Tuesday, November 20Welcome khabarica24 Online

৬৩তম বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত

IMG_1658 20170128_120128

৬৩তম বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস পালিত  হয়েছে এবারের
প্রতিপাদ্য বিষয়ঃ-কুষ্ঠরোগে বালক বালিকায় আর কোন প্রতিবন্ধিতা নয়” এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে অদ্য সকাল ১০:৩০ ঘটিকায় জামালখান রোডস্থ প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে একটি আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় উক্ত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডাঃ মোঃ আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, মাননীয় সিভিল সার্জন, চট্টগ্রাম। বিশেষ অতিথিদ্বয় ছিলেন যথাক্রমে জনাব কামাল উদ্দিন, সভাপতি-ডাপা, জনাবা আনজুমান বানু লিমা, সহকারী পরিচালক, সমাজ উন্নয়নস কর্মসূচী, ঘাসফুল, জনাব চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর, ২০নং দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড, চসিক, ড. সুলতান মাহমুদ ভূইয়া, সিনিয়র ইনট্্রাক্টর, ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, চট্টগ্রাম, ডা. কাজী মোঃ জয়নাল আবেদীন, সিনিয়র কনসালটেন্ট, আগ্রাবাদ আমেরিকান হাসপাতাল, চট্টগ্রাম, প্রফেসর ডা. এম. জালাল উদ্দিন, বিভাগীয় প্রধান, কমিউনিটি মেডিসিন, মা-ও-শিশু মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, আগ্রাবাদ চট্টগ্রাম। সভাপতিত্ব করেন মিঃ জন অর্পণ সমদ্দার, প্রোগ্রাম লিডার, চিটাগাং প্রোগ্রাম, দি লেপ্রসি মিশন ইন্টারন্যাশনাল-বাংলাদেশ।

জনাব কামাল উদ্দিন, সভাপতি, ডাপা, বলেন সীতাকু- থানায়, সলিমপুর এলাকায় ১জন শিশু কুষ্ঠরোগী সনাক্ত করা হয় ও চিকিৎসা শুরু করা হয়, তিনি আরও বলেন প্রাথমিক পর্যায়ে কুষ্ঠরোগী চিহ্নিত হলে সাথে সাথে চিকিৎসা শুরু হলে বিকলাঙ্গতা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। লেপ্রসি মিশনের পক্ষ থেকে দলীয় সদস্যদের আর্থিক সাহায্য প্রদান করায় সদস্যরা সাবলম্বী হয়েছে।

আনজুমান বানু লিমা বলেন, লেপ্রসি মিশন বিভিন্ন সংস্থার সাথে সমন্বয় সাধন করে কাজ করে থাকেন এবং সচেনতা কার্যক্রম কে আরো ব্যাপক প্রচারের জন্য বিভিন্ন মিডিয়াকে এগিয়ে আসার আহবান জানান।

জনাব সুলতান মাহমুদ ভূইয়া বলেন, ইমাম প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে ইমামদের বিষয় ভিত্তিক প্রশিক্ষণের পাশাপাশি, কুষ্ঠ বিষয়ক স্বাস্থ্য শিক্ষাও প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। এখন আধুনিক চিকিৎসায় কুষ্ঠ সম্পূর্ণ ভাল হয়।

ডাঃ কাজী জয়নাল আবেদীন, সিনিয়র কনসালটেন্ট, আগ্রাবাদ চর্ম ও সামাজিক চিকিৎসা কেন্দ্র বলেন স্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে এবং মাঠ পর্যায়ে দরিদ্র জনগণকে স্বাস্থ্যসম্মত খাবার গ্রহণের পরামর্শ দেন। মাঠ পর্যায়ে রোগী সন্দেহ হলে ডাক্তারের কাছে রেফার্ড করার পরামর্শ দেন। স্কিন স্ম্যিয়ার করার জন্য বেসরকারী কিলিœকের ল্যাব টেকনিশিয়ানদের প্রশিক্ষণ প্রদানের পরামর্শ দেন। প্রত্যেক উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ডটস্্ এন্ড হেনসেন কর্নার স্থাপন করার অনুরোধ জানান। বিশ্ব কুষ্ঠ দিবস উপলক্ষে সব উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যেন সংক্ষিপ্ত আকারে কুষ্ঠবিষয়ক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

প্রফেসর এম. জালাল উদ্দিন বলেন, কুষ্ঠ কোন মারাতœক রোগ নয়, আমাদের দুইজন নবী ও এই কুষ্ঠরোগীদের সেবা করেছেন, প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা শুরু করলে সব রোগ থেকে আরোগ্য লাভ করা যায়।

জনাব চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী বলেন আমরা সবাই কোন না কোন রোগে আক্রান্ত, প্রত্যেক রোগকে সাহসিকতার মাধ্যমে মোকাবেলা করতে হবে। কুষ্ঠ একটি সাধারণ রোগ। প্রাথমিক ভাবে কুষ্ঠরোগী সনাক্ত হলে “তার কুষ্ঠরোগ হয়েছে এমন কথা না বলা’র পরামর্শ দেন। কুষ্ঠরোগ কে জয় করে কুষ্ঠ মুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
প্রধান অতিথি, মাননীয় সিভিল সার্জন বলেন, আমরা আজ ৬৩তম বিশ্বকুষ্ঠ দিবসের র‌্যালী ও আলোচনা সভার আয়োজন করলাম, ২০২০ সালের মধ্যে প্রতি এক লাখে ১ জনের নীচে কুষ্ঠরোগী নামিয়ে আনার জন্য সবাইকে কাজ করার আহবান জানান। যার কুষ্ঠ হয় তার জীবন অভিশপ্ত এটা মানুষের ভুল ধারণা। কুষ্ঠরোগের সচেতনতা বৃদ্ধি এবং প্রাথমিক অবস্থায় সনাক্ত হওয়ার পর দ্রুত ডাক্তারের কাছে পাঠানো এবং নিয়মিত পূর্ণ মেয়াদে কুষ্ঠরোগের ঔষধ সেবন করার মাধ্যমে সুস্থ্যতা লাভ করা যাবে। এই রোগের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ার মাধ্যমে, কুষ্ঠমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার আহবান জানান। তিনি আরো বলেন, আমার জানামতে, এই সংস্থার কর্মীবৃন্দ তাদের কাজের প্রতি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, তাদেরকে আমি সাধুবাদ জানাই।
সভাপতি, জন অর্পণ সমদ্দার বলেন আমরা সরকারের পার্টনার হিসেবে কাজ করে থাকি এবং বাংলাদেশ সরকারের কার্যক্রমকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সর্বাতœক কাজ করে থাকি। তিন আরো বলেন, কুষ্ঠরোগের চিকিৎসা দিয়েই দায়িত্ব শেষ করা যাবে না। প্রাথমিক পর্যায়ে যাতে রোগী সনাক্ত হয় এবং চিকিৎসার আওতায় আনার ব্যবস্থা করলে প্রতিবন্ধীতার হাত থেকে রোগীকে বাচাঁনো যাবে এবং ব্যাপক গণসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য বিভিন্ন নিউজ মিডিয়ার সাংবাদিক ও রির্পোটারদেরকে আহবান জানান তিনি বলেন একমাত্র গণসচেতনতা ছাড়া এ রোগ সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রন করা মোটেই সম্ভব নয়। পরিশেষে তিনি সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আলোচনা সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি