Wednesday, September 20Welcome khabarica24 Online

সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা

খবরিকা ডেক্সঃ  সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ওয়াশিংটন ডিসি ও ম্যারিল্যান্ডের অ্যাটর্নি জেনারেল। তাদের দাবি, প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব নেয়ার পরও ট্রাম্প ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকার পাশাপাশি ব্যবসায়িক লেনদেন বাবদ বিদেশি অর্থ গ্রহণ করছেন। তবে অভিযোগ অস্বীকার করে একে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে আখ্যা দিয়েছে হোয়াইট হাউস। এদিকে, ট্রাম্পের সংশোধিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ওপর স্থগিতাদেশ বহাল রেখে রায় দিয়েছেন আপিল আদালত। প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের প্রায় ৫ মাস পর সোমবার প্রথম বারের মত পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রিসভার সঙ্গে বৈঠক করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন শ্রম খাতের উন্নয়নে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী কাজ করায় ট্রাম্পের নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানরা।

মন্ত্রিসভার প্রশংসা কুড়ালেও; অভিবাসী ইস্যুতে আইনি লড়াইয়ে বার বার ব্যর্থ হচ্ছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সোমবার ৬ মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ওপর স্থগিতাদেশ বহাল রেখে রায় দেন সান ফ্রান্সিসকো নবম সার্কিট আদালতের আপিল বিভাগ। এ বিষয়ে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশকে অভিবাসী আইন বিরোধী বলে উল্লেখ করেন বিচারকরা। গত মার্চে ট্রাম্পের সংশোধিত ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার কথা থাকলেও; হাওয়াই আদালতের রায়ে তা আটকে যায়। সেই স্থগিতাদেশ তুলে নিতে বিচার দপ্তরের আবেদনও প্রত্যাখ্যাত হলো। তবে সুপ্রিম কোর্টে মুসলিম প্রধান ৬ দেশের নাগরিকদের ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার পক্ষে রায় আসবে বলে আশাবাদী হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউস মুখপাত্র শ্যন স্পাইসার বলেন, আমরা আপিল আদালতের রায় পর্যবেক্ষণ করে দেখছি। শুধু যুক্তরাষ্ট্র নয় সারা বিশ্ব সন্ত্রাসবাদের ভয়াবহ হুমকির মুখে রয়েছে। অবিলম্বে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা উচিত। আশা করি, দেশের নিরাপত্তা রক্ষার বিষয়টি বিবেচনায় রেখে ট্রাম্পের নির্বাহী আদেশের পক্ষে রায় দেবেন সুপ্রিম কোর্ট।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেল জেফ সেশন্সও আপিল আদালতের রায়ের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করেন। জাতীয় নিরাপত্তা নিশ্চিতে ট্রাম্পের সিদ্ধান্তের পক্ষে যথেষ্ট যুক্তি রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। চলমান এই বিতর্কের মধ্যেই এবার ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সংবিধান লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে মামলা করেছেন ওয়াশিংটন ডিসি ও ম্যারিল্যান্ডের দু’জন অ্যাটর্নি জেনারেল। ওয়াশিংটন ডিসি অ্যাটর্নি জেনারেল কার্ল এ র‌্যাসাইন বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র এমন একটা দেশ যেখানে কেউই অপরাধ করে পার পেতে পারে না। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দায়িত্ব নেয়ার পরই অবৈধভাবে বিভিন্ন ব্যবসার সঙ্গে জড়িত আছেন। এমনকি বাইরের ও অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে তিনি ব্যবসার লেনদেন বাবদ অর্থও গ্রহণ করছেন। উপযুক্ত তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আমরা ট্রাম্পের বিরুদ্ধে মামলা করেছি। আশা করি কারও দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। তাৎক্ষণিক ভাবে এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ট্রাম্প প্রশাসন। যারা প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন, তাদেরকে ডেমোক্র্যাট সমর্থক উল্লেখ করে, এ অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই বলে জানায় হোয়াইট হাউস।