মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ১২ শ্রাবণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

d86

নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহালের দাবিতে চলমান আন্দোলন কর্মসূচি আজকালের মধ্যেই চূড়ান্ত করা হবে। ৬ দিন পর বুধবার রাতে গুলশানের কার্যালয়ে যান বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এ সময় দলের সিনিয়র বেশ কয়েকজন ও জোটের শরিক নেতা তার সঙ্গে দেখা করেন। অনির্ধারিত ওই বৈঠকে দেশের সর্বশেষ রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও চলমান আন্দোলন কর্মসূচি নিয়ে আলোচনা হয়। তবে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। দলের সিনিয়র নেতা ও জোটের শরিকদের বেশিরভাগ নেতা আগামী সপ্তাহে আবারও হরতাল দেয়ার পক্ষে। তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত হরতাল কর্মসূচি চালিয়ে যেতে চায় তারা। তফসিল ঘোষণার পরপরই অবরোধসহ অসহযোগ আন্দোলন কর্মসূচির ব্যাপারে জোটের নীতিগত সিদ্ধান্ত রয়েছে। আসছে সপ্তাহের কর্মসূচি চূড়ান্ত করতে আজ রাতে খালেদা জিয়া দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডাকতে পারেন বলে দলীয় সূত্র নিশ্চিত করেছে।বিএনপির একাধিক নেতা জানান, আগামী সপ্তাহের শুরুতে রবি ও সোমবার হরতাল না দেয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কারণ ১৬ নভেম্বর বাংলাদেশ সফরে আসছেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা ডেসাই বিশওয়াল। ১৮ নভেম্বর সোমবার রাতে তার ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে। ১৭ নভেম্বর বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার সাক্ষাতের কথা রয়েছে। চলমান সংকট সমাধানে তার সফরকে অত্যন্ত গুরুত্বসহকারে নিয়েছে বিএনপি। তাই হরতাল সহিংসতার মতো কর্মসূচি থেকে ওই সময় বিরত থাকার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি।গত দুই সপ্তাহ টানা ৬০ ঘণ্টা করে হরতালের পর গত বৃহস্পতিবার ৭২ ঘণ্টার হরতাল ঘোষণার পরপর দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ বেশ কয়েকজন শীর্ষ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়। একই সময়ে খালেদা জিয়ার বাসা ও গুলশান কার্যালয়ের সামনে মোতায়েন করা হয় অতিরিক্ত পুলিশ। এর প্রতিবাদে হরতালের মেয়াদ ১২ ঘণ্টা বাড়িয়ে ৮৪ ঘণ্টা নির্ধারণ করা হয়। পূর্বনির্ধারিত কোনো কর্মসূচি না থাকায় গত শনিবারও বাসা থেকে বের হননি খালেদা জিয়া। এরপর রোববার সকাল ৬টা থেকে টানা ৮৪ ঘণ্টা হরতাল শুরু হলে বাসা থেকে আর বের হননি তিনি। তার বাসার সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ও নেতাকর্মীদের প্রবেশে কড়াকড়ি আরোপ করায় তাকে গৃহবন্দি করা হচ্ছে কিনা এ নিয়ে নানা মহলে প্রশ্ন ওঠে। তবে একদিন পর তার বাসার সামনে থেকে অতিরিক্ত পুলিশ প্রত্যাহার করা হলে এ গুঞ্জনের অবসান ঘটে।জয় তার মায়ের মতোই কথা বলছেন : হরতালে বাসে অগ্নিসংযোগের জন্য বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল অভিহিত করেছেন সজীব ওয়াজেদ জয়। এ সম্পর্কে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রিজভী আহমেদ বলেন, নরসিংদীর বিআরটিসির বাসে আজিমপুরে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। ধানমণ্ডিতে অধ্যাপক পিয়াস করীমের বাসায় যারা হামলা চালিয়েছিল, তাদের পুলিশ আটক করার পর ছেড়ে দিয়েছে। কারণ তারা ছিল ক্ষমতাসীন দলের লোক। এসব অন্তর্ঘাতমূলক কাজ কারা ঘটাচ্ছে দেশের মানুষের কাছে আজ তা পরিষ্কার হয়ে গেছে। হরতালে কারা বাস-গাড়ি পুড়িয়ে মানুষ হত্যা করেছে, জনগণ তা জানে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ছেলের কাছ থেকে দেশের মানুষ বিদ্যমান রাজনীতি সম্পর্কে ভিন্ন কিছু শুনতে চায়। কিন্তু তিনি আওয়ামী লীগের পুরনো ধাঁচের রাজনীতির সংস্কৃতিতে হাবুডুবু খাচ্ছেন। তিনি তার বিজ্ঞানী বাবার মতো নন, মায়ের মতো কথা বলছেন। তাই তার বক্তব্য সম্পর্কে আমরা কিছু বলতে চাই না।টানা ৮৪ ঘণ্টার হরতাল শেষে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী আরও বলেন, নির্দলীয় সরকারের দাবিতে ১৮ দলে চলমান আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। এ আন্দোলন থেকে আমরা পিছিয়ে আসব না। দলের নীতিনির্ধারকরা বৈঠক করে পরবর্তী কর্মসূচি ঠিক করলে তা গণমাধ্যমকে জানানো হবে। তিনি জানান, চারদিনের হরতালে সারা দেশে দুই জন নিহত, দুই হাজার ১১০ জন গ্রেফতার ও ২১ হাজার নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ও আওয়ামী লীগ কর্মীদের হামলায় ৫ হাজার ৪শ’ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। তারপরও সারা দেশে হরতাল সফল হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।সরকার সংলাপের কথা বলে বিরোধী দলকে নিয়ে তামাশা করছে মন্তব্য করে রিজভী বলেন, সংলাপে বসা না বসা নিয়ে একেক দিন একেক কথা বলছে। পদত্যাগের পর দায়িত্ব পালন করে মন্ত্রীরা উদ্ভট কথাবার্তার মাধ্যমে জনদৃষ্টিকে অন্যদিকে সরিয়ে রাখার অপচেষ্টা করছে। সংবিধান অনুযায়ী মন্ত্রীরা পদত্যাগ করার পর তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কার্যকর হয়ে যায়। অথচ সরকার এখানেও গায়ের জোর খাটাচ্ছে। তারা আসলে কোনো আইন-কানুনের তোয়াক্কা করে না। বেআইনিভাবে আউট লরা যেমন অন্ধকারে রাজত্ব করে সেভাবে দীর্ঘ ৫ বছর সরকার দেশ পরিচালনা করেছে।

Leave a Reply