Monday, November 18Welcome khabarica24 Online

মুক্তাঙ্গন

যে রাষ্ট্র সোহাগীদের বাঁচতে দেয় না- সুমন্দভাষিণী

যে রাষ্ট্র সোহাগীদের বাঁচতে দেয় না- সুমন্দভাষিণী

সুমন্দভাষিণী:: দুই ভাইয়ের এক বোন ছিল সে। বাবা-মা আদর করে তার নাম রেখেছিল সোহাগী। পুরো নাম সোহাগী জাহান তনু (১৯)। বন্ধুরা তনু নামেই চিনে। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের (সম্মান) ছাত্রী এবং একই কলেজের নাট্য সংগঠন ‘ভিক্টোরিয়া কলেজ থিয়েটারের (ভিসিটি) সদস্য ছিল এই তনু। এখন আর নেই। সে গত রোববার রাতে লাশ হয়ে গেছে। একটি স্বপ্নে বিভোর মেয়েকে ছিঁড়ে-ছুবড়ে খেয়ে ফেলেছে এই রাষ্ট্র। হ্যাঁ, আমি রাষ্ট্রই বলবো। কারণ যে রাষ্ট্র সাধারণের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়, একের পর এক দুর্নীতি, অবিচার-অনাচার-অত্যাচার-নির্যাতনের সংস্কৃতির ধারক-বাহক হয়, তখন এসব কিছুর জন্য রাষ্ট্রকেই দায়ী করবো আমি। এ কোন রাষ্ট্রের অধীনে আছি আমরা? যেখানে হাজার-কোটি টাকা লোপাট হয়ে যায়, অথচ নিজেদের ডিজিটাল ডিজিটাল বলে গলা ফাটাই, এ কোন রাষ্ট্র, যেখানে সরকার প্রধান পরিবেশ পদক নিয়ে এসে সুন্দরবন ধ্বংসে নৃত্যগীত শুরু

বাংলাদেশে ধর্ষণের মহোৎসব চলছে- আকাশ ইকবাল

আকাশ ইকবাল দেশে ধর্ষণের মহোৎসব শুরু হয়েছে মনে হয়। ইচ্ছে হয় এই এই দেশ ছেড়ে দূরে কোথাও ছলে যাই। থাকতে ইচ্ছে হয় না, বাঁচতে ইচ্ছে হয় না এমন একটা নোংরা দেশে। এই দিকে সরকার দেশে গণতন্ত্রের সুবতাস বয়, দেশ উন্নয়নের জ্বলে ভেসে যায়। দেশ নারীদের কে তার পূর্ণ অধিকার দিয়েছে। সরকার বার বার বলছে একমাত্র এই সরকার আমলে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এই সরকার আমলে নারী তার পূর্ণ অধিকার পেয়েছে। কিন্তু কোথায় তার অধিকার? এই দেখছি ধর্ষকদের তার নারী ধর্ষনের পূর্ণ অধিকার । যদি না পেতো তাহলে তাদের অন্যায়ের প্রতিরোধ করছে না কেন? বিচার করছে না কেন? আমি কিভাবে বলব আমার বাংলাদেশ তার নারীদের অধিকার দিয়েছে। গত কিছু মাস আগে ইরান সরকার একটি নির্দোষ মেয়েকে ফাঁসি দিয়ে দেয়। এদিকে মেয়েটির উপর নির্যাতন কারী বেঁছে যায়। আমি কি বলবোনা বাংলাদেশ আজ ইরান থেকে ও কম নয় । মানবাধিকার সংগঠনের হিসাব ও গণমাধ্যমের প্রকাশিত খবর থেকে জা
স্মৃতিবিজড়িত মুক্তিযুদ্ধের কয়েকটি দিনের স্মৃতিকথা

