শুক্রবার, ১৪ মে ২০২১, ৩১ বৈশাখ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

সরকার সেনাবাহিনীর মর্যাদা ক্ষুণ্ন করেছে : খালেদা জিয়া

image_87409.kha-1kk

র‌্যাবকে কলঙ্কিত করার মাধ্যমে সরকার সেনাবাহিনীর মর্যাদা ক্ষুণ্ন করেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, ১৯৭৫ সালে জাতীয় রক্ষিবাহিনীর মতো র‌্যাব বিলুপ্তি এখন সময়ের দাবি। র‌্যাব কলঙ্কিত হওয়ার কারণে সেনাবাহিনীর সুনাম ক্ষুণ্ণের আশঙ্কা রয়েছে। আর এসবের জন্য সরকার দায়ী।আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে গুম, খুন ও বিচার বহির্ভূত হত্যার শিকার বিএনপি নেতা-কর্মীদের স্বজনদের সঙ্গে মতবিনিময়ে এসব কথা বলেন খালেদা জিয়া।
খালেদা বলেন, জঙ্গিবাদ দমন ও শীর্ষ সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের জন্য র‌্যাবকে আমরা গঠন করেছিলাম। আমরা তখন তাদের রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করিনি। কিন্তু বর্তমান সরকার র‌্যাবকে দলীয় ও রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করে র‌্যাবকে কলঙ্কিত করেছে। এর মধ্য দিয়ে দেশপ্রেমিক সেনাবাহিনীর সুনাম ও মর্যাদা ক্ষুণ্ণ করা হয়েছে।ক্ষতিগ্রস্ত স্বজনদের প্রসঙ্গে খালেদা জিয়া বলেন, প্রিয়জনের মৃতদেহের সৎকারের অধিকার থেকেও তাদের বঞ্চিত করা হয়েছে। কবর জিয়ারতও করতে পারবেন না তাঁরা। তাদের কী সান্ত্বনা দেব?
বৃহস্পতিবারের মত বিনিময় সভা ক্ষতিগ্রস্ত ২২টি পরিবারকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। যাঁদের পরিবারকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে তাঁরা হলেন- এম ইলিয়াস আলী, চৌধুরী আলম, ইফতেখার আহমেদ দিনার, মো. জহির, সেলিম রেজা, আসাদুজ্জামান, সম্রাট মোল্লা, মাজহারুল ইসলাম রাসেল, পারভেজ হোসেন, চঞ্চল, আল-আমিন, খালেদ হোসেন সেলিম, সাজেদুল ইসলাম সুমন, আবদুল কাদের ভুইয়া মাসুম (তানভির), এ এম আদনান চৌধুরী, নিজাম উদ্দিন মুন্না, কাউসার, মো. তরিকুল ইসলাম, মাহবুব হোসেন সুজন, কাজী ফরহাদ, তরিকুল ইসলাম তারা এবং মফিজুল ইসলাম রাশেদ।এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ভাইস চেয়ারম্যান সাদেক হোসেন খোকা, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ, আমান উল্লাহ আমান, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার অসীম, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থ, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র অধ্যাপক এম এ মান্নান প্রমুখ।এ ছাড়া ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড পিয়াস করিম, জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা বেগমও মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন।উল্লেখ্য, দুপুরে রমনার ইনস্টিটিউশন অব ইঞ্জিনিয়ার্সে ক্ষতিগ্রস্ত স্বজনদের নিয়ে বিএনপির নাগরিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পুলিশ বাধায় ওই সমাবেশ পণ্ড হয়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে গুলশানে চেয়ারপার্সনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এই মতবিনিময় অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।