শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ১৬ শ্রাবণ ১৪২৮খবরিকা অনলাইনে আপনাকে স্বাগতম।

রায়ের ১২ ঘন্টার মধ্যেই মৃত্যু পরোয়ানা পৌঁছে গেছে কারাগারে

310114139118663502

চাঞ্চল্যকর ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় ১২ আসামির মৃত্যু পরোয়ানা চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। রায় ঘোষণার ১১ ঘণ্টার মধ্যেই পরোয়ানা কারাগারে পাঠানো হলো। কারা কর্তৃপক্ষ জানায়, বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে রায় ঘোষণা হয়। এরপর রাত ১১টার দিকে ১২ আসামির মৃত্যু পরোয়ানা আদালত থেকে কারাগারে পৌঁছে। চট্টগ্রাম কারাগারের জেলার রফিকুল কাদের বলেন, ‘১৮৯৪ সালের কারাবিধি অনুযায়ী মৃত্যুদণ্ডের আদেশ পাওয়া আসামিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে উচ্চ আদালতে আপিল করতে হবে। কারাবিধির-৬০০ ধারায় এ বিষয়টি উল্লেখ রয়েছে। মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা রায়ের নকল কপি পর্যালোচনা এবং আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে পারবেন।’ এ মামলায় ১৪ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিলেও দুই আসামি পলাতক থাকায় তাদের মৃত্যু পরোয়ানা কারাগারে পাঠানো হয়নি। মৃত্যুদণ্ডের আদেশ শোনার পর গুরুতর অসুস্থ সিইউএফএলএর সাবেক মহাব্যবস্থাপক কেএম এনামুল হককে চট্টগ্রাম কারা হাসপাতালে ভর্তির করা হয়েছে। বাকি ১১ কয়েদীকে কনডেম সেলে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। এদিকে রায় ঘোষণা নিয়ে শুক্রবারও কারাগার ও এর আশপাশে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। কারাগারের ভেতরে ও বাইরে কারারক্ষীদের পাশাপাশি পুলিশ মোতায়েন আছে। গত বৃহস্পতিবার দুপুরে বহুল আলোচিত ১০ ট্রাক অস্ত্র মামলায় জামায়াতে ইসলামীর আমির ও সাবেক মন্ত্রী মাওলানা মতিউর রহমান নিজামী, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর ও উলফার নেতা পরেশ বড়ুয়াসহ ১৪ জনের বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন আদালত। পাশাপাশি প্রত্যেক আসামিকে পাঁচ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া অস্ত্র আটকের অন্য একটি মামলায় ওই ১৪ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আদেশ দেয়া হয়েছে। চট্টগ্রামের বিশেষ ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক এস এম মজিবুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন। ১০ ট্রাক অস্ত্র ধরা পড়ার প্রায় পৌনে ১০ বছর পর চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।