Wednesday, September 20Welcome khabarica24 Online

আন্তর্জাতিক

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের কাছ থেকে কোনো সহায়তা প্রত্যাশা করে না বাংলাদেশ’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ট্রাম্পের কাছ থেকে কোনো সহায়তা প্রত্যাশা করে না বাংলাদেশ’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, রোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যায় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছ থেকে কোনো সহায়তা প্রত্যাশা করে না বাংলাদেশ। কারণ এ ইস্যুতে ট্রাম্পের মনোভাব তিনি জানেন।সোমবার রয়টার্সকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে নিজ দেশের এ অবস্থানের কথা জানান শেখ হাসিনা। জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে স্থানীয় সময় রোববার যুক্তরাষ্ট্রে পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। পরের দিন সোমবার জাতিসংঘের সংস্কার নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্প আয়োজিত এক বৈঠকে অংশ নেন তিনি। পরে এ নিয়ে রয়টার্সের সঙ্গে আলাপকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিষয়ে ট্রাম্পের সঙ্গে কথা বলেছেন। আলাপকালে কয়েক মিনিটের জন্য তিনি ট্রাম্পকে আটকেও দিয়েছেন। রয়টার্সকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‘তিনি (ট্রাম্প) শুধু জিজ্ঞাসা করেছেন, ‘বাংলাদেশের অবস্থা কী?’ আমি বলেছি, খুব ভালো চলছে, তবে মিয়ানমার থেকে আসা শরণা
বাংলাদেশে প্রতিদিন ১৮ হাজার রোহিঙ্গা ঢুকেছে : জাতিসংঘ

বাংলাদেশে প্রতিদিন ১৮ হাজার রোহিঙ্গা ঢুকেছে : জাতিসংঘ

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সাম্প্রতিক সহিংসতা শুরুর পর প্রতিদিন গড়ে ১৮ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে ঢুকেছে। শনিবার এক বিবৃতিতে জাতিসংঘ জানিয়েছে, ২৫ আগস্ট রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সেনাবাহিনী অভিযান শুরু করার পর এ পর্যন্ত ৪ লাখ ৯ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে। এ হিসাবে গড়ে প্রতিদিন বাংলাদেশে ঢুকেছে ১৮ হাজার রোহিঙ্গা। আলজাজিরা অনলাইনের এক খবরে এ তথ্য জানানো হয়েছে। খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের মিয়ানমার সীমান্তবর্তী কক্সবাজার জেলায় আগেই আশ্রয় নিয়ে আছে ৩ লাখের বেশি রোহিঙ্গা। এরই মধ্যে নতুন করে রোহিঙ্গাদের ঢল নামায় আশ্রয়প্রত্যাশীদের সার্বিক পরিস্থিতি নাজুক হয়ে পড়ছে। আলজাজিরার খবরে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউ ইয়র্কের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সাধারণ অধিবেশনে তিনি রোহিঙ্গা পরিস্থিত
গরিবের মোটা চাল : এক বছরে দাম বেড়েছে ৪৩ শতাংশ

গরিবের মোটা চাল : এক বছরে দাম বেড়েছে ৪৩ শতাংশ

নিউজ,ডেস্ক :বাজারে মোটা চালের দামও গরিব মানুষের নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে। সরকারি প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) দেয়া আজকের মূল্যতালিকা অনুসারে গত বছর একই দিন অর্থাৎ ১৫ সেপ্টেম্বর প্রতি কেজি মোটা চালের মূল্য ছিল ৩৩ টাকা থেকে ৩৬ টাকা। এক বছর পর আজ একই দিন প্রতি কেজি মোটা চালের মূল্য বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়িয়েছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকা। খোদ সরকারি টিসিবির তথ্য বলছে, রাজধানীর বাজারে গত বছরের একই সময়ের তুলনায় মোটা চালের দাম এখন ৪৩ শতাংশ বেশি। আর্থিক অসঙ্গতির কারণে অনিচ্ছা সত্ত্বেও গরিব মানুষ এতদিন সস্তা দামের স্বর্ণা/চায়না ইরি প্রজাতির মোটা চালের ওপর নির্ভর করে প্রাণ বাঁচাতে পারলেও এখন সেটিই দুরূহ হয়ে পড়ছে। শুধু তাই নয়, ভালো মানের নাজিরশাইল ও মিনিকেটের দাম গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ৩১ শতাংশ বেশি। আর শুধু এক মাসে বিভিন্ন ধরনের চালের দাম ১৩ শতাংশ বেড়েছে। বৃহস্পতিবার রাজধানীর সচিবাল
মিয়ানমারকে কঠিন শাস্তি দেওয়ার ঘোষণা আল-কায়েদার

