শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

অনুমতি না পেলেও সমাবেশ করা হবে

57456_f3

৫ই জানুয়ারি অনুমতি না পেলেও বিএনপি রাজধানীতে সমাবেশ করবে বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আবদুল মঈন খান। বলেছেন, আমরা ৫ই জানুয়ারি ঢাকায় গণগন্ত্র হত্যা দিবসের সমাবেশ করবো। অনুমতি দেবে কি দেবে না, তা সরকারের বিষয়। আমাদের যা করণীয়, তা আমরা করবো। ছাত্রদলের ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল সকালে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় একই ঘোষণা দেন দলটির দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ। ড. মঈন খান বলেন, গত বছর ৫ই জানুয়ারি একটি প্রহসনের নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। এ দিনটিকে আমরা গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে পালন করতে চাই। এরই মধ্যে ঢাকায় জনসভা করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুমতি চেয়েছি। এখনও অনুমতি মেলেনি। শেষ পর্যন্ত যদি অনুমতি না মেলে, তার পরও বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট ওই দিন রাজপথে থাকবে। সব ধরনের বাধা-বিপত্তি উপেক্ষা করে জনগণের দাবি আদায়ে সচেষ্ট হবে বিএনপি। বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রস্তাবিত সাত দফা নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রতিক্রিয়ার বিষয়ে মঈন খান বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন সরকারকে সংলাপের সুনির্দিষ্ট প্রস্তাব দিয়েছেন। এ প্রস্তাব আওয়ামী লীগ প্রত্যাখ্যান করলো, না গ্রহণ করলো, তা দিয়ে বিএনপি রাজনীতি করে না। বিএনপি রাজনীতি করে আদর্শের ভিত্তিতে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ বিএনপির প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে, তাতে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। কারণ আওয়ামী লীগ জন্মলগ্ন থেকেই শান্তিপূর্ণ রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। তবে গণতন্ত্রের সৌন্দর্য হলো আলোচনার মাধ্যমে সব সমস্যার সমাধান করা। এ প্রস্তাব গ্রহণ না করলে আন্দোলনের মাধ্যমেই গণতন্ত্রের দাবি আদায় করা হবে। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে অতীতের মতো এবারও ছাত্রদল মাঠে থাকবে- এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করে তিনি বলেন, আমরা আশা করছি জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল রাজপথে তাদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবে। কোন বাধাবিপত্তি তাদের দমাতে পারবে না। এ সময় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবীর খোকন, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এ বি এম মোশাররফ হোসেন, ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলীম, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি রাজীব আহসান, সিনিয়র সহসভাপতি মামুনুর রশীদ মামুন, সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসানসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ড. আবদুল মঈন খানের নেতৃত্বে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতারা।