরাই উপজেলার ১০ নং মিঠানালা ইউনিয়নের অর্ন্তগত স্বনামধন্য মিঠানালা রামদয়াল বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষাকার্যক্রম চলছে ঝুঁকিপূর্ন ও পরিত্যাক্ত ভবনে। ঝুঁকিপূর্ন ভবনে মৃত্যুর শংকা নিয়ে ক্লাস করছে শিক্ষার্থীরা।নানা সংকটের কারনে পরিত্যাক্ত ভবনে পাঠদান অব্যাহত থাকায় শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা  নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।বিদ্যালয়ের পুরাতন ভবনটি নির্মান করা হয় ৫০ বছর পূর্বে।গত ৪ বছর আগে বিদ্যালয়ের পরিশধের সাধারন সভায় ভবনটিকে পরিত্যাক্ত ঘোষনা করা হয় ।নতুন ভবনে শ্রেনী কক্ষ রয়েছে ৯ টি,পুরাতন ঝুঁকিপূর্ন ভবনটিতে কক্ষ রয়েছে ৫ টি।নতুন ভবনের ৯টি কক্ষ শিক্ষার্থীর তুলনায় অপ্রতুল।ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য বিকল্প ভবনের ব্যাবিস্থা না থাকায় বর্তমানেও এই ভবনে ক্লাস নেওয়া অব্যাহত রয়েছে।ফলে যেকোন মহুর্তেই ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা।এমন অবস্থায় বিদ্যালয়ের পড়ালেখায় ব্যাঘাত ঘটছে।
উল্লেখ্য যে, বিদ্যালয়টি ১৯৪৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার পর থেকে জেএসসি  ও এসএসসি পরীক্ষায় সবসময় ভালো ফলাফল করায় প্রতিবারই উপজেলায় মেধা তালিকায় স্থান করে নেয়।তাই বিদ্যালয়টিতে ছাত্র/ছাত্রীদের পড়ালেখার আগ্রহ ও থাকে বেশী।এছাড়াও খেলধুলা,সাংস্কৃতিক কার্যক্রম ও বিভিন্ন সামাজিক কার্যক্রমে প্রত্যক্ষ ভাবে অংশগ্রহন করে সুনাম কুড়িয়ে আসছে।বর্তমানে বিদ্যালয়ে প্রায় ৬০০ জন শিক্ষার্থী পড়াশোনা করছে।
রুম সংকুলান না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা কম্পিউটার ল্যাব ও লাইব্রেরীর সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর ছাত্র ছোটন বলেন,যে স্থানে ফাটল রয়েছে সেখান থেকে দূরে বসে ক্লাস করতে হয়।ক্লাস করার সময় প্রায় সময় পলেস্তারা গায়ের উপর খসে পড়ে।দশম শ্রেনীর আরেক শিক্ষার্থী সানজিদা বলেন,প্রায় সময় পলেস্তারা খসে পড়ে,ভয়ে ভয়ে আমাদের ক্লাস করতে হয়,বর্ষাকালে ছাদ চুয়ে চুয়ে পানি পড়ে বই-খাতা ভিজে যায়।

IMG_20140309_092012
বিদ্যালয়ের শিক্ষক সৈকত চৌধুরী বলেন,যথাশিঘ্রই যদি এর কোন ব্যাবস্থা নেয়া না হয় তাহলে যে কোন সময় ভবনটি ধসে পড়তে পারে।অতি শিঘ্রই ভবনটির ব্যাপারে প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেন।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সফিউল আলম বলেন,পরিত্যাক্ত ভবনের ব্যাপারে ব্যাবস্থা গ্রহন করার জন্য গত ৪ মাস আগে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কাছে চিঠির মাধ্যমে আবেদন করা হয়েছে।কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনরুপ ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়নি।রুম সংকটের কারনে প্রয়োজনীয় সামগ্রী থাকা সত্বেও কম্পিউটার ল্যাব,পাঠাগার স্থাপন করা সম্ভব হচ্ছেনা।
অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষক,শিক্ষার্থী,অভিভাবক ও এলাকাবসীরা মারাতœক ঝুঁকিতে থাকা এই বিদ্যালয় ভবনের ব্যাপারে অতি শিগ্রই প্রশাসনের হস্তক্ষেপের দাবি জানান এবং বিদ্যালয়ের জন্য নতুন ভবন নির্মান করে শিক্ষক/শিক্ষার্থীদের নিরাপদে শিক্ষা কার্যক্রম চালানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানান।