Monday, September 24Welcome khabarica24 Online

সব দায় কি কেবল মেয়েদের?

সৃষ্টিলগ্ন থেকে আজ পর্যন্ত চিরকাল সবকিছু থেকে মেয়েদের দমিয়ে রাখা হয়েছে। যা কিছু খারাপ হোক, সব দোষ গিয়ে পড়ে মেয়েদের কাঁধে। আর মেয়েরা ভাল কিছু করলেও সমাজে তার মূল্যায়ন নেই। বরং মেয়েরা ভাল কিছু করতে চাইলে সমাজ বাঁধা হয়ে দাঁড়ায়, সমাজের মানুষেরা টেনে হিঁচড়ে নিচে নামাতে চেষ্টা করে তাদের। একটা মেয়ে যখন ধর্ষনের শিকার হয়, মেয়েটাকে ধর্ষিতা উপাধি দেওয়া হয়। ধর্ষনের জন্য সমাজের অনেক বড় একটা অংশ মেয়েটাকেই দায়ী করে। কিন্তু কোনো মেয়ে কি ইচ্ছে করে ধর্ষিতা হতে চায়? কোনো মেয়ে কি এভাবে নিজের সর্বনাশ ডেকে আনে? বড় হয়ে শুনেছি, সব দোষ সব কলঙ্ক মেয়েদেরই হয়, ছেলেদের গায়ে কোনো কাদা লাগেনা। কিন্তু কেন! পুরুষশাসিত সমাজ বলে? যদি তাই হয়, তাহলে এমন পুরুষ শাসিত সমাজ আমি চাইনা। একটা গণতান্ত্রিক সমাজ চাই আমি, যেখানে ন্যায়ের প্রতিষ্ঠা হবে।

আবার, একটা মেয়ে যখন পতিতালয়ে থাকে, তাকে বেশ্যা বলে গালি দেই আমরা, সমাজের আট দশটা সাধারন মেয়ের মতো তাকে ভাবতে পারিনা। কিন্তু একবারও কি আমরা ভেবে দেখি, তারা কেন পতিতা হয়? কেন তারা সব শ্রেণীর পুরুষের সাথে বিছানায় যায়? খুব কম মেয়েই আছে, যারা ইচ্ছে করে পতিতা হয়। অনেক মেয়েই পরিস্থিতির শিকার হয়। মেয়েদের কিডন্যাপ করে পতিতালয়ে বিক্রি করে দেওয়া হয়। সেখানে ঢোকার পথ আছে, বেরোবার পথ নেই।

তারপর মেয়েটা যখন দিনের পর দিন সবার শয্যাসঙ্গিনী হয়, তখন মেয়েটা তার দুর্ভাগ্যকে মেনে নেয়। সেই কলঙ্ক নিয়ে মেয়েটা আর কোনোদিন স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারেনা। কিন্তু এই পাপাচারে তো ছেলে মেয়ে উভয়ই সমান দোষী। কোনো মেয়ে তো একা একাই পতিতা হয়না, সমাজের কাপুরুষগুলো তাদের পতিতা বানায়। তবে বাংলা অভিধানে পতিতার কোনো পুরুষ লিঙ্গ নেই কেন? এখানেও মেয়েদের ওপর সব দায় চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই কি আমাদের পুরুষশাসিত সমাজের রূপ?

হিন্দু ধর্মাবলম্বী মেয়েদের যখন বিয়ের আসরে বিয়ে ভেঙে যায়, বলা হয় মেয়ে লগ্নভ্রষ্টা! সে মেয়েকে আর কোনোদিন কেও বিয়ে করবেনা। তাহলে ছেলেদের লগ্নভ্রষ্টা বলা হয়না কেন? ওরা পুরুষ বলে? পুরুষ মানুষ কি সব পাপাচার করার অনুমতিপত্র নিয়ে জন্মেছে?

আবার, আমাদের সমাজে যখন একটা মেয়ের ডিভোর্স হয়, গোটা দুনিয়া আঙুল তুলে তার ওপর। সবাই ভেবে নেয়, মেয়েটার দোষেই ডিভোর্স হয়েছে। কিন্তু বিশ্বাস করুন, প্রতিটা মেয়ের সংসারের প্রতি ভীষন মায়া, প্রতিটা বাঙালী নারী তার সর্বোচ্চ আত্মত্যাগ স্বীকার করে তার সংসারটাকে ধরে রাখার চেষ্টা করে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সম্পর্কটা যখন অসহনীয় পর্যায়ে চলে যায়, তখনি হয় ডিভোর্স। আমাদের সমাজে ডিভোর্সি মেয়েদের খুব বাজে চোখে দেখা হয়। তাদের সাথে মেলামেশা করতেও বাঁধা আছে। কিন্তু কেন! সব দায় কেন মেয়েরা বয়ে বেড়াবে? আমাদের সমাজ কেন পুরুষদের অপরাধ দেখেও দেখেনা? আর কবে বদলাবে আমাদের এই সমাজ ব্যাবস্থা? নাকি এভাবেই চিরকাল মার খেয়ে যাবে দূর্বল????

-মোহনা