Wednesday, May 27Welcome khabarica24 Online

কবিতা ও গল্প

হাতছানি দেয় ছোট্ট বেলা : চন্দ্রশিলা ছন্দা

হাতছানি দেয় ছোট্ট বেলা : চন্দ্রশিলা ছন্দা

হাতছানি দেয় ছোট্ট বেলা একটি সবুজ মাঠ মাঠের শেষে স্বপ্নে আঁকা ছিল নদীর ঘাট। মাঠ পেরিয়ে ঘাট পেরিয়ে ছিল তেপান্তর তেপান্তরে মন ছুটে যায় কাঁদে যে অন্তর। মাঠটি জুড়ে কত স্মৃতি খেলা ভুরি ভুরি ছি কুত কুত, কানামাছি আরও রুমাল চুরি খেলার ছলে আছড়ে পড়া গড়াগড়ি ধুলায় দিনের শেষে সন্ধ্যা হলে ফিরতো পাখি কুলায়। আমার সে মাঠ আমার উঠোন প্রাণ জুড়ানো গাঁ। তোর বুকেও উঠছে দালান যন্ত্র দানবটা! আমার সে মাঠ খোলা আকাশ ইচ্ছে ডানার ঘুড়ি ছোট্ট বেলার সে মাঠ আজও করে যে ঘুম চুরি। হালখাতা আর বোশেখ মেলা, মাঠ জুড়ে উৎসব কোথায় যেন হারিয়ে গেলো কোথায় গেলো সব? কাঁচপোকা আর সাঁঝ জোনাকি দে না খুঁজে ভাই কাঁচামিঠে শৈশব আমার, আবার পেতে চাই। মাঠটি ছিল বর্ণমালা, আমার প্রথম পাঠ খুঁজছি আমি হারিয়ে ফেলা ছোট্ট বেলার মাঠ।
প্রতীক্ষা  :  শিউলি চৌধুরী

প্রতীক্ষা : শিউলি চৌধুরী

হঠাৎ এক দুপুরে শুনশান চৌরাস্তায় সামনে পড়ে গেছি তোমার। এমন দু:সময়ে তো তোমার সাথে দেখা মিলবে না আমার ! কারন বাইরে যাওয়া বারণ আছে আমার। করোনা নামক এ ব্যাধি সংক্রামক, যা বাতাসে ঘুরে বেড়ায়, তাই সংক্রমন পরিহারে আমরা থাকব যার যার ঘরে। জানি এ ঝড় নেমে যাবে একদিন তুমি আমার অপেক্ষায় থেকো, কেমন। আর আমি প্রতীক্ষায় থাকব তোমার। তোমার জন্যে ঠাঁই দাঁড়িয়ে থাকব অনড় বিশ্বাসে সেই শিরিস তলায়। যে বৃক্ষ অনন্তকাল ধরে যোগ্য পথিকের জন্যে প্রতীক্ষমান। আমি বিশ্বাস করি তোমায়, চলো আমরা করোনা মুক্ত হলে প্রকৃতির নির্মল পরিবেশে ঘুরে বেড়াই, আর হাতে হাত রাখি পরম মমতা আর ভালবাসায়।
প্রিয় বাবা : মনির উদ্দিন মান্না

