বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১, ৫ কার্তিক ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

১১৫ উপজেলায় চলছে ভোটগ্রহণ

vote
খবরিকা ডেস্ক : চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে দেশের ১১৫টি উপজেলায় ভোট গ্রহণ চলছে। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। চলবে একটানা বিকেল ৪টা পর্যন্ত।
সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করার জন্য নির্বাচনী এলাকাগুলোতে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে মঙ্গলবার থেকে মাঠে নেমেছে সেনাবাহিনী। মঙ্গলবার মধ্যরাত থেকেই শেষ হয়েছে মিছিল-মিটিংসহ সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা। একই সঙ্গে বন্ধ হয়েছে সব ধরনের যান্ত্রিক যান চলাচল।
স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন উপজেলা পরিষদের এ নির্বাচন দলীয় ব্যানারে না হলেও দলীয় প্রভাব রয়েছে সবখানেই। আওয়ামী লীগ-বিএনপি-জামায়াতসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল তাদের পছন্দমতো প্রার্থী দিয়েছে।
ভোট গ্রহণ উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ বলেছেন, প্রথম পর্বের উপজেলা নির্বাচনের ত্রুটি থেকে শিক্ষা নিয়ে দ্বিতীয় পর্বের নির্বাচন আরো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
নির্বাচন কমিশন দ্বিতীয় দফায় ১১৭ উপজেলার তফসিল ঘোষণা করলেও ভোট হচ্ছে ১১৫টি উপজেলায়। বাকি দুটির মধ্যে কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার নির্বাচন ১ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে, সীমানাসংক্রান্ত জটিলতার কারণে হাইকোর্টের আদেশে চাঁদপুরের হাইমচর উপজেলার নির্বাচন বন্ধ রাখা হয়েছে।
এদিকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রতি উপজেলায় এক প্লাটুন করে সেনাবাহিনীর সদস্য টহল দিচ্ছেন। বড় উপজেলায় এ সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। পাশাপাশি প্রতি উপজেলায় সেনাবাহিনীর দুই থেকে তিনটি গাড়িসহ সেনাবাহিনীর কমান্ডিং অফিসার ও একজন করে ম্যাজিস্ট্রেট রাখা হয়েছে।
এ ছাড়া মোবাইল ফোর্স হিসেবে পর্যাপ্তসংখ্যক র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ ও আনসার সদস্য মোতায়েন রাখা হয়েছে। নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার্থে ৪৬৪ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও ১১৬ জন বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
১১৫ উপজেলায় মোট ১ হাজার ৩৭৬ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন ৫১৫ জন, পুরুষ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংখ্যা ৫২১ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ৩৪০ জন।
এ ছাড়া তৃতীয় পর্বে ৮৩ উপজেলায় ১৫ মার্চ এবং চতুর্থ পর্বে ৯২ উপজেলায় ২৩ মার্চ ও পঞ্চম পর্বে ৭৪ উপজেলায় ৩১ মার্চ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।