মিয়ানমারকে কঠিন শাস্তি দেওয়ার ঘোষণা আল-কায়েদার

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে দেশটির সেনাবাহিনী কর্তৃক মুসলিম রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে গণহত্যার ব্যাপারে এবার কঠোর হুঁশিযারি দিলো উগ্রপন্থী জঙ্গিগোষ্ঠী আল-কায়েদা। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপের বরাত দিয়ে রয়টার্স এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছে, আল-কায়েদা সারা বিশ্বের মুসলিমদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, অস্ত্রসহ অন্যান্য ‘সামরিক সাহায্য’ নিয়ে নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলিমদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য। আল-কায়েদা রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের কথা উল্লেখ করে বলেছে, ‘আমাদের মুসলিম ভাইদের ওপর ভয়ানক আচরণ করা হচ্ছে… কোনো ধরনের শাস্তি ছাড়া আমরা এটি ছেড়ে দেবো না।’ ‘মিয়ানমার মুসলিম ভাইদের জন্য যে ধরনের দুর্ভোগের পরিস্থিতি তৈরি করেছে, একই দুর্ভোগ তাদেরও মোকাবিলা করতে হবে।’ আল-কায়েদা বিবৃতিতে আরো বলে, ‘আমরা বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান ও ফিলিপাইনের মুজহিদ ভাইদের মিয়ানমারের নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুস
রাখাইন রাজ্যে মানবশূন্য ১৭৬টি রোহিঙ্গা গ্রাম: মিয়ানমার

রাখাইন রাজ্যে মানবশূন্য ১৭৬টি রোহিঙ্গা গ্রাম: মিয়ানমার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- মিয়ানমারে রোহিঙ্গা ও সেনাবাহিনীর সংঘাত শুরু হওয়ার পর রাখাইন রাজ্যের ১৭৬টি রোহিঙ্গা মুসলিম গ্রাম এখন জনমানবশূন্য বলে জানিয়েছে মিয়ানমার। বৌদ্ধ অধ্যুষিত দেশটির প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জ হাতয়ের বরাত দিয়ে ভারতের হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, রাখাইনের তিনটি শহরতলিতে মোট ৪৭১টি গ্রাম রয়েছে। এর মধ্যে ১৭৬টি গ্রামে কোনো মানুষ নেই। আশপাশের ৩৪টি গ্রাম থেকেও লোকজন পালিয়ে চলে যাচ্ছে। তারা প্রতিবেশী দেশগুলোতে গিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে। জ হাতয় আরো বলেন, ‘যারা পালিয়ে গেছে, তাদের সবাইকে ফিরতে দেওয়া হবে না। তাদের যাচাই-বাছাই করা হবে। যাচাই-বাছাই শেষে তাদের দেশে ফিরতে দেওয়া হবে।’ প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্ট রাখাইনে রোহিঙ্গা বিদ্রোহী জনগোষ্ঠী দুই ডজনের বেশি সেনা ও পুলিশ ক্যাম্পে হামলা চালায়। এর পরই হামলা-নির্যাতন-ধর্ষণের শিকার প্রায় তিন লাখ ৭০ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম বিপদসংকুল পথ পাড়ি দিয়ে বাংলা
সু চিকে ‘নিষ্ঠুর’ নারী বললেন খোমেনি

সু চিকে ‘নিষ্ঠুর’ নারী বললেন খোমেনি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর চলমান নিধনযজ্ঞের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতা। শান্তিতে নোবেল জয়ী নেত্রী অং সান সু চির সরকারের অধীনে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নৃশংস হত্যাকাণ্ড ও জাতিগত নিধনের ঘটনায় তাকে নিষ্ঠুর নারী হিসেবেও বর্ণনা করেন আয়াতুল্লাহ আল খোমেনি। আয়াতুল্লাহ আল খোমেনি বলেন, রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যা মিয়ানমারের জন্য রাজনৈতিক দুর্যোগ। কারণ, এই হত্যাকাণ্ড পরিচালনা করছেন শান্তিতে নোবল জয়ী নেত্রী অং সান সু চির সরকার। যাকে তিনি নৃশংস নারী হিসেবে অভিহিত করছেন।  সহিংসতা বন্ধে মুসলিম রাষ্ট্রগুলোকে বাস্তবে পদক্ষেপ নেয়ারও আহ্বান জানান ইরানের এই সর্বোচ্চ নেতা। তিনি বলেন, মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর উচিত মিয়ানমারের সরকারের ওপর রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং বাণিজ্যিকভাবে চাপ বাড়িয়ে দেয়া। গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের পুলিশ ও সেনাবাহিনীর তল্লাশি চৌকিতে হামল
রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা দিবে ডেনমার্ক

রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা দিবে ডেনমার্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক- রোহিঙ্গাদের ত্রাণ সহায়তা কার্যক্রমে ২৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ডেনমার্ক সরকার। মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সম্প্রতি নির্যাতনের মুখে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচির (ডব্লিউএফপি) মাধ্যমে এই ত্রাণ সহায়তা দেওয়া হবে। ত্রাণ সহায়তা ঘোষণার পাশাপাশি ডেনমার্কের ডেভেলপমেন্ট কোঅপারেশন মন্ত্রী উল্লা টোর্নাইস রাখাইন রাজ্যে চলমান সংঘাত নিয়ে তার গভীর উদ্বেগ ও রোহিঙ্গা নিধন অভিযানের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রোহিঙ্গা ও অন্যান্য বেসামরিক জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের প্রতি আহ্বান জানান ডেনিশ মন্ত্রী। রাখাইন রাজ্যের হাজারো মানুষের জরুরি মানবিক সহায়তার দ্বার খুলে দিতেও তিনি বলেছেন। বাংলাদেশে আসা উদ্বাস্তুদের জন্য ত্রাণ কার্যক্রমে সহায়তা বাড়ানোর ঘোষণা দিয়ে ডেনমার্কের মন্ত্রী বলেন, রাখাই
বৈধ কাগজ ছাড়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়া হবে না : মিয়ানমার

বৈধ কাগজ ছাড়া রোহিঙ্গাদের ফেরত নেয়া হবে না : মিয়ানমার

  আন্তর্জাতিক ডেস্ক :রাখাইনের সহিংসতায় পালিয়ে আসা লোকজনকে নাগরিকত্বের প্রমাণ ছাড়া বাংলাদেশ থেকে ফেরত নেয়া হবে না বলে জানিয়ে দিয়েছে মিয়ানমার। দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা (এনএসএ) ইউ থং তুন এ মন্তব্য করেন। বুধবার রাখাইন ইস্যুতে স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চির অফিসে এক সংবাদ সম্মেলনে মিয়ানমারের এই রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা বলেন, ‘নাগরিকরা কত দিন ধরে মিয়ানমারে বসবাস করেছে; সে বিষয়ে অবশ্যই প্রমাণ থাকতে হবে। যদি সঠিক প্রমাণ পাওয়া যায়, তাহলে তারা ফেরত আসতে পারবেন। দেশটির জাতীয় এ নিরাপত্তা উপদেষ্টা বলেন, রাষ্ট্র, জনগণের সুরক্ষা ও রাখাইন রাজ্যে পুলিশের শক্তি বৃদ্ধির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। রাখাইন ইস্যুতে কফি আনান অ্যাডভাইজরি কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়ন করছে সরকার। রাখাইন সঙ্কটে জাতিসংঘের সাবেক এই মহাসচিব গত ২৪ আগস্ট একটি প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন। ক