Monday, June 17Welcome khabarica24 Online

শেখ হাসিনাকে দেয়া ওয়াদা রাখলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ

নয়ন কান্তি ধুম, ::

চট্টগ্রামের অভিভাবক হিসাবে খ্যাত, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে কথা দিয়েছিলেন চট্টগ্রামের নৌকা প্রতীকে মহাজোট থেকে মনোনয়ন প্রাপ্ত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সবক’টি আসনই উপহার দিবেন, ওয়াদা রেখেছেন বলে মনে করেন চট্টগ্রামের নেতাকর্মীরা। এরআগে, চট্টগ্রামের আওয়ামী লীগের নীতি নির্ধারণী পর্যায়ে চট্টগ্রামের সবক’টি আসনেই তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিজয়ী করার জন্য নির্দেশনা প্রদান করেন।

ইতোপূর্বে, মঙ্গলবার (১৯ ডিসেম্বর) বিকেল সাড়ে ৩টায় ‘সুধাসদন’ থেকে ভিডিও কনফারেন্সে লালদীঘির মাঠে চট্টগ্রামে মহাজোটের প্রার্থীদের পরিচিতি সভায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে চট্টগ্রামের ১৬টি সংসদীয় আসনই উপহার দেবেন বলে জানিয়েছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে আশ^স্থ করে মোশাররফ হোসেন বলেন, সমগ্র চট্টগ্রামে আপনি যে উন্নয়ন করেছেন তা বলার অবকাশ নেই। সেটা এখন দৃশ্যমান, আমাদের বলতে হচ্ছে না জনগণই তা বলছে। আমি আপনাকে ওয়াদা দিচ্ছি চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে আপনার মনোনীত মহাজোটের প্রার্থীদের আমরা বিজয়ী করে আপনাকে সবকটি আসন উপহার দেব। ঐ সময় ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফের বক্তব্যের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এবং আশাবাদ ব্যক্ত করে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আগামী ৩০ ডিসেম্বর চট্টগ্রামবাসী নৌকায় ভোট দিয়ে

আমাদের সব আসন উপহার দেবেন। আমার সেই আত্মবিশ্বাস আছে চট্টগ্রামের মানুষের ওপর আছে।
সম্প্রতি সপ্তমবারের মত নির্বাচিত হওয়ায় শুভেচ্ছা জানাতে আসা সুধীজন ও রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, এই নির্বাচনে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে চট্টগ্রামের সবক’টি আসন শেখ হাসিনাকে উপহার দেয়ার কথা জানিয়ে ছিলাম। আমাদের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে জনগনের জন্য কাজ করে চট্টগ্রামের সবগুলো আসন মহাজোটের পক্ষে বিজয়ী করতে সক্ষম হয়েছে। ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ বলেন, শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে আজ বাংলাদেশ বিশ্বের উন্নয়ন ও শান্তির রোল মডেল। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে দেশ স্বাধীন করেছি, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব। ঐক্যবদ্ধ আওয়ামীলীগকে কোন অপশক্তি হারাতে পারেনা, ভবিষ্যতেও পারবেনা- বলেন ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রামের ১৬টি সংসদীয় আসনের মধ্যে প্রত্যেকটিতেই বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়েছেন আওয়ামীলীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের প্রার্থীরা। রবিবার (৩০ ডিসেম্বর) দিনভর ভোটগ্রহণ শেষে রাতেই বেসরকারিভাবে প্রতিটি আসনে প্রতিপক্ষ প্রার্থীদের চেয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থীদের বিপুল ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। ভোট গ্রহণ শেষে বিকাল ৫টা থেকে চট্টগ্রামের কাজীর দেউড়ি এলাকার এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেসিয়ামে সরকারিভাবে ফলাফল ঘোষণা হয়। একের পর এক ঘোষনা আসতে থাকে প্রার্থীদের জয় পরাজয়ের।

এক্ষেত্রে মহাজোট সমর্থিতরাই সর্বশেষ ফলাফলে চট্টগ্রামের সবক’টি আসনে বিজয়ী হয়। প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী মহাজোট থেকে, চট্টগ্রাম-১ (মীরসরাই) আসনে বর্তমান গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, চট্টগ্রাম-২ (ফটিকছড়ি) আসনে সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, চট্টগ্রাম-৩ (সন্দ্বীপ) আসনে মাহফুজুর রহমান মিতা। চট্টগ্রাম-৪ সীতাকুণ্ড (পাহাড়তলী,আকবরশাহ আংশিক) আসনে দিদারুল আলম, চট্টগ্রাম-৬ (রাউজান) আসনে এবিএম ফজলে করিম চৌধুরী। রাঙ্গুনিয়া (চট্টগ্রাম-৭) আসনে ড. হাছান মাহমুদ, চট্টগ্রাম-৮ আসনে (বোয়ালখালী-চান্দগাঁও) আসনে জাসদের মইনউদ্দীন খান বাদল।

