রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

চাঁদাবাজি করে তাদের নেতার অসম্মান করছে আওয়ামী লীগ

37026_Khaleda-(2)_ED

১৫ই আগস্ট শোক দিবসের নামে সারা দেশে চাঁদাবাজি করে আওয়ামী লীগ তাদের নেতার অসম্মান করছে মন্তব্য করে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগের আমলে কেউ ব্যবসা করতে পারে না। চলছে শুধু চাঁদাবাজি। এই যে শোক দিবসের নামে তারা চাঁদাবাজি করছে। এর মাধ্যমে আওয়ামী লীগ তাদের নেতাকে অসম্মান করেছে। একজন সম্মানিত লোককে ছোট করেছে। শনিবার রাতে চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে হিন্দু সম্প্রদায়ের বিশিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। খালেদা জিয়া বলেন, দেশে গণতন্ত্র আজ মৃত। অথচ বর্তমান অবৈধ সরকার একের পর এক আইন করছে। সম্প্রচার নীতিমালা করছে। কয়েকদিন পর হয়তো আমরা যে কথা বলছি তাও প্রচার করতে দিবে না। বিচার বিভাগকে আষ্টেপৃষ্ঠে বাঁধার জন্য সরকার নতুন আইন করতে যাচ্ছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন। আওয়ামী লীগের আমলে সব ধর্মের মানুষ নির্যাতনের শিকার হচ্ছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ তাদের নিজেদের দলের লোকজন ছাড়া কিছু বোঝে না। আওয়ামী লীগের আমলে কোনো ধর্মের মানুষ নিরাপদ থাকে না। হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান-মুসলমান সবার ওপর এখন অত্যাচার চলছে। তিনি বলেন, আমরা ধর্ম নিরপেক্ষতা নয়, ধর্মীয় মূল্যবোধের কথা বলি। আমরা চাই সকল ধর্মের মানুষ সমান অধিকার পাবে। হিন্দু ধর্মালম্বীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, অত্যাচার নির্যাতনের বিরুদ্ধে ঘরের মধ্যে বসে মুখে মুখে প্রতিবাদ করলে হবে না। শ্রীকৃষ্ণের বাণী অনুযায়ী অন্যায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু করতে হবে। দেশে টাকা ছাড়া কোথাও কোন কাজ হয় না এমন অভিযোগ করে খালেদা জিয়া বলেন, জেলখানায়ও টাকা লাগে। এমনকি কবরে গেলেও হয়তো এদের (আওয়ামী লীগ) টাকা দিতে হবে। অনুষ্ঠানে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে এডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী, এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, বাসুদেব ধর, ঢাবির শিক্ষক ড. হরিপদ ভট্টাচার্য, চারুদত্ত ব্রহ্মচারী, ইসকন নেতা তেজ গোবিন্দ দাস ব্রহ্মচারী, মহামন্ত্র কীর্তন দাস, জয়ন্ত কুমার কু-ুসহ শতাধিক নাগরিক উপস্থিত ছিলেন।