বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ৩ আষাঢ় ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

জন্মদিনে প্রিয় মানুষদের ভালবাসায় সিক্ত হলেন আলী যাকের

49109_ali

একে একে দেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের পরিচিত সব মুখ এসে জড়ো হয়েছে ঢাকার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালায়। সন্ধ্যার আগ থেকেই এমনটা লক্ষ্য করা যাচিছল। আর সন্ধ্যা হতেই চিত্রশালার মিলনায়তন কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। চিত্রশালার লবিতে একটি ফ্রেমে দেশের এক গুণী মানুষের বেশ কিছু ছবি আর কাঁচা ফুল বাঁধা। সেখানে তাকে উদ্দেশ্য করে লেখা আছে ‘আলোর পথযাত্রী, সপ্ততিতম জন্মদিন’। এ চিত্র ৬ই নভেম্বরের। আর যাকে ঘিরে এসব আয়োজন তিনি দেশীয় অভিনয় অঙ্গনের বিশিষ্টজন অভিনেতা ও নির্দেশক আলী যাকের। ওইদিন ছিল এ খ্যাতিমানের জন্মদিন। ৬৯ পেরিয়ে সেদিন তিনি পা রেখেছেন ৭০-এ। এ দিনটিতে জাতীয় চিত্রশালায় আয়েজিত অনুষ্ঠানেই  ফুলে ফুলে  প্রিয় মানুষদের ভালবাসায় সিক্ত হলেন আলী যাকের। নিজের জন্মদিনে একসঙ্গে এত প্রিয় মানুষের ভালবাসা খুব কম মানুষই পান। আলী যাকেরের জন্মদিনটাকে একটু অন্যভাবে পালন করার জন্যই আয়োজন করা হয়েছিল এ বিশেষ অনুষ্ঠানের। এ অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন আলী যাকেরে শিল্পসঙ্গী ও সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। নাট্যনির্মাতা ও অভিনেতা আতাউর রহমান আসেন প্রিয় শিল্পসঙ্গীকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানাতে। তাকে বুকে জড়িয়ে ধরে একটা সময় ভালবাসায় কেঁদে ফেলেন আলী যাকের। অনুষ্ঠানে এ গুণীকে শুভেচ্ছা জানাতে হাজির হয়েছিলেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, আইটিআই সভাপতি রামেন্দু মজুমদার, ফেরদৌসী মজুমদার, সারা যাকের, কেরামত মওলা, আবুল হায়াত, নাসির উদ্দীন ইউসুফ বাচ্চু, মিতা হক, আফসানা মিমি, বিপাশা হায়াত, ঝুনা চৌধুরী সহ আরও অনেকই।

আসাদুজ্জামান নূরের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা নানা স্মৃতিচারণ করেন আলী যাকেরকে নিয়ে। গান, আড্ডা আর গল্পে গল্পে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের সদস্যরা তাদের প্রিয় মানুষটির জন্মদিনটা স্মরণীয় করে রাখেন। উল্লেখ্য, আলী যাকের ১৯৪৪ সালের ৬ই নভেম্বর চট্টগ্রামে  জন্মগ্রহণ করেন। টিভি ও মঞ্চের অভিনেতা ও নির্দেশক ছাড়াও আলী যাকের মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের একজন ট্রাস্টি। তিনি বাংলাদেশের স্বনামখ্যাত বিজ্ঞাপনী সংস্থা এশিয়াটিক মার্কেটিং কমিউনিকেশনস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী। শখের বশে ফটোগ্রাফিও করে থাকেন এই নাট্যব্যক্তিত্ব। এরই মধ্যে তার একটি একক আলোকচিত্র প্রদর্শনীও আয়োজিত হয়েছে। ব্যক্তিগত জীবনে আলী যাকের বিয়ে করেছেন অভিনেত্রী সারা যাকেরকে। তাদের পুত্র ইরেশ যাকেরও একজন গুণী অভিনেতা। তার মেয়ে শ্রেয়া এশিয়াটিকের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করছেন।