মঙ্গলবার, ১১ মে ২০২১, ২৮ বৈশাখ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

শিক্ষক সল্পতার কারনে সৌদি আরবে বন্ধ হয়ে যেতে পারে পাচ’শ বিদেশি স্কুল

মোহাম্মদ আলী রাশেদ, সৌদি আরব থেকে :

index
নিতাকাত (সৌদি করণ), শ্রম মন্ত্রনালয়ের অসহযোগীতা, নতুন আরোপিত শ্রম আইন ও ভিসা জটিলতার কারণে শিক্ষক সল্পতা দেখা দেয়ায় আগামী বছরের মধ্যে সৌদি আরবে অন্ততঃ ৫০০ বেসরকারী স্কুল বন্ধ করে দিতে হবে। আন্তর্জাতিক শিক্ষা বিষয়ক জাতীয় কমিটির প্রধান ড: মানসুর খিনাইজান এক প্রেস কনফারেন্সে এ তথ্য জানান।তিনি বলেন, স্কুল গুলোতে বর্তমানে প্রায় ৩ লক্ষ ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়নরত আছে। কিন্তু শ্রম মন্ত্রনালয়ের বিভিন্ন সিদ্ধান্ত ও শিক্ষক সল্পতার কারণে সবগুলো স্কুল মিলে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ১ বিলিয়ন সৌদি রিয়াল ছাড়িয়ে যাবে।শিক্ষা বিভাগের এক কর্মকর্তা জানান কিছু স্কুল আইনি কারণেই বন্ধ হয়ে যাবে কিন্তু শ্রম মন্ত্রনালয় থেকে সমস্যা সমাধান না করা হলে অন্যান্য স্কুল গুলো তাদের ক্ষতি পোষাতে না পেরে শেষ পর্যন্ত বন্ধ করে দিতে বাধ্য হবে।ইতিপূর্বে শিক্ষকদের ওয়ার্ক পারমিট দেবার জন্য শ্রম, শিক্ষা এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের মধ্যে একটি আন্তঃ মন্ত্রনালয় চুক্তি সম্পাদিত হয়েছিল। কিন্ত শ্রম মন্ত্রনালয় থেকে তা বাস্তবায়ন করা হয়নি। আল খিনাইজান বলেন, শ্রমমন্ত্রনালয় কিছু সংখ্যক স্কুল পরিদর্শন করে বেশ কিছু শিক্ষকদের স্কুলের অধীনে স্পন্সরশীপ না থাকায় জরিমানা আরোপ করে। অথচ তাদের ওয়ার্ক পারমিট ছিল। পরিদর্শককে ওয়ার্ক পারমিট দেখালে তারা শিক্ষা মন্ত্রনালয় থেকে প্রদত্ত ওয়ার্ক পারমিট গ্রহণ করতে অস্বীকৃতি জানায়। আর এর ফলে শিক্ষক প্রতি স্কুল গুলোকে ৩০০০ রিয়াল করে জরিমানা প্রদান করা হয়।আল খিনাইজান আরো বলেন, নিতাকাত (সৌদি করণ) আইনের কারণে প্রত্যেক স্কুলকে নির্দিষ্ট সংখ্যক সৌদি নাগরিককে শিক্ষক হিসাবে নিয়োগ দিতে হবে এবং স্কুল গুলো এই আইন মানতে প্রস্তুত। কিন্তু বিষয় ভিত্তিক শিক্ষকের ক্ষেত্রে উপযুক্ত সৌদি নাগরিক না থাকায় এ সমস্যা আরো ঘনীভূত হয়েছে। প্রশাসনকে এ উভয় সংকট বুঝতে হবে। খিনাইজান বিশ্বাস করেন শ্রম মন্ত্রনালয়ের সুবিবেচিত সিদ্ধান্তের মাধ্যমে এ সংকট নিরসন সম্ভব। তিনি আশা করেন শ্রম মন্ত্রনালয় থেকে অচিরেই শিক্ষকদের ওয়ার্ক পারমিট এবং ভিসার ব্যাবস্থা করে সমস্যা সমাধান করা হবে।