Saturday, December 15Welcome khabarica24 Online

প্রথম পাতা

বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুরের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি

স্বাধীনতা যুদ্ধের অগ্রনায়ক বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী মোহাম্মদ হামিদুর রহমানের জন্মদিন গতকাল ২ ফেব্রুয়ারি পালন হয়। প্রতিবছর নীরবে নিভৃতে তার পরিবার পালন করে আসছে জন্মদিন। ১৯৫৩ সালে ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খোর্দ্দ খালিশপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তাঁর পিতা আব্বাস আলী মন্ডল, মাতা মোসাম্মৎ কায়সুন্নেসা। তিনি খালিশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং পরবর্তীকালে স্থানীয় নাইট স্কুলে সামান্য লেখাপড়া করেন। একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধে অসামান্য অবদান রাখার জন্য তাকে বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবে ভূষিত করা হয়। মাত্র ১৮ বছর বয়সে শহীদ হওয়া হামিদুর রহমান সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ পদকপ্রাপ্ত শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ। ১৯৭০ সাল। দেশ তখন স্বাধিকারের আন্দোলনে মুখরিত। ঠিক সেই সময় হামিদুর যোগ দিলেন সেনাবাহিনীর সিপাহী পদে। তার প্রথম ও শেষ ইউনিট ছিল ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্ট। সেনাবাহিনীতে ভর্তির পরই প্রশিক্ষণের জন্য তাঁকে পাঠানো হ

মীরসরাইয়ে পাক্ষিক খবরিকার উদ্যোগে আদিবাসীদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ

  নিজস্ব প্রতিবেদক: গতকাল ১ ফেব্রুয়ারি পাক্ষিক খবরিকার উদ্যেগে মীরসরাই ত্রিপুরা পাড়ায় প্রায় একশত পরিবারকে শীতবস্ত্র ( কম্বল ) বিতরণ করা হয়। সোমবার অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের সদস্যদের শীতের প্রকপ হতে রক্ষা করতে পাক্ষিক খবরিকা এ কার্যক্রম সম্পন্ন করে। শীতবস্ত্র বিতরন প্রসঙ্গে খবরিকা সম্পাদক মাহবুব পলাশ বলেন, “ত্রিপুরা জনগোষ্ঠী পাহাড়ে থাকে বলে তাদের সমতল ভুমির মানুষ অবহেলা করে। এমনি তাদের উপরে অত্যাচার করে। ত্রিপুরা মেয়েদের কে নির্যাতন করে। খবরিকা ত্রিপুরা আদিবাসীদের সুখে দুখে অতীতেও ছিলো, বর্তমানেও আছে এবং ভবিৎষ্যতেও থাকবে।” এছাড়া ত্রিপুরা পাড়ার বাসিন্দা শান্তি ত্রিপুরা বলেন, “আমাদের এই পাড়ায় এই প্রথম কেউ আমাদের কম্বল দিয়ে সাহায্য করেছে। তাও একটা পত্রিকা। আমাদের এই ত্রিপুরা পাড়ার পক্ষ থেকে পাক্ষিক খবরিকাকে শুভেচ্ছা।” শীতবস্ত্র বিতরণ কালে উপস্থিত ছিলেন পাক্ষিক খবরিকার সম্প

বাংলাদেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের সবচেয়ে বড় মেলা অমর একুশে বইমেলা। প্রতিবছর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে চলে বাঙালির প্রাণের এই মেলা। রাজধানী ঢাকাতে এ মেলার আয়োজন করা হলেও সারাদেশের বইপ্রেমী, জ্ঞানপিপাসু, মুক্তচিন্তার মানুষগুলো সারাবছর অধীর আগ্রহে থাকেন এ মেলার জন্য। এছাড়া পরপর গত দুইবছর রাজনৈতিক অস্থিরতায় বইমেলার প্রকৃত আমেজ থেকে বঞ্চিত হতে হয়েছে বইপ্রেমীদের। ফলে এবারের বইমেলায় বইপ্রেমীদের ঢল নামবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কাল বাদ পরশু শুরু হচ্ছে এই মেলা। মেলার সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে প্রায় শেষ করা হয়েছে। এখন চলছে শেষ মুহূর্তের আয়োজন। এরইমধ্যে মেলার বিষয়ে আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক। তিনি জানালেন, এবারে যে পরিসরে মেলার আয়োজন করা হচ্ছে তা বইমেলার ইতিহাসে আগে কখনো হয়নি। এই মেলা দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় মেলা হতে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ড. শামসুজ্জামান খান।

  বাংলাদেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের সবচেয়ে বড় মেলা অমর একুশে বইমেলা। প্রতিবছর বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে চলে বাঙালির প্রাণের এই মেলা। রাজধানী ঢাকাতে এ মেলার আয়োজন করা হলেও সারাদেশের বইপ্রেমী, জ্ঞানপিপাসু, মুক্তচিন্তার মানুষগুলো সারাবছর অধীর আগ্রহে থাকেন এ মেলার জন্য। এছাড়া পরপর গত দুইবছর রাজনৈতিক অস্থিরতায় বইমেলার প্রকৃত আমেজ থেকে বঞ্চিত হতে হয়েছে বইপ্রেমীদের। ফলে এবারের বইমেলায় বইপ্রেমীদের ঢল নামবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।      কাল বাদ পরশু শুরু হচ্ছে এই মেলা। মেলার সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে প্রায় শেষ করা হয়েছে। এখন চলছে শেষ মুহূর্তের আয়োজন। এরইমধ্যে মেলার বিষয়ে আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলা একাডেমি মহাপরিচালক। তিনি জানালেন, এবারে যে পরিসরে মেলার আয়োজন করা হচ্ছে তা বইমেলার ইতিহাসে আগে কখনো হয়নি।       এই মেলা দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে বড় মেলা হতে যাচ্ছে বলেও জানিয়েছেন বা

কামদুনি গণধর্ষণ কাণ্ডে ৩ জনের ফাঁসি এবং ৩ জনের আমৃত্যু যাবজ্জীবন সাজা ঘোষণা করলেন বিচারক

  ডেস্ক: কামদুনির ঘটনা কী বিরলের মধ্যে বিরলতম অপরাধ? শনিবার এ প্রশ্ন নিয়েই সরগরম রইল এজলাস। তবে অভিযুক্তপক্ষের সব যুক্তি খারিজ করে বিচারক রায় দিলেন- দুহাজার তেরোর সাতই জুন  বিরলের মধ্যে বিরলতম অপরাধই হয়েছিল কামদুনির আটবিঘা জমিতে। অভিযুক্তদের ছজনকে বৃহস্পতিবারই দোষী সাব্যস্ত করে আদালত। বিচারক জানান,  এ মামলায় আর বেশি সওয়াল জবাবের প্রশ্ন নেই।  বিচার্য বিষয় একটাই,কামদুনিতে গণধর্ষণ করে খুনের ঘটনা কী বিরলের মধ্যে বিরলতম অপরাধ?  বিরলের মধ্যে বিরলতম? শনিবার ঘণ্টা খানেকের  সওয়াল। পুরো সময়টাই এজলাসে তর্ক চলে এই বিষয়টি নিয়েই।  প্রথমেই সওয়াল করতে ওঠেন আসামিপক্ষের আইনজীবী ফিরোজ এডুলজি। তিনি বলেন, সর্বোচ্চা সাজা আদালত দিতেই পারে আদালত। তবে এক্ষেত্রে যেন জনমতের চাপে পড়ে কোনও সিদ্ধান্ত না নেয় আদালত। কামদুনির ঘটনাকে বিরলের মধ্যে বিরলতম বলতে চাননি তিনি।  তিনি বলেন,  আদালত যেন সবদিক বিচার

৩১ মার্চ ১৯৫ পাকিস্তানি সেনার প্রতীকী বিচার

খবরিকা ডেস্ক: সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আগামী ৩১ মার্চ ১৯৫ পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীর প্রতীকী বিচার করা হবে বলে জানিয়েছেন নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। আজ বুধবার সকালে মতিঝিলের বক চত্বরে শ্রমিক-কর্মচারী-পেশাজীবী-মুক্তিযোদ্ধা সমন্বয় পরিষদের প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। শাহজাহান খান বলেন, ৩১ মার্চ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাকিস্তানের ১৯৫ জন যুদ্ধাপরাধীর প্রতীকী বিচার হবে। আর সেদিনের বিচারিক কার্যক্রমে বিচারকও থাকবেন। তিনি আরও বলেন, বাংলার মাটিতে পাকিস্তানিদের বিচার করবো। তাদের চরদের নির্মূল করে ছাড়বো। স্বাধীনতা বিরোধী কেউ দেশে রাজনীতি করার সুযোগ পাবে না। এদিকে, আয়োজক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে মতিঝিলের বক চত্বর থেকে একটি শোভাযাত্রা বের হয়ে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, সংসদ সদস্য শিরিন আখতার, বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন ও শ্রমিক ফেডারেশনের

বাংলাদেশে কোটিপতির সংখ্যা কত?

