Monday, May 20Welcome khabarica24 Online

মুক্তাঙ্গন

স্মৃতিবিজড়িত মুক্তিযুদ্ধের কয়েকটি দিনের স্মৃতিকথা

স্মৃতিবিজড়িত মুক্তিযুদ্ধের কয়েকটি দিনের স্মৃতিকথা

মেজর মোহাম্মদ মোস্তফার (অবঃ)বিএসএস-৭০৫ ঃ ১। ভয়াল মুক্তিযুদ্ধের সেই উত্তাল দিনগুলির-১ম দিন (একটি শোকাহত স্বরনীয় ঘটনা)- ১৯৭১ সালের ৩০শে মার্চ- যশোর সেনানিবাসে ১ম ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট (সিনিয়ার টাইগার) হতে বিদ্রোহ করে প্রাণে বেচে সম্মুুখ মুক্তিযুদ্ধ শুরু করি। যশোর সেনানিবাসে ১০৭ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনে ১ম ইষ্ট বেঙ্গল সহ পাকিস্তানের ফ্রন্টিয়ার র্ফোস এবং বেলুচ রেজিমেন্টের দুইটি ব্যাটালিয়ান ছিল আরো ছিল আটিলারি, ইঞ্জিনিয়ার্স, সিগনাল ই-এম-ই, ফিল্ড এম্বুলেন্স, সাপ্লাই ও সিএমএইচ সহ অনেক ইউনিট। এই সকল ইউনিট বাঙ্গালি সৈনিকে ভরপুর ছিল। ১ম ইষ্ট বেঙ্গলে (সিনিয়ার টাইগার) শতভাগ বাঙ্গালি সৈনিক ছিল। ব্যাটালিয়ান কমান্ডিং অফিসার ছিলেন লেঃ কর্ণেল রেজাউল জলিল তিনি ছিলেন সিলেট জেলার অধিবাসী। সিনিয়র টাইগার্স ১টি ঐতিহ্যবাহি ব্যটালিয়ান। ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধে শিয়ালকোটের খেমকানন সেক্টরে রয়েছে এই ব্যাটালি
প্রকাশ্যে ফিল্মি স্টাইলে জুয়েলার্স দোকানে ৩০০ ভরি স্বর্ণালংকার লুঠ

প্রকাশ্যে ফিল্মি স্টাইলে জুয়েলার্স দোকানে ৩০০ ভরি স্বর্ণালংকার লুঠ

খবরিকা ডেস্ক: গতাকাল সন্ধ্যায় মীরসরাই উপজেলার বারইয়ারহাট বাজারে বোমা পাটিয়ে একটি স্বর্ণের দোকান লুঠ করেছে দুর্বৃত্তরা । দুর্বৃত্তরা স্থানীয় শামীম জুয়েলার্স থেকে ৩০০ ভরি স্বর্ণ লুঠ করে নিয়ে যায়। সে জন্য আজ শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি)  সকাল থেকে বারইয়হাট বাজারে ব্যবসায়ীরা মানববন্দন কর্ম সূচীর আয়োজন করেন। ব্যবসায়ীরা মানববন্দনে দাবী করেন সিসি ক্যামেরায় দুর্বৃত্তদের সনাক্ত করে দ্রুত গ্রেপ্তার করে সঠিক বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে। মানববন্ধনে বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্বৃত্তরা প্রায় ৩০টি ককটেল বিষ্ফোরণ ও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে বলে ।  এত কেউ নিহত না হলেও ককটেলের আঘাতে আহত হয়েছেন শিশু সহ অন্তত ১০ জন। পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, মাগরিবের আযানের পর অন্যন্য ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা মসজিদে চলে যায়। ঠিক এই সময়

বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুরের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি

