Tuesday, July 25Welcome khabarica24 Online

সুস্বাস্থ্য

সাপে কামড়ালে কী করবেন, কী করবেন না

সাপে কামড়ালে কী করবেন, কী করবেন না

খবরিকা ডেক্সঃ : সাপকে ভয় পায় না এমন মানুষ সম্ভবত কমই আছে। সাপ কিন্তু এমনিতেই মানুষকে কামড়ায় না। তাকে বিরক্ত করলে কিংবা সে নিজের জীবনকে ঝুঁকির মধ্যে আছে মনে করলে শত্রুকে কামড় বসিয়ে দেয়। সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে বসতঘরে বিষধর গোখরা সাপের উপদ্রব বেড়েছে। ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা, রাজশাহী, কুষ্টিয়া, মানিকগঞ্জসহ বেশকিছু জায়গায় বাড়িতে সাপের উপদ্রবের খবর পাওয়া গেছে। সাপের বিষ মারাত্মক। প্রাণকে নিষ্প্রাণ করে দেয় এ বিষ। তবে সব সাপ বিষধর নয়। বিষধর ও নির্বিষ উভয়ের কামড়ে মেডিকেল কিংবা চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। উইকি হাউ-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী আসুন সাপের কামড়ের চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিই। বিষাক্ত সাপের কামড়ের চিকিৎসা * জরুরি সেবা নম্বরে ফোন করুন অথবা সাহায্যের জন্য কাউকে ডাকুন। আপনি যদি একা হন তাহলে সাহায্য পেতে এগিয়ে চলুন। বেশিরভাগ সাপের কামড় মারাত্মক হয় না। বিষাক্ত সাপে কামড়ালে যত দ্রুত স
বর্ষার জন্য কিছু টিপস

বর্ষার জন্য কিছু টিপস

খবরিকা ডেস্ক : এখন বর্ষাকাল। আর এ বর্ষাকালেই জায়গায় জায়গায় জমে থাকে পানি যা রোগ-জীবাণু ছড়াতে ভালই সাহায্য করে। বর্ষার সময় একটু অসাবধানতার কারণেই হতে পারে ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া বা ডায়রিয়ার মতো ভয়ঙ্কর রোগ। এছাড়া বাতাসের অতিরিক্ত আর্দ্রতার কারণেও ছড়াতে পারে ভাইরাল সংক্রমণ। তবে সাবধানতা অবলম্বন করতে পারলে অবশ্যই নিজেকে সুস্থ রাখা যাবে। নিচে রইলো কিছু টিপস- ১. খাবারের প্রতি সতর্ক থাকতে হবে। বেশি ভাজা খাবার খাওয়া যাবে না। আর্দ্র আবহাওয়ায় আমাদের হজম ক্ষমতা কমে যায়। তাই বেশি মাছ, মাংস না খেয়ে হাল্কা, সহজপাচ্য রান্না খেতে হবে। স্বাস্থ্যকর, সুষম ডায়েট মেনে চলা এই সময়ে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কাঁচা শাকসবজি থেকে ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণ ছড়াতে পারে। তাই শাকসবজি ভাল করে ধুয়ে রান্না করে তবেই খাবেন। বেশি করে তেতো সবজি খেতে হবে। যেমন- নিম, করলা। ২. বর্ষায় যথেষ্ট পরিমাণে পানি পান করুন। ক্যাফে
“স্বপ্ন দেখুন, স্বপ্ন পূরণ হবেই”

“স্বপ্ন দেখুন, স্বপ্ন পূরণ হবেই”

  এম.ইমাম হোসেনঃ শখ বা স্বপ্নের অনেক কাজ অনেকেই জমিয়ে রেখে দেন অবসরে যাওয়ার পরে করবেন বলে। কিন্তু সেগুলো এখনই শুরু করে দেওয়া ভালো। কারণ, অবসর-পরবর্তী সময়টা তো না-ও আসতে পারে। জীবনে সত্যিকারের অবসর আসলে কখনোই মেলে না। সময় খুবই সীমিত, কাজেই সেটা অপচয় করার কোনো মানে হয় না। তাই “স্বপ্ন দেখুন, স্বপ্ন পূরণ হবেই” এই শ্লোগানটি “স্বপ্নের আলো” সংগঠনের শ্লোগান । সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা/পরিচালক মোঃ বিল্লাল হোসেন । তার কাছ থেকে জানা যায়, সে অনেক স্বপ্ন দেখেছে কিন্তু এর মধ্যে গরীব ও পথশিশুদের নিয়ে কাজ করার স্বপ্নটাই পূরণ হয়েছে । তাই সে স্বপ্ন দেখে তার বন্ধু-বান্ধুবীদের নিয়ে গরীব ও পথশিশুদের সাহায্য করবে । তাদের যেকোনো বিপদে এগিয়ে আসবে। আরও জানাগেছে তার একটি ইউটিউব চ্যানেল আছে, সেখানে সে বিভিন্ন শিক্ষামূলক, সচেতনমূলক ও প্রতিভাবান গরীবদের তুলে ধরেন । চ্যানেল’র নাম’ “Shopner Alo Ltd”। এখনো তা
নখের পরিচর্যায় কিছু টিপস

