শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

জাতিসংঘের বিশেষজ্ঞ দলের কর্মপরিকল্পনা প্রকাশ

khulna-oil-tanker-pic00022_51894

 

শ্যালা নদীতে ফার্নেস অয়েল ছড়িয়ে পড়ায় সংকটাপন্ন বিশ্ব ঐতিহ্য সুন্দরবনের জীব-বৈচিত্র্যের অবস্থা দ্বিতীয় দিনের মতো সরেজমিনে পরীক্ষা-নিরিক্ষা শুরু করেছে জাতিসংঘের উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বিশেষজ্ঞ দল। আজ বুধবার সকাল থেকে ৪টি স্প্রীডবোড ও ২টি ছোট লঞ্চ যোগে ক্ষতিগ্রস্থ বাগেরহাটের পূর্ব সুন্দরবন বিভাগের চাঁদপাই বন্যপ্রানী অভায়ারণ্যসহ শ্যালা নদী থেকে হরিণটানা খাল পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকা পর্যবেক্ষণ শুরু করেছে।৬টি দলে ভাগ হয়ে তারা বিভিন্ন যন্ত্র দিয়ে শ্যালা নদীসহ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার পানি, নদীর তলদেশেসহ মাটি, ফার্নেস অয়েল লেগে থাকা বিভিন্ন প্রজাতির ঘাস গাছপালাসহ পরিক্ষা-নিরিক্ষা ও জীব-বৈচিত্র্যের বর্তমান অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন।এদিকে, বিশেষজ্ঞ দলের প্রধান এ্যামোলিয়া ওয়ালট্রোম এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তাদের কাজের পরবর্তী কর্ম পরিকল্পনা প্রকাশ করেছেন। আজ বুধবার সকাল ১০টায় সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের আন্ধারমানিক এলাকায় এ প্রেস ব্রিফিং করা হয়।প্রেস ব্রিফিংয়ে জানান হয়, শ্যালা নদীতে তেল বিপর্যায়ে এই ফার্নেস অয়েলের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া কেমন হতে পারে, সুন্দরবনের কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে, সেটার স্থায়ীত্ব কতো, সুন্দরবনের বিভিন্ন বন্যপ্রানীসহ যে প্রানীকুল রয়েছে তার কোন ক্ষতি হতে পারে কিনা-হলে সেটার আসলে কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে, এখানের নদ-নদী গুলোতে যে জলজ প্রানী রয়েছে তার কোন ক্ষতি হয়েছে কিনা, হয়ে থাকলে সেটা কী ধরনের ক্ষতি হতে পারে। এছাড়া সুন্দরবনের উপর নির্ভরশীল মৎস্যজীবী ও বনজীবী ও বন সন্নিহিত লোকালয়ের মানুষের জীবন-জীবিকার উপর কী  ধরনের প্রভাব পড়তে পারে সেসব বিষয়ের উপর গুরুত্ব দিয়ে এ প্রতিনিধি দলটি  ২২ ডিসেম্বর থেকে ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত কাজ করবে বলে প্রেস ব্রিফিংয়ে জানানো হয়। তবে এদিন তারা প্রথমদিনের কর্মপরিকল্পনার ফলাফল প্রকাশ করেনি।ব্রিফিংয়ে আরও জানানো হয়, এই ৬টি টিমের রির্পোট ২৯ ও ৩০ ডিসেম্বর একত্র করে পর্যালোচনার পর ৩১ ডিসেম্বর সরকারের কাছে তাদের প্রতিবেদন পেশ করবেন। এরপর ঢাকায় সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিং করবেন।জাতিসংঘের উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) ৭টি দেশের বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ২৫ সদস্যের এ দলটি গত ৯ ডিসেম্বর ভোরে সুন্দরবনের শ্যালা নদীতে তেলবাহী ট্যাংকার ডুবিতে ছড়িয়ে পড়া ফার্নেস অয়েল নি:সরণে উদ্ভূত পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণসহ পরিক্ষা-নিরিক্ষার ফলাফল জানাতে অপারগতা প্রকাশ করেছে বিশেষজ্ঞ দলটি বলে বন বিভাগ সুত্রে জানা গেছে। বিশেষজ্ঞ দলের প্রধান এ্যামোলিয়া ওয়ালট্রোম পর্যবেক্ষনের ফলাফল ইউএনডিপি কান্ট্রি অফিসের মাধ্যমে জানানো হবে বলে বন বিভাগের ডিএফও আমীর হোসাইন চৌধুরী জানান। পর্যবেক্ষক টিমটি তাদের কার্য মেয়াদে ক্ষতিগ্রস্থ চাঁদপাই বন্যপ্রানী অভায়ারণ্যসহ শ্যালা নদী হতে হরিণটানা খাল পর্যন্ত দীর্ঘ এলাকায় ৪-৫ দিন সুন্দরবনের মধ্যে জলযানে থেকে সরেজমিন পরির্দশন ও নানা বিষয় নিয়ে পরিক্ষা-নিরিক্ষা করবেন।এদিকে মংলাবন্দর কতৃপক্ষ ও জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব শফিক আলম মেহেদী বুধবার বিকাল ৩টা থেকে ৪টার মধ্যে মংলা-ঘষিয়াখালী চ্যানেলের খনন কাজ পরিদর্শন করবেন।অন্যদিকে, একইদিন বুধবার বিকেলে পরিবেশ ও বন মন্ত্রনালয়ের সচিব মো. নজিবুর রহমান শ্যালা নদীর অয়েল ট্যাংকার দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও জাতিসংঘ পর্যবেক্ষনরত টিমের কার্যক্রম পরিদর্শন শেষে রাতে স্থানীয় প্রশাসন, পরিবেশও বনসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য দপ্তরের কর্মকর্তাদের সাথে মংলা বন্দর কতৃপক্ষের সভাকক্ষে মতবিনিময়ের কথা রয়েছে।