স্বাধীনতা যুদ্ধের অগ্রনায়ক বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী মোহাম্মদ হামিদুর রহমানের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি পালন হয়। প্রতিবছর নীরবে নিভৃতে তার পরিবার পালন করে আসছে জন্মদিন। ১৯৫৩ সালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খোর্দ্দ খালিশপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর পিতা আব্বাস আলী মন্ডল, মাতা মোসাম্মৎ কায়সুন্নেসা। তিনি খালিশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পরবর্তীকালে স্থানীয় নাইট স্কুলে সামান্য লেখাপড়া করেন। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখার জন্য তাকে বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবে ভূষিত করা হয়। মাত্র ১৮ বছর বয়সে শহীদ হওয়া হামিদুর রহমান সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ পদকপ্রাপ্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ। ১৯৭০ সাল। দেশ তখন স্বাধিকারের আন্দোলনে মুখরিত। ঠিক সেই সময় হামিদুর যোগ দিলেন সেনাবাহিনীর সিপাহী পদে। তার প্রথম ও শেষ ইউনিট ছিল ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট। সেনাবাহিনীতে ভর্তির পরই প্রশিক্ষণের জন্য তাঁকে পাঠানো হ

দীপন নেই, তবু বইমেলায় থাকছে জাগৃতি

খবরিকা ডেস্ক : এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ফয়সাল আরেফিন দীপনের প্রকাশনী জাগৃতি থাকবে। থাকবে নতুন বইও। তবে রাজধানীর লালমাটিয়ায় জঙ্গি হামলায় আহত প্রকাশক আহমেদুর রশিদ টুটুলের প্রকাশনী সংস্থা শুদ্ধস্বরের মেলায় থাকা নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। দিপনের বাবা অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক বলেন, ‘অমর একুশের গ্রন্থমেলায় জাগৃতি অংশ নেবে। মেলায় স্টলও থাকবে। নতুন কিছু বই প্রকাশ করা হবে। পুরনো বইও পাওয়া যাবে। আমরা চেষ্টা করছি সবকিছু গুছিয়ে ওঠার।’ তিনি বলেন, ‘দীপনের মৃত্যুতে আমাদের পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে, তা কখনও পুষিয়ে ওঠা সম্ভব নয়। তবে আমার ছেলের প্রতিষ্ঠানটি যেন বেঁচে থাকে সেজন্য বাবা হিসেবে চেষ্টা করছি। দীপনের শুভাকাঙ্ক্ষীরাও তাই চায়। জাগৃতি তার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাবে। দীপনের হত্যার পর আমরা মামলাও করতে চাইনি। কারণ, দেশের চলমান বিচার না হওয়া সংস্কৃতি। কিন্ত

দীপন হত্যার ময়নাতদন্ত রিপোর্টে

খবরিকা ডেস্ক: দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার জাগৃতি প্রকাশনীর কর্ণধার ফয়সাল আরেফিন দীপনের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এখন তাকে গোসল করানো হচ্ছে। এরপর তাকে কবি সুফিয়া কামাল হলে শিক্ষকদের আবাসিক বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হবে। ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান ড. কাজী মো. আবু সামাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘১০টা ৫ মিনিটে দীপনের ময়না তদন্ত শুরু হয়, ৩৫ মিনিট সময় লেগেছে। আমরা তার ঘাড়ে ৩টি গুরুতর জখম পেয়েছি। এরমধ্যে তার ঘাড়ের জখমটি ৪ ইঞ্চি গভীর ছিল। হাড়সহ কেটে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে কোনো ভারী ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়েছে।’ তিনি আরো জানান, এছাড়া তার শরীরে আরো তিনটি আঘাতের চিহ্ন আছে। সেগুলোও কোপানোর চিহ্ন, কিন্তু মাংস কাটেনি। তবে মাংস থেতলে গেছে। বিগত সময়ের খুনগুলোর সঙ্গে এ খুনের বেশ রয়েছে। দীপনকে মাটিতে শুইয়ে উপর্যুপরি কোপানো হয়েছিল বলেও জানান তিনি। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রা