স্মৃতিবিজড়িত মুক্তিযুদ্ধের কয়েকটি দিনের স্মৃতিকথা

মেজর মোহাম্মদ মোস্তফার (অবঃ)বিএসএস-৭০৫ ঃ ১। ভয়াল মুক্তিযুদ্ধের সেই উত্তাল দিনগুলির-১ম দিন (একটি শোকাহত স্বরনীয় ঘটনা)- ১৯৭১ সালের ৩০শে মার্চ- যশোর সেনানিবাসে ১ম ইষ্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট (সিনিয়ার টাইগার) হতে বিদ্রোহ করে প্রাণে বেচে সম্মুুখ মুক্তিযুদ্ধ শুরু করি। যশোর সেনানিবাসে ১০৭ পদাতিক ব্রিগেডের অধীনে ১ম ইষ্ট বেঙ্গল সহ পাকিস্তানের ফ্রন্টিয়ার র্ফোস এবং বেলুচ রেজিমেন্টের দুইটি ব্যাটালিয়ান ছিল আরো ছিল আটিলারি, ইঞ্জিনিয়ার্স, সিগনাল ই-এম-ই, ফিল্ড এম্বুলেন্স, সাপ্লাই ও সিএমএইচ সহ অনেক ইউনিট। এই সকল ইউনিট বাঙ্গালি সৈনিকে ভরপুর ছিল। ১ম ইষ্ট বেঙ্গলে (সিনিয়ার টাইগার) শতভাগ বাঙ্গালি সৈনিক ছিল। ব্যাটালিয়ান কমান্ডিং অফিসার ছিলেন লেঃ কর্ণেল রেজাউল জলিল তিনি ছিলেন সিলেট জেলার অধিবাসী। সিনিয়র টাইগার্স ১টি ঐতিহ্যবাহি ব্যটালিয়ান। ১৯৬৫ সালের পাক-ভারত যুদ্ধে শিয়ালকোটের খেমকানন সেক্টরে রয়েছে এই ব্যাটালি
প্রকাশ্যে ফিল্মি স্টাইলে জুয়েলার্স দোকানে ৩০০ ভরি স্বর্ণালংকার লুঠ

প্রকাশ্যে ফিল্মি স্টাইলে জুয়েলার্স দোকানে ৩০০ ভরি স্বর্ণালংকার লুঠ

খবরিকা ডেস্ক: গতাকাল সন্ধ্যায় মীরসরাই উপজেলার বারইয়ারহাট বাজারে বোমা পাটিয়ে একটি স্বর্ণের দোকান লুঠ করেছে দুর্বৃত্তরা । দুর্বৃত্তরা স্থানীয় শামীম জুয়েলার্স থেকে ৩০০ ভরি স্বর্ণ লুঠ করে নিয়ে যায়। সে জন্য আজ শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি)  সকাল থেকে বারইয়হাট বাজারে ব্যবসায়ীরা মানববন্দন কর্ম সূচীর আয়োজন করেন। ব্যবসায়ীরা মানববন্দনে দাবী করেন সিসি ক্যামেরায় দুর্বৃত্তদের সনাক্ত করে দ্রুত গ্রেপ্তার করে সঠিক বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে। মানববন্ধনে বক্তব্য প্রদান করেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুর্বৃত্তরা প্রায় ৩০টি ককটেল বিষ্ফোরণ ও কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে বলে ।  এত কেউ নিহত না হলেও ককটেলের আঘাতে আহত হয়েছেন শিশু সহ অন্তত ১০ জন। পুলিশ, প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, মাগরিবের আযানের পর অন্যন্য ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা মসজিদে চলে যায়। ঠিক এই সময়

বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুরের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি

স্বাধীনতা যুদ্ধের অগ্রনায়ক বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী মোহাম্মদ হামিদুর রহমানের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি পালন হয়। প্রতিবছর নীরবে নিভৃতে তার পরিবার পালন করে আসছে জন্মদিন। ১৯৫৩ সালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খোর্দ্দ খালিশপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর পিতা আব্বাস আলী মন্ডল, মাতা মোসাম্মৎ কায়সুন্নেসা। তিনি খালিশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পরবর্তীকালে স্থানীয় নাইট স্কুলে সামান্য লেখাপড়া করেন। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখার জন্য তাকে বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবে ভূষিত করা হয়। মাত্র ১৮ বছর বয়সে শহীদ হওয়া হামিদুর রহমান সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ পদকপ্রাপ্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ। ১৯৭০ সাল। দেশ তখন স্বাধিকারের আন্দোলনে মুখরিত। ঠিক সেই সময় হামিদুর যোগ দিলেন সেনাবাহিনীর সিপাহী পদে। তার প্রথম ও শেষ ইউনিট ছিল ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট। সেনাবাহিনীতে ভর্তির পরই প্রশিক্ষণের জন্য তাঁকে পাঠানো হ

