Saturday, December 15Welcome khabarica24 Online

সোনাপাহাড়ে জঙ্গি আস্তানায় ২ জনের মরদেহ সহ গোলাবারুদ উদ্ধার

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ
মীরসরাই উপজেলায় জোরারগঞ্জে একটি ‘জঙ্গি আস্তানা’ ঘিরে র‌্যাবের অভিযানে দুটি মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৩টায় এ অভিযান শুরু হলে গোলাগুলি ও বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে বলে এলাকাবাসী জানান।
র‌্যাব জানিয়েছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সংলগ্ন উত্তর সোনাপাহাড় গ্রামের চৌধুরী ম্যানশনে একটি একতলা বাড়িতে এক নারী জঙ্গিসহ জেএমবির চার সদস্য অবস্থান করছে বলে তাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্য ছিল।
তথ্য পাওয়ার পর পর র‌্যাব তাৎক্ষণিক অভিযানে নামে।অভিযানের ও গোলাগুলির কারণে রাত সাড়ে ৪টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছিল। ভোরের দিকে ওই বাড়িতে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটনার পর গোলাগুলি বন্ধ হয়ে যায়।
শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় ঢাকা থেকে বোমা নিষ্ক্রিয়করণ দল গিয়ে আস্তানায় প্রবেশ করে সব বোমা একটি পরিত্যক্ত স্থানে নিয়ে গিয়ে পার্শবতী জমিতে বেলা সাড়ে ১১টায় বোমা বিষ্ফোরণ ঘটায়।
বেলা পৌনে ১২টার দিকে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান সাংবাদিকদের বলেন, বাড়িটিতে দুটি মরদেহ পাওয়া গেছে। এছাড়া একটি এ কে ২২ রাইফেল, পাঁচটি অবিস্ফোরিত আইইডি, তিনটি পিস্তল, গোলাবারুদ এবং বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।
শুক্রবার সকালে র‌্যাব-৭ এর ফেনী ক্যাম্প পিপিএম অধিনায়ক শাফায়াত জামিল ফাহিম বলেন, আমরা আস্তানাটি ঘিরে ফেললে সেখান থেকে মুহুর্তে মধ্যে গুলি ছোড়া হয়। বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণও হয়েছে।
র‌্যাব জানায়, রাতে র‌্যাব ওই বাড়ি ঘিরে ফেলার পর ভেতর থেকে গুলি চালানো হয়। তখন র‌্যাব দূরে সরে আসে। তার পর দীর্ঘ সময় গোলাগুলি চলে। পরে ভোরের দিকে ওই বাড়িতে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটে।
চৌধুরী ম্যানশন নামে ওই বাড়ির মালিক মাজহারুল হক অন্য এলাকায় এক বাড়িতে থাকেন। মাজহারুল ও বাড়ির কেয়ারটেকারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে র‌্যাব।
তারা র‌্যাব কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন গত মাসের শেষে দিকে পাঁচ কক্ষের ওই বাড়িটি ১জন নারী সহ ৪জনে ভাড়া নেন।
মুফতি মাহমুদ খান ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের বলেন, গত দুই মাসে বেশ কয়েকটি জঙ্গিবিরোধী অভিযান চালিয়ে র‌্যাব জানতে পারে, একটি গ্রুপ চট্টগ্রাম ও আশপাশের এলাকায় অবস্থান করছে এবং তাদের কাছে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গোলাবাররুদ রয়েছে।
তারা একটি নাশকতার পরিকল্পনা করছে খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে জোরারগঞ্জের ওই বাড়ি চিহ্নিত করে ঘিরে ফেলেন র‌্যাব সদস্যরা।
‘তখন ভেতর থেকে জঙ্গিরা টের পেয়ে র‌্যাবের উপর গুলিবর্ষণ করে এবং বেশ কয়েকটি আইইডির বিস্ফোরণ ঘটায়। পরে বেশ কিছুক্ষণ গোলাগুলি চলতে থাকে। প্রায় ভোরের দিকেই ভেতরে কয়েকটি বিস্ফোরণ ঘটে। এখান থেকেই দেখা যাচ্ছে, টিনের চাল ওপরে উঠে গেছে।’
তিনি আরো বলেন , আমাদের কাছে গোয়েন্দা তথ্যে চার জঙ্গি ছিল ওখানে। এদের মধ্যে একজন নারী জঙ্গি।