রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

গাজায় ইসরাইলি স্থল হামলা ছয় দিনে নিহত ১৬৫

2_122534

ফিলিস্তিনের গাজায় একের পর এক বিমান হামলার পর এবার স্থল অভিযান শুরু করেছে ইসরাইলি বাহিনী। গাজার উত্তরাঞ্চলীয় সীমান্তে শনিবার রাতভর হামলা চালায় ইসরাইলি নৌকমান্ডোরা। গত ৬ দিন ধরে অব্যাহত ইসরাইলি হামলায় ১৬৫ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন প্রায় এক হাজার মানুষ। এদের মধ্যে বহু নারী ও শিশু রয়েছে। জাতিসংঘ বলেছে, নিহত ব্যক্তিদের তিন-চতুর্থাংশের বেশিই বেসামরিক নাগরিক। পাশাপাশি গাজা ভূখণ্ডে যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। সংস্থাটির ১৫ সদস্য রাষ্ট্রই যুদ্ধবিরতির প্রস্তাব সংক্রান্ত একটি বিবৃতি অনুমোদন করেছে। শান্তি পুনঃস্থাপন ও আলোচনা পুনরায় শুরুর তাগিদ দিয়েছে দেশগুলো। এদিকে জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতির আহ্বানে করণীয় ঠিক করতে রোববার রাতে আলোচনায় বসেছেন যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ কূটনীতিকরা। খবর এএফপি, বিবিসি ও আলজাজিরার।
শনিবার গভীর রাত থেকে গাজার উত্তরাঞ্চলীয় সুদানিয়া এলাকায় স্থল অভিযান শুরু করে ইসরাইলি নৌকমান্ডো বাহিনী। সেখানে তাদের বোমা হামলায় একই পরিবারের ১৮ বেসামরিক লোক নিহত হয়েছেন। এ সময় ফিলিস্তিনি হামাসের যোদ্ধারা প্রতিরোধ গড়ে তুলে পাল্টা হামলা চালালে ইসরাইলের অন্তত চার নৌকমান্ডো আহত হয়েছেন। হামাসের সামরিক শাখা ইজ্জেদিন আল-কাসসাম ব্রিগেড ইসরাইলি হামলার কথা নিশ্চিত করে বলেছে, গাজার সুদানিয়া এলাকায় ইসরাইলের নৌবাহিনী হামলা চালিয়েছে।
ইসরাইলি মুখপাত্র বলেছে, সম্ভাব্য হামলা এড়াতে গাজা উপত্যকার উত্তরাঞ্চলের বাসিন্দাদের তাদের বাড়ি ছেড়ে নিরাপদ স্থানে সরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা। বিমানবাহিনী লিফলেট ফেলে বাসিন্দাদের ওই এলাকা ছেড়ে যেতে বলেছে। ইসরাইলের রাষ্ট্রীয় রেডিওর বরাত দিয়ে এএফপি জানায়, গাজায় ইসলামী সংগঠন হামাসের বিরুদ্ধে মঙ্গলবার থেকে শুরু হওয়া ইসরাইলি অভিযানে এটাই প্রথম স্থল হামলা। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ যুদ্ধবিরতির আহ্বান জানানোর পরও বিমান হামলা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি স্থল হামলা চালালো ইসরাইল।
ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শনিবার রাতে ফিলিস্তিনে সবচেয়ে ভয়াবহ বোমা হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। সারা রাত ধরে চলা ওই হামলায় কমপক্ষে ৫২ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এতে ৬ দিন ধরে অব্যাহত ইসরাইলি হামলায় ১৬৫ জন নিহত ও ১ হাজারের বেশি আহত হয়েছেন। সংঘর্ষ চলাকালীন ফিলিস্তিনি হামাসের ছোড়া ৫শর বেশি রকেট ইসরাইল ভূখণ্ডে আঘাত হেনেছে। তবে ওই হামলায় কোনো ইসরাইলি নিহত হননি। এই রকেট হামলার জবাবে ফিলিস্তিনে প্রায় ১২০০ হামলা চালিয়েছে ইসরাইল। এদিকে শনিবার রাতে গাজার সিকিউরিটি হেডকোয়ার্টার এবং পুলিশ স্টেশনে বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইলি বাহিনী। ফিলিস্তিনে গত ৮ জুলাই থেকে চলা ইসরাইলি অভিযানে এটাই সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা বলে জানিয়েছে বিবিসি। উল্লেখ্য, ২০০৯ সালের ইসরাইলি স্থল অভিযানে প্রায় ১৪০০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছিল।
জাতিসংঘের স্কুলে আশ্রয় নিচ্ছে ফিলিস্তিনিরা : টানা ছয় দিন ধরে ইসরাইলি হামলায় আপনজন হারিয়েছেন অনেক ফিলিস্তিনি। অনেকে হারিয়েছেন তাদের বাড়িঘর। বহু ফিলিস্তিনি এখন খোলা আকাশের নিচে বসবাস করছে। অনেকে আশ্রয় নিচ্ছে জাতিসংঘের আশ্রয় কেন্দ্র সদৃশ একটি স্কুলে। রোববার বেশ কয়েকটি ফিলিস্তিনি পরিবারকে তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে দেখা গেছে। অনেকে আরও আগে থেকে সেখানে অবস্থান করছেন।