দীপন নেই, তবু বইমেলায় থাকছে জাগৃতি

খবরিকা ডেস্ক : এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় ফয়সাল আরেফিন দীপনের প্রকাশনী জাগৃতি থাকবে। থাকবে নতুন বইও। তবে রাজধানীর লালমাটিয়ায় জঙ্গি হামলায় আহত প্রকাশক আহমেদুর রশিদ টুটুলের প্রকাশনী সংস্থা শুদ্ধস্বরের মেলায় থাকা নিয়ে অনিশ্চিয়তা দেখা দিয়েছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। দিপনের বাবা অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হক বলেন, ‘অমর একুশের গ্রন্থমেলায় জাগৃতি অংশ নেবে। মেলায় স্টলও থাকবে। নতুন কিছু বই প্রকাশ করা হবে। পুরনো বইও পাওয়া যাবে। আমরা চেষ্টা করছি সবকিছু গুছিয়ে ওঠার।’ তিনি বলেন, ‘দীপনের মৃত্যুতে আমাদের পরিবারের যে ক্ষতি হয়েছে, তা কখনও পুষিয়ে ওঠা সম্ভব নয়। তবে আমার ছেলের প্রতিষ্ঠানটি যেন বেঁচে থাকে সেজন্য বাবা হিসেবে চেষ্টা করছি। দীপনের শুভাকাঙ্ক্ষীরাও তাই চায়। জাগৃতি তার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাবে। দীপনের হত্যার পর আমরা মামলাও করতে চাইনি। কারণ, দেশের চলমান বিচার না হওয়া সংস্কৃতি। কিন্ত

দীপন হত্যার ময়নাতদন্ত রিপোর্টে

খবরিকা ডেস্ক: দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার জাগৃতি প্রকাশনীর কর্ণধার ফয়সাল আরেফিন দীপনের ময়না তদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। এখন তাকে গোসল করানো হচ্ছে। এরপর তাকে কবি সুফিয়া কামাল হলে শিক্ষকদের আবাসিক বাসভবনে নিয়ে যাওয়া হবে। ঢামেকের ফরেনসিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান ড. কাজী মো. আবু সামাহ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘১০টা ৫ মিনিটে দীপনের ময়না তদন্ত শুরু হয়, ৩৫ মিনিট সময় লেগেছে। আমরা তার ঘাড়ে ৩টি গুরুতর জখম পেয়েছি। এরমধ্যে তার ঘাড়ের জখমটি ৪ ইঞ্চি গভীর ছিল। হাড়সহ কেটে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে কোনো ভারী ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়েছে।’ তিনি আরো জানান, এছাড়া তার শরীরে আরো তিনটি আঘাতের চিহ্ন আছে। সেগুলোও কোপানোর চিহ্ন, কিন্তু মাংস কাটেনি। তবে মাংস থেতলে গেছে। বিগত সময়ের খুনগুলোর সঙ্গে এ খুনের বেশ রয়েছে। দীপনকে মাটিতে শুইয়ে উপর্যুপরি কোপানো হয়েছিল বলেও জানান তিনি। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় রা

বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার সাল-২০১৫

জঙ্গি হামলার আশঙ্কার মধ্যে দিয়ে বছরের শেষদিনটি পার কেরেছে বাংলাদেশ গত ৩১ ডিসেম্বর। শুরু হয়েছে পেট্রল বোমার মধ্যে দিয়ে আর শেষ হয়েছে জঙ্গি হামলার মধ্যে দিয়ে। শুধু ২০১৫ সালে বাংলাদেশে ৩০টি জঙ্গি হামলার ঘটনা ঘটেছে। এইসব জঙ্গি হামলায় দেশি-বিদেশি নাগরিক হত্যা, মসজিদে ও তাজিয়া মিছিলে বোমা হামলার পাশাপাশি পুলিশ হত্যাসহ অর্ধশতাধিক সশস্ত্র হামলার মাধ্যমে সক্রিয় হয়ে উঠে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনগুরোর কার্যক্রম। জঙ্গিদের টার্গেটে পরিণত হয় দেশের বিশিষ্ট নাগরিক, প্রকাশক, ব্লগার, ধর্মীয় নেতাসহ বিদেশি নাগরিকরাও। বছরজুড়ে এমপি, মন্ত্রীসহ, সাংস্কতিক ব্যক্তিত্বসহ দেশের বিশিষ্ট নাগরিকদের হত্যার হুমকি দিয়ে ইমেইল, মেইল, ম্যাসেজ পাঠিয়ে জঙ্গিদের তৎপরতা ছিল ২০১৫ সাল। দেশি জঙ্গি সংগঠনের নামের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন আইএসের নামে বাংলাদেশে জঙ্গিদের কার্যক্রমের তৎপরতা শুরু হয়। যদিও আমাদের দেশের এমপি মন্ত্র