প্রিয় বাবা : মনির উদ্দিন মান্না

তোমার শেষ ইচ্ছে টুকু পূরন হলো না বাবা জীবন পথের রূঢ় বাস্তবতায় সেচ্ছায় হেরে গেলাম আমি। টেলিফোনে কথা হয় না সালাম বিনিময়ে এখন কৌশলাদি জানতে চেয়ে প্রশ্ন করা হয়না কখনো। কতো স্মৃতি কতো কথা ক্ষণ সময়ে ভেসে উঠে জীবন যুদ্ধের কঠিন বাস্তবতা শেষ বিদায়ে কাঁদায় নীরবে। এক‌টি বছর পেরিয়ে গেলো যেতে পারিনি মায়ের কাছে মমতাময়ী মা চেয়ে আছে আদরের ছেলেকে কাছে পেতে। আদর্শ বাবা তুমি আমার গর্বে উচ্চ শির তরান্বিত মা আমার প্রার্থনায় মগ্ন বেহেস্ত মাঙ্গে তোমার জন্য। তোমার হাত ধরে চলতে শিখেছি শিখেছি জীবন চলার সুপরামর্শ ইসলামী বিধিমালা মেনে চলতে সদা উদ্বুদ্ধ করতে বীরের মতোই। আল্লাহ তোমার সফল মঙ্গল করুক ভালো থেকো ওপারে বাবা আমাদের দোয়া তোমার সাথে রোজ হাশরে দেখা হলে এপারের মতোই সাথে রেখো।
কাঁচা ধানে মই : জেসমিন সুলতানা চৌধুরী

কাঁচা ধানে মই : জেসমিন সুলতানা চৌধুরী

হায়, কি দিনকাল এলোরে এই আমার বঙ্গ দেশে! কাস্তে হাতে নেতা-নেত্রী পল্লী চাষির বেশে। গেদুচাচা বলে কথা মাথায় হাতটা দিয়ে, ফটো রীতি দেশের লোককে কোথা এলো নিয়ে। রাজনীতি যে চলে এলো পাকা ধানের ক্ষেতে, ষোল আনা ভণ্ডামি ভাই সস্তা বাহবা পেতে। ধান কাটে ঐ কয়েক, ছবি তোলে জনা দশেক, দলেবলে পুণ্য কামাই মাড়ায় জনা শতেক। চাষির ক্ষতি হোক না অতি কিইবা যায় আর আসে ত্রাণের চালে পেট ভরে না কাঁচা ধান ও নাশে।
চন্দ্রশিলা ছন্দা’র দুটি কবিতা  : প্রকৃতির প্রতিশোধ

চন্দ্রশিলা ছন্দা’র দুটি কবিতা : প্রকৃতির প্রতিশোধ

এই যে আকাশ ভাগাভাগি কাঁটাতারে জমিন ঘেরা জবরদখল খবরদারিতে ক্ষমতাধর ব্যবসায়ীর দল এই যে তোমাদের ঔদ্ধত্যের সীমাপরিসীমা ছাড়িয়ে যাওয়া কণ্ঠনালী কোন ক্ষমতায় ঘুঘু পাখি বাঁধলো বাসা ! বেশ তো চলছিল মানবতার কথা বেচে কিনে কোন সে অদৃশ্য শক্তি শুষে নিচ্ছে বাতাস কার ঋণে কিসের ঋণে! দেখো লাশের গন্ধে নিরবে কাঁদছে মানুষ রাতজাগা কুকুর হয়ে ক্ষয়ে যাচ্ছে লক্ষ কোটি প্রাণ হয়তো নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে অমানুষের পাপে ধাপে ধাপে এগোবে ক্লান্ত পৃথিবী মৃত নক্ষত্রের পথে পৃথিবী ভুগছে দেখো ভীষণ অসুখ কোথায় যাবে তুমি, কোন মহাদেশে? ........................................................... যদি গোলাপ চুরি হয় ............ তোমার পায়ের নিচে গাঢ় সবুজ গালিচা পরনে সূর্য ছাপা সৌখীন শাড়ি সেখানে পাল তোলা নৌকা বাতাস ঝিরিঝিরি,মাঝির ভাটিয়ালী আমার আত্মজার আকাশে মেঘের আনাগোনা যদি লুটে নেয় দশানন দি
ফাঁসি  : নকুল চন্দ্র উকিল

