Wednesday, November 14Welcome khabarica24 Online

রোহিঙ্গা সংকটের দায় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর : যুক্তরাষ্ট্র

রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনীকে দায়ী করেছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন বুধবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, রোহিঙ্গা সংকটের জন্য মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নেতৃত্বকেই দায়ী মনে করছে যুক্তরাষ্ট্র। খবর এএফপি।

এর আগে জাতিসংঘের তরফ থেকে বলা হয়েছে, রাখাইনে জাতিগত নিধন চালিয়েছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। তবে এ ধরনের অভিযোগ বরাবরই অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সরকার।

রাখাইনে সেনাবাহিনীর অত্যাচার, নির্যাতনের কারণে পাঁচ লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলিম নিজেদের বাড়ি-ঘর ছেড়ে বাংলাদেশে পালাতে বাধ্য হয়েছ।

বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা বলছেন, সেনারা তাদের বাড়ি-ঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে, নারীদের ধর্ষণ করেছে, নির্বিচারে সাধারণ মানুষকে গুলি করে হত্যা করেছে।

টিলারসন বলেন, বার্মায় রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যা কিছু ঘটছে তা নিয়ে আমরা দারুণভাবে উদ্বিগ্ন। তিনি বলেন, আমি দেশটির সরকারের বেসামরিক অংশের নেতা অং সান সু চির সঙ্গে যোগাযোগ করেছি।

তিনি বলেন, সেখানে (রাখাইনে) যা কিছু ঘটছে তার জন্য সেনাবাহিনীর নেতৃত্বই দায়ী। তিনি সতর্ক করে বলেন, বিশ্ব চুপ করে থাকবে না এবং রোহিঙ্গাদের ওপর যে অত্যাচার করা হচ্ছে তার সাক্ষী হয়ে থাকবে। গত সাত সপ্তাহে প্রায় পাঁচ লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের বেশ কয়েকটি পুুলিশ পোস্টে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাখাইনে সেনা অভিযান শুরু করে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। অভিযানের নামে মিয়ানমার সেনাবাহিনী এবং বৌদ্ধরা রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার, নির্যাতন চালিয়েছে, নারীদের ধর্ষণ করেছে এবং তাদের বাড়ি-ঘর ছাড়তে বাধ্য করেছে। এমন দৃশ্য বিশ্বকে হতবাক করেছে।

টিলারসন বলেন, রাখাইনে বিদ্রোহী সন্ত্রাসীদের হামলার মুখোমুখি হতে হচ্ছে মিয়ানমারকে। এ বিষয়টি খুব ভালোভাবেই বুঝতে পারছে যুক্তরাষ্ট্র। কিন্তু মিয়ানমারের সেনাদেরও আরো শৃঙ্খলাবদ্ধ এবং সংযত আচরণ করা উচিত বলে উল্লেখ করেন তিনি।