চট্টগ্রাম-৯ (কোতোয়ালী-বাকলিয়া) আসনে ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। চট্টগ্রাম-১০ (হালিশহর-ডবলমুরিং) আসনে ডা. আফছারুল আমীন, চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর-পতেঙ্গা) আসনে এম এ লতিফ, পটিয়া (চট্টগ্রাম-১২) আসনে সামশুল হক চৌধুরী, চট্টগ্রাম-১৩ (আনোয়ারা-কর্ণফুলী) আসনে সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ, চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম-১৪) আসনে নজরুল ইসলাম, সাতকানিয়া-লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম-১৫) আসনে আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী, বাঁশখালী (চট্টগ্রাম-১৬) আসনে মোস্তাফিজুর রহমান নৌকা প্রতীকে নির্বাচিত হয়েছেন। শুধুমাত্র চট্টগ্রাম-৫ (হাটহাজারী) আসনে মহাজোটের প্রার্থী লাঙ্গল প্রতীকের ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ জয়ী হয়েছেন।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বাহার জানান, মোশাররফ ভাই অনেক উঁচু পর্যায়ের নেতা। তিনি যা চিন্তা করেন অনেক গভীর থেকে সমাধানের পরিকল্পনা করেই বলেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে দেওয়া ওয়াদা রাখতে আমাদের প্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এবার সকলস্তরের নেতাকর্মীদের মাঝে জাগরণ সৃষ্টি করেছেন। যার প্রাপ্তি চট্টগ্রামের এই বিশাল বিজয় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উপহার দিয়েছেন আমাদের প্রিয় নেতা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন।

চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ সদস্য এবং মীরসরাই উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান জানান, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন শুধুমাত্র মীরসরাইয়ের নেতা নন, তিনি জাতীয় পর্যায়ের নেতা। মোশাররফ ভাইয়ের দূরদর্শী নেতৃত্বে শুধু চট্টগ্রাম বিভাগ নয়, বাংলাদেশের জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক কুটনৈতিক পরিমন্ডলেও তিনি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন। তিনি দলীয় সভানেত্রীকে দেয়া কথা রাখার জন্য মীরসরাইয়ের পাশাপাশি চট্টগ্রামের বিভিন্নস্তরের নেতাকর্মী, দলীয় এবং প্রগতিশীল সংগঠনগুলোর সাথে নিয়মিত নির্দেশনা প্রদানের মাধ্যমে চট্টগ্রামের ১৬ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থীদের বিজয়ী করে প্রধানমন্ত্রীকে দেয়া কথা রেখেছেন।

চট্টগ্রাম মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর হোসেন জানান, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধে ১ নং সেক্টরের সাব সেক্টর কমান্ডার হিসাবে আমাদের নেতা ছিল, আজ তিনি দেশবরেণ্য নেতা। যার নির্দেশনায় আমরা বীর মুক্তিযোদ্ধারা ঐক্যবদ্ধভাবে স্বাধীনতার স্বপক্ষের দল আওয়ামী লীগের জন্য অতপ্রোতভাবে কাজ করেছি। মোশাররফ ভাইয়ের নির্দেশনা আমাদের পুরো চট্টগ্রামের প্রার্থীদের বিজয়ের হাতিয়ার।
আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও আওয়ামীলীগের নির্বাচন পরিচালনা সমন্বয় উপ-কমিটির সদস্য সুরজিত দত্ত সৈকত জানান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও পরিবারকে ঐক্যবদ্ধ করে নৌকার পক্ষে কাজ করার আহবান জানান আমাদের চট্টগ্রামের কান্ডারি ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন। আমরা প্রত্যেক উপজেলায় আমাদের নেতাকর্মী সমর্থকদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নৌকায় ভোট দেয়ার আহবান জানাই। সেক্ষেত্রে উত্তর, দক্ষীন ও মহানগরে যে যার যার অবস্থান থেকে আমাদের প্রিয় অভিভাবক ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের নির্দেশনায় নৌকার প্রার্থীদের বিজয়ে আমরা কাজ করেছি।