নখের পরিচর্যায় কিছু টিপস

খবরিকা ডেক্সঃ  রূপচর্চায় আমরা কতো কিছুই না করি।  কিন্তু নখ আমাদের সৌন্দর্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ দিক হলেও নখের যত্ন আমাদের তেমন একটা ভাবায় না।  আসুন নখের পরিচর্যায় কিছু টিপস মেনে চলি। যা করতে হবে : নখ সবসময় পরিষ্কার ও শুকনো রাখবেন।  নখ ভেজা থাকলে নখের ভেতর ব্যাকটেরিয়া, ফাঙ্গাস জন্মাতে পারে।  এ থেকে ইনফেকশন হওয়ার আশঙ্কা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। বাড়িতেই নিয়মিত মেনিকিউর করে নিতে পারেন।  মেনিকিউর ক্লিপার বা কাটার দিয়ে নিয়মিত নখ কেটে নেইল ফাইলার দিয়ে শেপ করে নিন।  নখ কাটার আগে ঈষদুষ্ণ পানিতে নখ কিছুক্ষণ ভিজিয়ে রাখুন।  ভেজা নখ নরম থাকে, ফলে কাটতেও সুবিধা হয় এবং নখের কোনো ক্ষতিও হয় না। অনেক সময় বিভিন্ন কারণে নখ ভেঙে যায়।  কোনো কারণে নখ ভেঙে গেলে কখনই টেনে ছিঁড়বেন না।  টেনে ছিঁড়লে ব্যথা তো লাগবেই, সেই সঙ্গে নখের শেপও নষ্ট হয়ে যাবে।  ভাঙা নখ সাবধানে নেইল কাটার দিয়ে কেটে ফে

চোখের নিচের কালো দাগ দূর করবেন যেভাবে

খবরিকা ডেক্সঃ মানুষের মুখ মন্ডলে সবচেয়ে সুন্দর ও স্পর্শকাতর অঙ্গ হলো এক জোড়া চোখ। কিন্তু যদি সেই সুন্দর দুটি চোখের নিচে কালো দাগ বা আন্ডার আই ডার্ক সার্কেল দেখা দেয় তাহলে পুরো সৌন্দর্যেই ভাটা পড়ে যায়। অনেক কারণেই চোখের নিচে কালো দাগ পড়তে পারে। তার মধ্যে রাতে জেগে থাকা বা ঘুম কম হওয়া, কাজের বাড়তি চাপ, খাবারে অনিহা, অতিরিক্ত দুশ্চিন্তা, বাধর্ক্যজনিত কারণ, রক্ত শূন্যতা, বিষন্নতা উল্লেখযোগ্য। এছাড়াও কিছু শারীরিক সমস্যা যেমন-এলার্জি, শ্বাসকষ্ট, যকৃতের সমস্যা, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ইত্যাদি কারণেও চোখের নিচে কালো দাগ হতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে ছোট বেলা থেকে কোনো কারণ ছাড়াই চোখের নিচে কালো দাগ দেখা যায়। চোখের নিচের কালো দাগ দূর করতে ওষুধের চেয়ে যত্ন ও কিছু নিয়ম কানুন কার্যকরী। প্রতিদিন অন্তত: সাত থেকে আট ঘন্টা ঘুমানোর অভ্যাস করতে হবে। দুশ্চিন্তা ও মানসিক চাপমুক্ত থাকার চেষ্টা করতে হবে। ধূমপান
ছেলেদের ব্রণের সমস্যায় করণীয়

