শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ১১ আষাঢ় ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

খালেদার সমাবেশ নিয়ে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল মুখোমুখি!

image_166262.chatro al bnp
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে তারেক রহমানের বক্তব্য প্রত্যাহার না করা হলে দেশের কোথাও খালেদা জিয়াকে সমাবেশ করতে দেওয়া হবে না বলে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে। আজ সোমবার সন্ধ্যায় সংগঠনটির সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান এ কথা বলেন। ছাত্রলীগের হুমকি উড়িয়ে দিয়ে গাজীপুরে খালেদা জিয়ার সমাবেশ আয়োজনের দায়িত্ব নিয়েছে ছাত্রদল। গাজীপুরসহ দেশে সমাবেশ প্রতিহত করার ঘোষণার পরিণাম কী ভয়াবহ হতে পারে, ছাত্রলীগকে ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিতে হবে, বলেছেন ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান। এদিকে, ছাত্রদলের গণধোলাই দেওয়ার ঘোষণা বিষয়ে ছাত্রলীগের সভাপতি বদিউজ্জামান বলেন, তাদের (ছাত্রদল) শব্দবোমায় আমরা ভয় পাই না। ক্যাম্পাসে ভায়োলেন্স তাদের অভ্যাস, আমাদের নয়। তাদের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আহ্বান জানাচ্ছি।
এর আগে আজ বিকেলে নয়াপল্টনে ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে দলটির সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান লিখিত বক্তব্যে বলেন, ছাত্রলীগের এ ঘোষণা ছাত্রসমাজকে বিস্মিত ও হতবাক করেছে। এ বক্তব্য হাস্যকর ও অর্বাচীনের আস্ফালন। নির্ধারিত জায়গায়, নির্দিষ্ট সময়ে সভা অনুষ্ঠিত হবে এবং ছাত্রদল সব আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করবে। বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান তারেক লন্ডনে এক সভায় বঙ্গবন্ধুকে রাজাকার বলার পর তাঁর বিরুদ্ধে দেশে কয়েক ডজন মামলা হয়েছে। তারেক দাবি করেছেন, তাঁর বক্তব্য ছিল অপপ্রচারের জবাব।ছাত্রদল সাধারণ সম্পাদক বলেন, খালেদা জিয়া এবং তারেক রহমান সম্পর্কে সব কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য প্রত্যাহার করে ক্ষমা চাইতে হবে, তা না হলে ছাত্রসমাজকে সঙ্গে নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবং রাজপথে গণধোলাই দিয়ে রাজনৈতিক শিষ্টাচার শেখানো হবে। ২৭ ডিসেম্বর গাজীপুরের বদরে আলম সরকারি কলেজ মাঠে ২০ দলের সমাবেশ হওয়ার কথা। সেখানে প্রধান অতিথি থাকবেন খালেদা জিয়া। তবে গতকাল রবিবার গাজীপুর জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগ একই স্থানে একই সময়ে পাল্টা সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছে।