রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

গণতন্ত্রপন্থী-চীনপন্থী মুখোমুখি

1_156024
হংকংয়ে পূর্ণগণতন্ত্রের দাবিতে আন্দোলনরত বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে শাসকগোষ্ঠীর সমর্থক চীনপন্থীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার শহরের দুটি ব্যস্ততম বাণিজ্যিক এলাকার দু’পক্ষের এই মুখোমুখি সংঘর্ষ ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। এ সময় চীনপন্থীদের মুখেও বিক্ষোভ বিরোধী স্লোগান শোনা যায়।প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে বার্তাসংস্থা আল জাজিরা জানায়, প্রায় ২০০ গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভকারীদের আন্দোলন স্থলে শাসকগোষ্ঠীর একটি বিরাট দল আচমকা ব্যারিকেড ভেঙে ভেতরে ঢোকার চেষ্টা করে। পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় বিক্ষোভকারীরাও তাদের ওপর চড়াও হলে এ ঘটনা ঘটে। এদিকে আন্দোলনে হামলা চালানোর জেরে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীর সঙ্গে ‘আলোচনা প্রস্তাব’ বয়কটের হুমকি দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা।
গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনের এক ছাত্র নেতা বলেন, সরকার বিক্ষোভকারীদের ওপর হামলা চালানো বন্ধ না করলে আলোচনার সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার দেয়া হংকংয়ের প্রধান নির্বাহীর আলোচনা প্রস্তাব মেনে নেয়ার পর শুক্রবার এ হুমকি দিলেন বিক্ষোভের নেতা। সপ্তাহ ধরে চলা বিক্ষোভ দমাতে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী চি লিউং বৃহস্পতিবার রাতে আলোচনার প্রস্তাব দেন। কিন্তু নিজের পদত্যাগের দাবি মানতে অস্বীকার করেন।
এদিকে সংখ্যা কমে গেলেও বিক্ষোভকারীরা নগরীর একাংশ অবরোধ করে রেখেছে। শুক্রবার হংকং কর্তৃপক্ষ বিক্ষোভস্থলের মূল কেন্দ্রের কাছাকাছি সরকারি অফিসগুলো সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিয়েছে। কর্তৃপক্ষ বলছে, সড়ক অবরোধের কারণে স্টাফদের বাড়িতে বসেই কাজ করা উচিত।
এদিকে সময়সীমা পার হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লিউং তার পদত্যাগ না করার ঘোষণা দেন। তিনি বলেন, ‘আমি পদত্যাগ করছি না। কারণ নির্বাচন নিয়ে আমাকে কাজ করে যেতে হবে।’ তিনি সতর্ক করে বলেন, সরকারি ভবনগুলো দখলের উদ্যোগ নেয়ার পরিণাম ভয়াবহ হবে। পুলিশ শুক্রবার সকালে সরকারি ভবনগুলোর আশপাশে নিরাপত্তা জোরদার করেছে।
এদিকে হংকং ফেডারেশন অব স্টুডেন্টস (এইচকেএফএস) বলেছে, তারা লিউংয়ের ডেপুটির সঙ্গে আলোচনায় বসবে। তবে জোর দিয়ে বলেছে লিউংকে পদত্যাগ করতে হবে। কারণ তিনি এ পদে থাকার যৌক্তিকতা হারিয়েছেন।
‘গর্দভদের করের টাকায় আমার হীরার হার’ : ‘চীনের দালালি’র অভিযোগে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী সি লিউংয়ের বিরুদ্ধে বিক্ষোভের আগুন জ্বলছে রাজপথে। সেই আগুনে এবার ঘি ঢেলে দিলেন তারই মেয়ে চাই ইয়ান লিউং। ফেসবুকে প্রোফাইল ছবিতে তার গলার হীরার হার নিয়ে একটা পোস্ট করে বাবা লিউংয়ের পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভকারী সাধারণ জনগণকে গর্দভ বলে সম্বোধন করেছেন। হংকংয়ের দুটি দৈনিক ‘সাউথ চীনা মর্নিং পোস্ট’ এবং ‘স্ট্যান্ডার্ড’র বরাত দিয়ে শুক্রবার এ খবর প্রকাশ করেছে ডেইলি মেইল। ইয়ানের প্রোফাইল ছবিতে দেখা যায়, একটি হীরার হার পরে আছেন চাই ইয়ান। সেই হীরা নিয়ে বেশ কিছু মন্তব্য করেছে আন্দোলনরত কয়েকজন তরুণ। এরই কড়া জবাব দিতে বুধবার ইয়ান তার পেজে এসব কথা লেখেন। ইয়ান লিখেছেন, ‘প্রোফাইল ছবিতে যে হারটা দেখছ, বোকার দল- এটা কুকুরের গলার মালা নয়। তোমরা কখনও কুকুর দেখেছ বলে মনে হয় না। অথচ পুরো বিশ্বেই কুকুর খুব কমন একটা প্রাণী! কুকুরের গলাবন্ধ গোল হয়, রঙ হয় কালো। আর নাইলন দিয়ে তৈরি। কুকুরের গলায় পরিয়ে তার সঙ্গে একখানা দড়ি বেঁধে দেয়া হয়।’ ইয়ান আরও লেখেন, ‘কিন্তু সুন্দর এই নেকলেসখানা লেন ক্রাফোর্ড (হংকংয়ের একটি কোম্পানির নাম) থেকে কেনা।’