ছেলেদের ব্রণের সমস্যায় করণীয়

খবরিকা ডেক্সঃ  ব্রণের সমস্যায় শুধু মেয়েরাই নয়, ভুগে থাকেন পুরুষেরাও। হরমনের পরিবর্তন, ত্বকে জমে থাকা ধুলোময়লা, বংশগত কারণ, ভিটামিনের অভাব অথবা কোষ্ঠকাঠিন্য পুরুষের ত্বকে ব্রণ হওয়ার অন্যতম কারণ। সঙ্গে যোগ হয় নিজের যত্নের ব্যাপারে তাদের উদাসীনতা। খাওয়া দাওয়ার অনিয়মের কারণেও ত্বকে ব্রণ দেখা দিতে পারে। ত্বকে অতিরিক্ত ব্রণ হলে চেহারার আসল সৌন্দর্য ঢাকা পড়ে যায়। গ্রহণযোগ্যতাও কমে আসে সবার কাছ থেকে। এসব কারণে ভুগতে পারেন হীনমন্যতায়। তাই জেনে নিতে পারেন পুরুষের ত্বক থেকে ব্রণ দূর করার উপায় সম্পর্কে। তৈলাক্ত ত্বকে ব্রণের সংক্রমণ বেশি হয়। তাই সবসময় মুখ পরিষ্কার রাখুন। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে ঠান্ডা পানির ঝাপটা দিন। মুখে সাবান ব্যবহার না করে নমনীয় ফেসওয়াশ ব্যবহার করলে ভালো উপকার পাবেন। দিনে কমপক্ষে দু’বার গোসল করুন। এতে ত্বক পরিষ্কার থাকে, ব্রণ কমাতে সাহায্য করে। ত্বকে নিয়মিত ময়দা, দুধ
কোন ফলে কতো সুগার?

কোন ফলে কতো সুগার?

খবরিকা  ডেস্ক : আপনি সবার কাছ থেকে অসংখ্যবার শুনে থাকবেন যে, তারা আপনাকে ফল (এবং সবজি) খেতে বলে থাকে কারণ সুস্বাস্থ্যের জন্য নিয়মত ফল খাওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু কখনো কি ভেবেছেন যে, ফলের মাধ্যমে কি পরিমান সুগার ক্রমাগত খাওয়া হচ্ছে? ফলের মধ্যে সুগারের পরিমান বেশি (অন্তত কিছু ফলে)। কিন্তু এতে দুশ্চিন্তার কিছু নেই এবং খাদ্য তালিকা থেকে ফল বাদ দিতে হবে না। তবে পরবর্তীতে যখন আপনি আপনার খাবারের তালিকা থেকে চিনি জাতীয় খাবার কমাবেন তখন খাবারের তালিকায় বেশি পরিমাণ ফল রাখা ডায়েটে সেরা সমাধান হতে পারে না। এটা সত্যি যে, ফল-এ প্রাকৃতিক চিনি থাকে যেখানে অন্যান্য খাবারে সাধারণত পরিশোধিত চিনি বিদ্যমান। কিন্তু তারপরও ফল আপনার চিনি খাওয়াতে অবদান রাখে- ফল খাওয়া অব্যাহত রাখুন, কিন্তু হয়তো অনেক বেশি না। এ প্রতিবেদনে আপনার পছন্দসই ফলের মধ্যে বিদ্যমান প্রাকৃতিক চিনির পরিমাণ তুলে ধরা হলো। আঙুর
‘চিকুনগুনিয়া’ জ্বরের লক্ষণ ও প্রতিকার

‘চিকুনগুনিয়া’ জ্বরের লক্ষণ ও প্রতিকার

খবরিকা ডেস্ক/- চিকুনগুনিয়া নিয়ে ভয়ে আছেন অনেকেই । তবে এই রোগটি নিয়ে ভয়ের তেমন কিছুই নেই। সাধারণ জ্বরের মতোই এটি এক প্রকার ভাইরাস জ্বর। আমাদের পরিচিত এডিস মশাই এর বাহক। প্রথম আফ্রিকার তানজানিয়ায় ১৯৫৩ইং সালে এর মহামারী সম্পর্কে জানা যায়। এর আঞ্চলিক একটি মজার নাম হচ্ছে ‘ল্যাংড়া জ্বর’। যেভাবে ছড়ায়: এই জ্বরের কারণ চিকুনগুনিয়া ভাইরাস। এটি এক প্রকার RNA ভাইরাস। বাহক এডিস মশা। এটার চক্র হলো, মানুষ >মশা> মানুষ। আক্রান্ত গর্ভবতী মা থেকে সন্তানে এই ভাইরাস ছড়াতে পারে। তবে মায়ের দুধের মাধ্যমে ছড়ায় না। তাই মায়ের দুধ খাওয়াতে সমস্যা নেই। আক্রান্ত ব্যক্তির সাথে চলাফেরা বা কোনো সম্পর্ক স্থাপন করলেও সমস্যা নেই। শুধুমাত্র মশার মাধ্যমেই এ রোগ ছড়ায়।   লক্ষণ: (১) হাই গ্রেড জ্বর। জ্বর 102° থেকে 104°F পর্যন্ত হতে পারে। এই জ্বরে সাধারণত কাঁপুনি থাকে আবার নাও থাকতে পারে। জ্বর অন্য সা