ফাঁসি : নকুল চন্দ্র উকিল

প্রেমের দায়ে জেল খাটিলাম পরলাম হতকড়া, শত আঘাত সহ্য করে তবু তোমায় চেয়েছিলাম। না বুঝলে তুমি আমায় না বুঝলো বিচারক বিনা দোষে দোষী আমি শাস্তি হলো আরোপ। মন চুরির অভিযোগে অভিযুক্ত আমি শাস্তি হবে হয়তো ফাঁসি, তবু তোমার টলবে না মন কাঁদবে জগৎ বাসী। ফাঁসির দড়ি গলায় নিয়ে বলবো তোমার নাম রাত বারোটায় জল্লাদীয় নিবে আমার জান। শান্ত দেহ থাকবে রয়ে পড়ে শশ্নান ঘাটে তুমি হয়তো থাকবে তখন বাসর ঘরের খাটে। ভালোবাসার অপরাধে পৃথিবী দিলো বিদায় চিতায় পুড়িলো ভালোবাসা হলাম আমি ছাই।
মানবতার কবি শ্রদ্ধেয় ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি : মনির উদ্দিন মান্না

মানবতার কবি শ্রদ্ধেয় ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি : মনির উদ্দিন মান্না

উৎসর্গঃ- জাতীয় কবিতা মঞ্চ,সংযুক্ত আরব আমিরাত কেন্দ্রীয় কমিটির প্রধান পৃষ্টপোষক ও মীরসরাই সমিতি,সংযুক্ত আরব আমিরাত এর সভাপতি, শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি। হে মানবতার কবি, আপনি তো কবি নয়! মহাকবি সর্বদা আহব্বান জানান কোরআন হাদিসের আলোকে জীবন গড়ার হজ্ব ব্রত পালন যাকাত প্রদানে উদ্বুদ্ধ করা রাসুল সাঃ আঃ এর নির্দেশিত পথে জীবন পরিচালনা করে মানব সেবায় কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছার তাই আমি বলি মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সরকার কতৃক সন্মান স্বরূপ স্বপরিবারে গোল্ডেন ভিসা প্রাপ্তি প্রবাসীদের অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছে কবি শুধু তা নয় বাংলাদেশ সরকার কতৃক বৈধভাবে স্বদেশে রেমিটেন্স পাঠিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক রেমিট্যান্স অ্যাওয়ার্ড, চট্টগ্রাম অঞ্চলে সর্বোচ্চ (প্রথম) রেমিটেন্স, সন্মাননা, সি আই পি খেতাব অর্জন তাই আমি বলি মানবতার কবি ফখরুল ইসলাম খান সি আই পি
মে দিবস : হামিমা জামিল রুমা

মে দিবস : হামিমা জামিল রুমা

পৃথিবীতে প্রতিটা মানুষই শ্রমিক আর প্রতিটা কাজই শ্রমের বিনিময়ে হয় কাজ তো কাজই আর প্রতিটা কাজের প্রতি ভালোবাসাটাও একই। প্রতিটা কাজ হয় সম্মান ও আন্তরিকতা দিয়ে প্রতিটা কাজের পেছনে থাকে সুষ্ঠু পরিকল্পনা, আর প্রতিটা পরিকল্পনার পিছনে থাকে একটি করে স্মৃতিময় গল্পের কাহিনী। তাইতো প্রচুর ঘাম ও শ্রম দিয়ে করা কাজগুলোর প্রতি থাকে অন্যরকম ভালোবাসার একটা মায়া। মায়ার এই পৃথিবীতে হাজার ভাঙাগড়া গল্পের সৃষ্টি হয় শ্রমিকের শ্রমের বিনিময়ে , কাজের প্রতি আন্তরিকতা ও অটুট ভালোবাসার কারণেই পৃথিবী আজ এত সমৃদ্ধ। তারাইতো আসল শ্রমিক যারা এক একটি ইট আর বালুকণা দিয়ে তৈরি করছে বড় বড় দালান তারাইতো আসল শ্রমিক যারা মাটির বুকে ফসল ফলিয়ে খাবারের যোগান করে দেয়। তারাইতো আসল শ্রমিক যারা দিনরাত তাদের শ্রম দিয়ে গার্মেন্টসে কাজ করে বস্ত্রের যোগান দেয়। শ্রমের মাঠে প্রতিটা মানুষই উপযুক্ত শ্রমিক, এখানে কোনো