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার সাল-২০১৫

জঙ্গি হামলার আশঙ্কার মধ্যে দিয়ে বছরের শেষদিনটি পার কেরেছে বাংলাদেশ গত ৩১ ডিসেম্বর। শুরু হয়েছে পেট্রল বোমার মধ্যে দিয়ে আর শেষ হয়েছে জঙ্গি হামলার মধ্যে দিয়ে। শুধু ২০১৫ সালে বাংলাদেশে ৩০টি জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এইসব জঙ্গি হামলায় দেশি-বিদেশি নাগরিক হত্যা, মসজিদে ও তাজিয়া মিছিলে বোমা হামলার পাশাপাশি পুলিশ হত্যাসহ অর্ধশতাধিক সশস্ত্র হামলার মাধ্যমে সক্রিয় হয়ে উঠে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনগুরোর কার্যক্রম। জঙ্গিদের টার্গেটে পরিণত হয় দেশের বিশিষ্ট নাগরিক, প্রকাশক, ব্লগার, ধর্মীয় নেতাসহ বিদেশি নাগরিকরাও। বছরজুড়ে এমপি, মন্ত্রীসহ, সাংস্কতিক ব্যক্তিত্বসহ দেশের বিশিষ্ট নাগরিকদের হত্যার হুমকি দিয়ে ইমেইল, মেইল, ম্যাসেজ পাঠিয়ে জঙ্গিদের তৎপরতা ছিল ২০১৫ সাল। দেশি জঙ্গি সংগঠনের নামের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসের নামে বাংলাদেশে জঙ্গিদের কার্যক্রমের তৎপরতা শুরু হয়। যদিও আমাদের দেশের এমপি মন্ত্র

অন্ধকারের বিরুদ্ধে আলোর জয় হবেই

খবরিকা ডেস্ক::জনপ্রিয় লেখক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, `দীপন আমার ঘনিষ্ঠজন, সে মুক্তচিন্তা আর মুক্তবুদ্ধির প্রসার চেয়েছিল তাই তাকে মৌলবাদী শক্তি হত্যা করেছে। এইভাবে খুন করে, আক্রমণ করে মুক্তচিন্তার স্রোতকে বন্ধ করা যাবে না। মুক্তবুদ্ধির প্রচার, প্রসার এবং চর্চা অব্যাহত থাকবেই। অন্ধকারের বিরুদ্ধে আলো জয়ী হবেই।` গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রগতিশীল লেখক-প্রকাশকদের ওপর অব্যাহত মৌলবাদী হামলা এবং জাগৃতির প্রকাশক দীপন হত্যার প্রতিবাদে এক প্রতিবাদী আলোক মিছিলে বক্তব্যকালে তিনি এসব কথা বলেন। `বিক্ষুব্ধ শাবি পরিবার` ব্যানারে শাবিপ্রবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীর যৌথ উদ্যোগে এই আলোক মিছিলে অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালসহ প্রগতিশীল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টায় বিক্ষুব্ধ শাবি পরিবারের উদ্যোগে এক প্রতিবাদী মৌন মি

মীরসরাইয়ে বিজয়া পুণর্মিলনী অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক : মীরসরাই জগদ্বীশ্বরী কেন্দ্রীয় কালী বাড়ী কমপ্লেক্সের উদ্যোগে ১১ নভেম্বর বুধবার দুপুর ১২টায় বিজয়া পূর্ণমিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিজয়া পুনর্মিলনী উপলে আলোচনা সভা ও প্রসাদের আয়োজন করা হয়। আলোচনা সভায় শ্রীশ্রী জগদ্বিশ্বরী কালী বাড়ী কমপ্লেক্স পরিচালনা পরিষদের সভাপতি সুদর্শন রায়ের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক জহরলাল নাথ অভি’র সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন চট্টগ্রাম জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি শ্যামল পালিত। অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য প্রদান করেন মীরসরাই উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি উত্তম কুমার শর্মা। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মীরসরাই উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার বনিক, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক অর্র্নিবাণ চৌধুরী রাজীব, সজল চন্দ্র শীল, রাজীব দাশ। এই সময় উপস্থিত ছিলেন, মীরসরাই উপজেলা জন্মাষ্টমী পরিষদের সভাপতি বাবু সুভ