রবিবার, ১৩ জুন ২০২১, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

আটককৃত ফেনসিডিল বিক্রির অভিযোগে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে এএসআই ক্লোজড

mirsori Policeপ্রতিনিধি : মীরসরাই উপজেলার হাইওয়ে পুলিশ কর্তৃক আটক করা ফেনসিডিল থানায় জমা না দিয়ে উল্টো মাদক বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করে দেবার অপরাধে ক্লোজড হলো হাইওয়ে পুলিশের এক এএসআই।
প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ফেনসিডিল কেলেঙ্কারীর অভিযোগে মীরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ চৌধুরীহাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উক্ত এএসআই মোঃ জামাল হোসেনকে ক্লোজড করেছেন হাইওয়ে পুলিশ পূর্বাঞ্চলের পুলিশ সুপার রেজাউল করিম। বিষয়টি গতকাল বুধবার (৫নভেম্বর) স্থানীয় সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই মেহেদী হাসান।

উল্লেখ্য, গত ১ নভেম্বর সোনাপাহাড়স্থ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পশ্চিম পার্শ্বে নিজামের বাড়ির দক্ষিণ রাস্তা সংলগ্ন এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে চট্টমেট্রো – থ – ২৩৬৩নং সিএনজি থেকে ২০০ বোতল ভারতীয় তৈরি ফেনসিডিল উদ্ধার করে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির উক্ত এএসআই জামাল হোসেন। এসময় আটক হন ঘটনায় জড়িত মানিক মিয়া ও মাসুদ আহম্মদ। সেদিন উক্ত উদ্ধার বিষয়ে থানায় এন্ট্রিকৃত মালায় ৯০ বোতল লিখা হয়েছে এবং সবাইকে ও ৯০ বোতল শোনানো হয়েছে।
কিন্তু পরবর্তিতে আটককৃত দুব্যক্তিকে চোরাই এইসব পন্য নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে ফাঁস হয়ে যায় আটককারী অফিসারের ফেনসিডিল সরিয়ে ফেলার ঘটনা। হাইওয়ে পুলিশ পূর্বাঞ্চলের পুলিশ সুপার রেজাউল করিম জানান, যেহেতু এএসআই জামাল হোসেনের বিরুদ্ধে এ ধরণের অভিযোগ উঠেছে তাই তাকে জোরারগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ি থেকে ক্লোজড করা হয়েছে।
আবার উক্ত ফেনসিডিল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জোরারগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত রিয়াদ হায়দার বলেন পুরো বিষয়টির বর্তমানে তদন্তাধিন। বাকিটুকু উর্দ্ধতন কতপক্ষ দেখছেন এখন।