বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

অবশেষে অনাগত সন্তানের স্বীকৃতি পেল অন্ত:সত্ত্বা ইয়াছমিন

মীরসরাই প্রতিনিধি॥ দীর্ঘ তিন মাস প্রেমিকের দ্বারে দ্বারে ঘুরার পর অবশেষে অনাগত সন্তানের স্বীকৃতি পেল মীরসরাইয়ের ৬ মাসের অন্ত:সত্ত্বা কিশোরী ইয়াছমিন সুলতানার (১৮)। আজ (১৭জুন) মীরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ থানায় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ও থানা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অভিযুক্ত প্রেমিক মোঃ শাহীন (২২) এর সাথে বিয়ে পরিয়ে দেন।
জানা গেছে, মীরসরাই উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের ঘেড়ামারা গ্রামের মোঃ দুলালের কিশোরী কন্যা ইয়াছমিন সুলতানাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে তাঁর সাথে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করে একই গ্রামের প্রতিবেশী সাহেব আলীর পুত্র মো: শাহীন। কৈশোরের আবেগে ঐ যুবকের প্রেমে মত্ত হয়ে সমর্পন করে নিজের সর্বস্ব। অবাধ মেলামেশায় একসময় কিশোরীটি অন্ত:সত্ত্বা হয়ে পড়ে। ঘটনা জানাজানি হলে কিশোরীটির পরিবার প্রেমিকের পরিবারকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। এতে প্রেমিক যুবকটি বিয়েতে অস্বীকৃতি জানায়। গত দীর্ঘ তিন মাস কিশোরীটি প্রেমিকের দ্বারে দ্বারে ঘুরে স্বীকৃতি না পেয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও প্রশাসনকে অবহিত করে। অবশেষে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও থানা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে জোরারগঞ্জ থানায় তাঁদের বিয়ে পরিয়ে দেন। এতে করে স্বীকৃতি মেলে অনাগত নিষ্পাপ সন্তানের, তাঁর সাথে মোচন হয় কিশোরীটির কলংক।
এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, থানায় উভয় পক্ষের সম্মতিতে কাজীর মাধ্যমে ধর্মীয়ভাবে বিয়ে পরিয়ে দেয়া হয়েছে।