খবরিকা ডেস্ক: বাংলাদেশে কোটিপতির সংখ্যা কত তা নিয়ে নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া দুষ্কর। তবে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি পরিসংখ্যান প্রকাশ করে, যেখানে ব্যাংকে কোটি টাকা জমা আছে এমন একাউন্টধারীর মোট সংখ্যা প্রকাশ করা হয়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, ১৯৭২ সালে দেশে কোটিপতি অ্যাকাউন্টধারী ছিলো মাত্র ৫ জন। ১৯৭৫ সালের ডিসেম্বর শেষে এ সংখ্যা ৪৭-এ পৌঁছে, যা ১৯৮০ সালের ডিসেম্বরে ছিল ৯৮ জন। তখন তাদের আমানতের পরিমাণ ছিল সামগ্রিক ব্যাংকিং খাতের মোট আমানতের ১০ শতাংশ। এরপর ১৯৯০ সালের ডিসেম্বরে কোটিপতির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৯৪৩-এ। এরই ধারাবাহিকতায় ১৯৯৬ সালের জুনে কোটিপতির মোট সংখ্যা ছিল ২,৫৯৪ এবং ২০০১ সালের সেপ্টেম্বর শেষে কোটিপতির মোট সংখ্যা দাঁড়ায় ৫,১৬২ তে। এরপর অক্টোবর ২০০১ থেকে ডিসেম্বর ২০০৬ পর্যন্ত কোটিপতির সংখ্যা বেড়েছিল ৮,৮৮৭ এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ২ বছরে বেড়েছিল ৫,১১৪। আর বর্তমানে এ সংখ্যাটি

শিক্ষকদের ক্লাসে ফিরতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

খবরিকা ডেস্ক: দাবি মেনে নেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষকদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার (১৮ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি ফেডারেশন নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান। বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম বলেন, শিক্ষকদের ৩ নম্বর গ্রেড থেকে ১ নম্বর গ্রেডে উন্নীতের জন্য পদোন্নতির সোপান তৈরির কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি ১ নম্বর গ্রেডে যেতে অন্যান্য দাবি দাওয়াও বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর এমন আশ্বাসের প্রেক্ষিতে শিক্ষক নেতা মাকসুদ কামাল বাংলানিউজকে বলেন, আশ্বাস দিতেই তিনি ডেকেছিলেন। তিনি বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কথা বলেছেন। আমাদের ক্লাসে ফিরে যেতে বলেছেন। এ বিষয়ে আমরা আগামীকাল মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) সকালে ফোরামের সভা করে

জীবনীর মঞ্চে আপ্লুত মাশরাফি

খবরিকা ডেস্ক: মাশরাফি বিন মুর্তজার ক্যারিয়ার জুড়েই আছে নিজের শরীরের সঙ্গে নিত্য লড়াইয়ের গল্প। চোট-জর্জরিত, ঝঞ্ঝা-বিক্ষুব্ধ সেই সময়গুলোতে পেছন ফিরে তাকিয়ে আবেগআপ্লুত হলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। উপলক্ষটা ছিল মাশরাফির জীবনী বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান। রূপকথাকে হার মানানো মাশরাফির জীবন দুই মলাটে লিপিবদ্ধ করেছেন ক্রীড়া সাংবাদিক ও লেখক দেবব্রত মুখোপাধ্যায়। বইয়ের নামও ‘মাশরাফি’। মাশরাফির পরিবার, নড়াইলে দূরন্ত কৌশিকের বেড়ে ওঠা, চিত্রা নদীর সঙ্গে মিতালি, নড়াইল এক্সপ্রেস হয়ে আবির্ভাব, মাঠের ভেতরে-বাইরে তার নাটকীয় ও রোমাঞ্চকর জীবন উঠে এসেছে এই বইয়ে। মাশরাফির জীবনী ভিত্তিক বই এটিই প্রথম। সোমবার খুলনায় টিম হোটেলেই মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠান পরিণত হয়েছিল দারুণ এক আনন্দ আড্ডায়। আয়োজনে ছিলেন জিম্বাবুয়ে সিরিজের বাংলাদেশ স্কোয়াডের সব ক্রিকেটার ও কোচিং স্টাফের সবাই। অনুষ্ঠানের আকর্ষণীয় এক অধ্যায় ছিল ব্যত